লালকেল্লা কাণ্ডে ফাটল দিল্লির কৃষক আন্দোলনে, সরে গেল দুটি সংগঠন

3146
লাল কেল্লা কাণ্ডে ফাটল দিল্লির কৃষক আন্দোলনে, সরে গেল দুটি সংগঠন
লাল কেল্লা কাণ্ডে ফাটল দিল্লির কৃষক আন্দোলনে, সরে গেল দুটি সংগঠন

লালকেল্লা কাণ্ডে ফাটল; দিল্লির কৃষক আন্দোলনে। বুধবার সরে গেল; দুটি কৃষক সংগঠন। লালকেল্লায় তাণ্ডবের জেরে, এবার দিল্লিতে কৃষক আন্দোলন থেকে সরে দাঁড়াল; কিষাণ মজদুর সংগঠন ও ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়ন। বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবেই তারা জানিয়ে দিল; এই আন্দোলনে তাঁরা আর যুক্ত থাকতে চাইছেন না। প্রজাতন্ত্র দিবসে রাজধানী দিল্লি জুড়ে বিশেষ করে লালকেল্লায়, যে তাণ্ডব চলেছে; তার ফলশ্রুতিতেই এই আন্দোলনের একতা ভাঙছে বলেই দাবি করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। তাই বিক্ষোভের পরের দিনই; ঐক্যে ফাটল। কৃষক আন্দোলন থেকেই; সমর্থন তুলে নিল দুটি সংগঠন।

বুধবার রাষ্ট্রীয় কিসান মজদুর সংগঠন ও ভারতীয় কিসান ইউনিয়ান (ভানু)-এর তরফ থেকে; এই আন্দোলন থেকে সমর্থন তুলে নেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। কিসান মজদুর সংগঠনের নেতা ভিএম সিংহ জানিয়েছেন; “যে ভাবে আন্দোলন চলছে, তা গ্রহণযোগ্য নয়। সেই কারণেই সমর্থন তুলে নেওয়া হচ্ছে; মঙ্গলবার দিল্লিতে যা ঘটেছে; তার জন্য আমরা দুঃখিত ও বেদনাহত”। পাশাপাশি তিনি জানান, বিক্ষোভ কর্মসূচি চালিয়ে নিয়ে যাবে তাঁর সংগঠন; কিন্তু এই পন্থায় নয়।

অন্যদিকে কৃষকদের যৌথ মঞ্চের পক্ষ থেকে; বুধবার ফের আন্দোলনকারীদের শান্তি বজায় রাখতে আবেদন করা হয়েছে। পাশাপাশি, তাঁদের অভিযোগ, ষড়যন্ত্র করা হয়েছে; কৃষক আন্দোলনের বিরুদ্ধে। সংযুক্ত কিসান মোর্চা প্রথমেই, ২৬ জানুয়ারি ট্র্যাক্টর মিছিলে অভূতপূর্ব অংশগ্রহণের জন্য; সাধারণ মানুষকে ধন্যবাদ জানিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ লালকেল্লায় ত্রিরঙ্গা ছাড়া গেরুয়া, লাল, নীল, হলুদ কিছুই চাই না, দাবি দেশবাসীর

লালকেল্লা তাণ্ডবে এখনও পর্যন্ত; ৩৭ জন কৃষক নেতার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছে দিল্লি পুলিশ। এই তালিকায় রয়েছে; যোগেন্দ্র যাদব, মেধা পাটেকরদের নাম। গতকালের ঘটনায় আহত হয়েছেন; অন্তত ৩০০ পুলিশ। এর মধ্যে ১৫৩ জন পুলিশকর্মী; হাসপাতালে ভর্তি। দুজন অত্যন্ত সংকটাপন্ন অবস্থায়; আইসিইউ-তে রয়েছেন।

এদিন ঘটনার প্রতিবাদে মুখ খুলেছেন; পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং। তিনি এদিন বলেছেন; “গতকাল রাজধানীতে যা ঘটেছে; তাতে লজ্জায় আমার মাথা হেঁট হয়ে যাচ্ছে”। কিছুটা দমে গিয়েছেন কৃষকরাও। পূর্ব ঘোষিত সংসদ অভিযান কর্মসূচি; আপাতত স্থগিত রাখছেন প্রতিবাদী কৃষকরা। আগেই ঘোষণা করা হয়েছিল, ১ ফেব্রুয়ারি অর্থাৎ বাজেট অধিবেশনের প্রথম দিন; তাঁরা সংসদ ভবন অভিযান করবেন। আপাতত সেই কর্মসূচি থেকে; সরে আসতে চাইছেন তাঁরা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন