এগিয়ে বাংলা, বেড পাওয়া থেকে গামছা দেওয়া, সরকারি করোনা হাসপাতালে শুরু দালাল রাজ

5535
এগিয়ে বাংলা, সরকারি করোনা হাসপাতালে বেড নিয়ে শুরু দালাল রাজ
এগিয়ে বাংলা, সরকারি করোনা হাসপাতালে বেড নিয়ে শুরু দালাল রাজ

এগিয়ে বাংলা, সরকারি করোনা হাসপাতালে; সিসিইউ বেড নিয়ে শুরু দালাল রাজ। কলেজ স্ট্রিটের কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে; CCU বেড পেতে করোনা রোগীকে দিতে হবে ১২ হাজার টাকা ঘুষ। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই হাসপাতালকে করোনা হাসপাতাল হিসাবে ঘোষণা করার পরেই; বেড়ে গিয়েছে দালাল রাজ; এমনটাই অভিযোগ ছিল। সোমবার একটি ঘটনায় তা প্রকাশ্যে এল। মরণাপন্ন অবস্থায়, কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিল; ৬৫ বছরের এক বৃদ্ধাকে। তবে, করোনা পরিস্থিতির জেরে; বেড মিলছিল না কিছুতেই। অন্যদিকে, সিসিইউ পাইয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে; দু-দিন ধরে দরদাম চালিয়ে যাচ্ছিলেন এক দল দালাল।

কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আসা; অভিযোগকারী ওই পরিবার জানিয়েছেন; সিসিইউ-তে রোগীকে ভর্তির জন্য; তাঁদের কাছে ১২ হাজার টাকা চাওয়া হয়। তবে সামর্থ না থাকায়, দালালদের কাছে কাকুতি মিনতি করে পরিবার। শেষ পর্যন্ত, ৫০০০ হাজার টাকা জোগাড় করে; ওই দালালদের হাতে তুলে দেয় রোগীর পরিবার। তারপরেই ম্যাজিক; এতক্ষন খালি না থাকা সিসিইউতে; সঙ্গে সঙ্গে বেড পান ওই মরণাপন্ন বৃদ্ধা।

আরও পড়ুনঃ খেতে পাচ্ছে না মানুষ, লকডাউন ভেঙে পিকনিক তৃণমূলের

মেডিকেল চত্বরে প্রকাশ্য়ে এসেছে; এই ধরণের দুর্নীতি ও বর্বরতা। অনেক পরিবারই অভিযোগ করেছে; “হাসপাতালে টাকার বিনিময়ে; সিসিইউ ভাড়া দিচ্ছেন দালালরা। করোনা রোগীর জন্য; সিসিইউ বিক্রি হচ্ছে ১২ হাজার টাকায়”। তবে, তাঁরা এও জানিয়েছেন; রোগীর পরিবারের কান্নাকাটিতে ৫০০০ টাকাতেও রফা করছেন এই দালালরা।

তবে, সংবাদমাধ্যমকে জানালে; হাসপাতালের বেডেই রোগী খুনের হুমকি; দিয়েছে দালালরা। টাকা লেনদেনের কথা সংবাদমাধ্যমকে জানালে; সিসিইউতে ঢুকে রোগীর নল খুলে দেওয়া হবে; বলেও হুমকি দিয়েছেন দালালরা। আর তাতেই রীতিমতো ভয়ে আশঙ্কায়; সিঁটিয়ে রয়েছেন রোগীর আত্মীয়রা। এদিকে করোনা রোগীর কাছে গামছা, তেল, খাবার পৌঁছে দিতেও; ইচ্ছেমতো টাকা আদায় করা হচ্ছে, রোগীর পরিবারের কাছ থেকে। সবমিলিয়ে পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে; নৃশংসতার পরিচয় দিয়ে চলেছেন একদল কর্মী।

আরও পড়ুনঃ কাশ্মীরে হিন্দুদের টিকে থাকতে গেলে, হাতে অস্ত্র তুলে নিতেই হবে, বললেন জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন ডিজিপি

করোনা হাসপাতাল হিসাবে ঘোষণা হবার পরেই; নিরাপত্তা ও সাধারণ মানুষের হাসপাতালে ঢোকা বেরোনো বন্ধ হওয়ায়; কলকাতা মেডিকেল কলেজে দালাল রাজ আরও বেড়েছে বলেই অভিযোগ। করোনা আবহে; এই ধরনের একাধিক অভিযোগ উঠছে। অভিযোগ পেয়ে, পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন; কলকাতা মেডিকেলের সুপার ইন্দ্রনীল বিশ্বাস।

তবে, তাতেও টনক নড়েনি এই দালাল ও একশ্রেণীর কর্মীদের। সুপার স্পেশালিটি ব্লক থেকে গ্রিন বিল্ডিং; প্রকাশ্যেই চলছে দেদার লেনদেন। হাসপাতালের কর্মীরা জড়িত না থাকলে, কোনদিন এই দালাল রাজ চলতেই পারে না; অভিযোগ রোগীর আত্মীয়দের। সব দেখেশুনেও চুপ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। দালাল রাজের দাপটে হাহাকার; কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন