‘দলত্যাগীদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা’, তৃণমূলের পাশে দাঁড়াল সিপিএমও

1479
'দলত্যাগীদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা', তৃণমূলের পাশে দাঁড়াল সিপিএমও
'দলত্যাগীদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা', তৃণমূলের পাশে দাঁড়াল সিপিএমও

‘দলত্যাগীদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা’; তৃণমূলের পাশে দাঁড়াল সিপিএম। বিজেমূল (বিজেপি ও তৃণমূল) তত্ত্বের প্রবক্তা সিপিএম, ভোট যেতেই আবারও; সেই তৃণমূলের পাশেই দাঁড়াল। এবার দলত্যাগীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া নিয়ে; রাজ্যের শাসক দলের পাশে দাঁড়াল বামেরা। তৃণমূল সাংসদ সুনীল মণ্ডল আর শিশির অধিকারীর সাংসদ সদস্যপদ; খারিজের দাবি তুলে লোকসভার স্পিকারকে দেওয়া চিঠি দেওয়া ন্যায়সঙ্গত; বলেই মনে করছেন বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী। তবে রাজ্য বিধানসভায় তৃণমূল এই পদক্ষেপ নেবে কি না; সেটা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন।

গত বিধানসভায় এক দলত্যাগী বিধায়কের বিরুদ্ধে; স্পিকার ও মুখ্যমন্ত্রীকে অভিযোগ জানানো হয়। ২৩ বার শুনানি হলেও, কোনও পদক্ষেপ করা হয়নি; বলেই দাবি সুজন চক্রবর্তীর। কিন্তু লোকসভায় বিজেপির সাংসদ-দের পদ খারিজ করার; তৃণমূলের দাবির সঙ্গে তিনিও সরব হলেন। রাজ্য বিধানসভায় তৃণমূল সেটা করবে না; সেটাও স্বীকার করে নেন সুজন।

আরও পড়ুনঃ মুকুল রায়ের টার্গেট ‘ম্যাজিক ২৫’, ঘোর চিন্তায় শুভেন্দু

দলত্যাগী সাংসদদের সদস্যপদ খারিজের দাবি করে; লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লাকে চিঠি দিয়েছে তৃণমূল সংসদীয় দল। পালটা বিধানসভায় দলত্যাগী বিধায়কের পদত্যাগ; দাবি করেছে বিজেপি। উভয় দলের উদ্যোগকেই; অবশ্য স্বাগত জানিয়েছে আলিমুদ্দিন। দলত্যাগ বিরোধী আইন কার্যকর করে; এঁদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি করেন সুজন। তবে আইন কার্যকর করা নিয়ে, যথেষ্ট সন্দেহের অবকাশ রয়েছে; বলেই মনে করেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ গরিব ছিলেন পাননি প্রেমিকা-কে, মুখ্যমন্ত্রী হয়ে অমর করে রাখলেন ভালোবাসাকে

২০১৬-র নির্বাচনের পর, বাম-কংগ্রেস জোটের একাধিক বিধায়কল শাসকদল এবং বিজেপিতে নাম লিখিয়েছেন। তৎকালীন বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নান এবং সুজন চক্রবর্তী; একাধিকবার বিধানসভার স্পিকারের কাছে এই বিষয়ে অভিযোগ জানিয়েছিলেন। এমনকি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছেও; চিঠি লিখে ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন জানিয়েছিলেন। কিন্তু কোনও কিছুতেই কাজ হয়নি। সুজনবাবু এদিন কটাক্ষ করে বলেছেন যে; “তৃণমূল ও বিজেপি একই গোয়ালের গরু। এঁরা দুজনেই সংবিধানের ধ্বংসকারী”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন