শুধু কাটমানি দুর্নীতি নয়, তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে পুকুর চুরির অভিযোগ এল মমতার কাছে

340
শুধু কাটমানি নয়, তৃণমূলের বিরুদ্ধে পুকুর চুরির অভিযোগ এল মমতার কাছে/The News বাংলা
শুধু কাটমানি নয়, তৃণমূলের বিরুদ্ধে পুকুর চুরির অভিযোগ এল মমতার কাছে/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

কাটমানি কেলেঙ্কারিতে কাঁপছে তৃণমূল কংগ্রেস। জেলায় জেলায় শুরু হয়েছে; কাটমানি ফেরত পাবার দাবী। সমস্যায় ছোট বড় অধিকাংশ তৃণমূল নেতারা। “সব কাটমানি ফেরত দিতে হবে”; মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘোষণা মাত্রই; শুরু হয়ে গেছে নেতাদের বাড়িতে বাড়িতে হামলা। অভিযোগ জানাবার ফোন নাম্বার ও ঠিকানা পেয়ে যাওয়ায়; আমজনতার অভিযোগের পাহাড় জমছে। কিন্তু শুধুমাত্র কাটমানি নয়; তৃণমূলের বিরুদ্ধে পুকুর চুরির অভিযোগ এল মমতার কাছে।

হ্যাঁ, পুকুর চুরির অভিযোগ। সরকারি কাজ করে কাটমানি খেয়েছেন; তৃণমূল নেতারা, এমনটাই অভিযোগ ছিল মমতার। কিন্তু কাজ না করেই গরিব মানুষদের ১০০ দিনের পুরো টাকাটাই বেমালুম হজম করে দিয়েছেন; তৃণমূল নেতারা। এমন অভিযোগ নবান্নে ও কালীঘাটে জমা পরছে শয়ে শয়ে। এমনই একটি পুকুর চুরির অভিযোগ; মমতা ও মোদীকে পাঠিয়েছেন; পুরুলিয়া জেলার জয়পুরের বাসিন্দা ললিত গড়াই।

কাটমানি নয়, তাঁর অভিযোগ পুকুর চুরির। অর্থাৎ কাটমানি নয়; পুরো মানিই হাফিস। অভিযোগ জয়পুর গ্রাম পঞ্চায়েতে ১০০ দিনের একটি কাজে; কাজ না হওয়াতেও সব টাকা পকেটে পুরেছেন তৃণমূল নেতা দেবেন মাহাত। খাতায় কলমে ১০০ দিনের কাজ হয়েছে দেখান হয়েছে; কিন্তু পুকুর কাটাই হয়নি। পুকুর যেমন ছিল; ঠিক তেমনই আছে বলেই দাবী; পুকুরের মালিক ললিত গড়াইয়ের।

তাঁর অভিযোগ, তৃণমূল নেতা দেবেন মাহাত-র এই দুর্নীতিতে; জড়িয়ে আছেন স্থানিয় পঞ্চায়েত প্রশাসন ও ব্লক প্রশাসনও। ১০০ দিনের কাজ না করিয়েই; কাজ করা হয়েছে; সার্টিফিকেট দিয়ে তুলে নেওয়া হয়েছে টাকা। সাধারণ মানুষ একটি টাকাও পাননি।

পুকুরের মালিক ললিত গড়াই; এই নিয়ে ফের মুখ্যমন্ত্রীর দারস্থ হয়েছেন। The News বাংলার প্রতিনিধি এলাকায় গিয়ে; পুকুর দেখতে পান। কিন্তু তাতে যে খোঁড়ার কোন কাজ হয়নি; সেটা পরিষ্কার। এই পুকুরে ১০০ দিনের কাজ কেউ করেছে; সেরকম মানুষও পাওয়া যায়নি। তবে স্থানিয় জয়পুর ব্লকের আধিকারিকরা জানিয়েছেন; অভিযোগ পেয়ে জুনিয়র প্রোগ্রাম অফিসারকে দিয়ে তদন্ত করা হয়েছিল। কিন্তু রিপোর্টে দুর্নীতির কিছু পাওয়া যায়নি।

কিন্তু খালি চোখেই যেখানে দেখা যাচ্ছে; কোন কাজই হয়নি; সেখানে ব্লক দফতরের তদন্তে কিছুই পাওয়া গেল না? উঠে গেছে প্রশ্ন। এবার কাটমানি ইস্যু শুরু হবার পর; ফের পুকুর চুরি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দিলেন ললিত গড়াই।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন