বাংলার বাড়ছে করোনা পজিটিভ রেট, ঘুম উড়েছে স্বাস্থ্য কর্তাদের, পুজো উদ্বোধনে মুখ্যমন্ত্রী

1939
পুজোর পর আসতে পারে করোনার ‘সুনামি’, টানা ছমাস কড়া পদক্ষেপের ভাবনা রাজ্য় সরকারের
পুজোর পর আসতে পারে করোনার ‘সুনামি’, টানা ছমাস কড়া পদক্ষেপের ভাবনা রাজ্য় সরকারের

পুজোর পর আসতে পারে করোনার ‘সুনামি’; টানা ছমাস কড়া পদক্ষেপের ভাবনা রাজ্য় সরকারের। “কড়া পদক্ষেপের ভাবনা নেওয়া হচ্ছে”; অন্তত এমনটাই বলছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। আরও আশঙ্কা, কয়েক সপ্তাহের মধ্যে করোনার বিপদ; লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়বে। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্টে; উঠে এসেছে মারাত্মক তথ্য। আর এই রিপোর্ট দেখেই মাথায় হাত; রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের। পুজোর মরসুমে মানুষ সতর্ক না থাকলে; করোনা মহামারী ভয়াবহ রূপ নিতে পারে বলেই; রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের আশঙ্কা। একদিকে, বাংলার বাড়ছে করোনা পজিটিভ রেট; ঘুম উড়েছে স্বাস্থ্য কর্তাদের; অন্যদিকে একের পর এক পুজো উদ্বোধনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সমালোচনা বিরোধীদের।

স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্টে প্রকাশ, মার্চ থেকে আগস্ট মাসে; রাজ্যে করোনা ভাইরাস; বেশ কিছুটা নিয়ন্ত্রণেই ছিল। কোভিড হাসপাতালের; বেড খালি ছিল। বাস্তব চিত্র যাচাই করতে, গোটা সেপ্টেম্বর জুড়ে কলকাতা, দার্জিলিং সহ; পাঁচটি জেলার সাত হাজার মানুষের; লালারস বা নাসিকা নিঃসৃত রস পরীক্ষা হয়। পরীক্ষা হয় স্কুল অফ ট্রপিক্যাল মেডিসিনে। আবার নাইসেডও নিজের মতো করে; সমীক্ষা চালায়। আর সেই রিপোর্টে দেখে; ঘুম ছুটেছে রাজ্য স্বাস্থ্য কর্তাদের।

আরও পড়ুনঃ পুজো অনুদান নিয়ে কড়া হাইকোর্ট, দিতে হবে পাই পয়সার হিসাব, কিসে খরচা করতে হবে তাও বলে দিল আদালত

রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের প্রধান সচিব নারায়ণস্বরূপ নিগম জানিয়েছেন; “মাত্র একমাসের ব্যবধানে; পজিটিভ রেট ২.২ শতাংশ বেড়েছে। আগস্টে ছিল ৬.৯০ শতাংশ; এখন ৮.৪৮ শতাংশ”। স্বাস্থ্যসচিবের কথায়; “করোনা সংক্রমণ রুখতে, পুজোর উৎসব থেকেই অর্থাৎ অক্টোবর মাস থেকে; ২০২১ এর মার্চ পর্যন্ত; টানা ছয় মাস বিশেষ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে”।

রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের রিপোর্টে চোখ বুলিয়ে; স্কুল অফ ট্রপিক্যাল মেডিসিনের অধিকর্তা, ডা. প্রতীপকুমার কুণ্ডু আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন; “এমন অবস্থা হলে পুজোর সময় পজিটিভ হার; দশ শতাংশে পৌঁছে যাবে। অসুস্থতার সংখ্যা আরও বাড়বে। আমাদের আরও সচেতন হতে হবে”। স্বাস্থ্য দপ্তর উত্তরের দার্জিলিং, পশ্চিম ও পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, উত্তর ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা; এবং কলকাতার বিভিন্ন অংশের বাসিন্দাদের থেকে; যে চিত্র পেয়েছে তা যথেষ্ট উদ্বেগজনক বলেই মনে করেন; রাজ্যের স্বাস্থ্যসচিব নারায়ণস্বরূপ নিগম।

আরও পড়ুনঃ স্কুল কলেজ বন্ধ, লোকাল ট্রেনে অনুমতি নয়, দুর্গা পুজোতে রাস্তায় নেমে উৎসব পালনে উৎসাহ কেন

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য বলছে; কলকাতা মৃত্যুর শীর্ষে; মোট মৃতের সংখ্যা ১,৮৭৭। আবার সংক্রমণের শীর্ষে; উত্তর ২৪ পরগনা। সংক্রমিত ৬,৪৪৪ জন। মাত্র একদিনে সংক্রমিত বা পজিটিভ; পাওয়া গিয়েছে ১৫৯ জনের। যাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে। হাওড়ায় সংক্রমিত পাওয়া গিয়েছে; ১,৫২৪ জন। জেলায় মৃত্যু হয়েছে মোট ৬২৭ জনের। পশ্চিম ও পূর্ব মেদিনীপুর জেলায়; করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১৭৩ এবং ১৫৬ জনের। পজিটিভের হার হাজারের উপর।

চিকিৎসকরা আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন; “দুর্গাপুজোর আনন্দ করতে গিয়ে; সংক্রমণকে বাড়িতে ডেকে আনলে কে বাঁচাবে?” তবে, এর মধ্যেও একের পর এক; পুজোর উদ্বোধনে মুখ্যমন্ত্রী। সমালোচনা করেছেন; বিরোধীরা। কংগ্রেস নেতা আব্দুল মান্নান; সিপিএম বিধায়ক সুজন চক্রবর্তী; ও বিজেপি সাংসদ ও রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ; এই নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমালোচনা করেছেন। তবে, মুখ্যমন্ত্রী পরিষ্কার বলেছেন; “দুর্গাপুজো বাঙালির বড় উৎসব; দুর্গাপুজোয় কি মানুষ আনন্দ করবে না”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন