যজ্ঞ করে ভগবান ইন্দ্রকে খুশি করলেই দিল্লির দূষণ কমবে, জব্বর নিদান মন্ত্রীমশাইয়ের

1142
যজ্ঞ করে ভগবান ইন্দ্রকে খুশি করলেই দিল্লির দূষণ কমবে, জব্বর নিদান মন্ত্রীমশাইয়ের/The News বাংলা
যজ্ঞ করে ভগবান ইন্দ্রকে খুশি করলেই দিল্লির দূষণ কমবে, জব্বর নিদান মন্ত্রীমশাইয়ের/The News বাংলা

তাঁর একটা কথাতেই গোটা দেশ তোলপাড়। দিল্লি দূষণ রোধে; একটা দারুণ উপায় বের করলেন বিজেপির মন্ত্রী। “যজ্ঞ করে ভগবান ইন্দ্রকে খুশি করলেই দিল্লির দূষণ কমবে”; জব্বর নিদান দিলেন উত্তরপ্রদেশের যোগী সরকারের মন্ত্রী। বিষাক্ত ধোঁয়ায় ঢেকেছে রাজধানী দিল্লির আকাশ৷ বাতাসে বিষ; শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে দিল্লিবাসীর৷ চোখ জ্বলছে; ফুসফুসে ঢুকছে বিষাক্ত বাতাস। এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স ৯৯৯ মার্ক ছুঁয়েছে৷ এই পরিস্থিতিতে দিল্লির দূষণ কমানোর চটজলদি সমাধান বাতলে দিলেন; উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রী।

“দিল্লির দূষণের হাত থেকে বাঁচতে ভগবান ইন্দ্রের যজ্ঞ করা উচিত; তিনিই সবকিছু ঠিক করে দেবেন”। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে; এই পরামর্শ দিলেন বিজেপি নেতা ও যোগী আদিত‍্যনাথের মন্ত্রী সুনীল ভারালা। দীপাবলির পর দিল্লি ও তার আশপাশের এলাকার; ভয়াবহ দূষণের প্রেক্ষিতে একথা বলেছেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ কাশ্মীরে বিপথগামী যুবকদের ঘরে ফেরাবার নতুন উদ্যোগ শুরু করলো ভারতীয় সেনা

দিল্লি দূষণের জন্য; পাঞ্জাব ও হরিয়ানার কৃষকদের দায়ী করেছিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। “কৃষকরা মাঠে খড় পোড়ানোর জন্য; দিল্লির দূষণ এতো বেড়ে গিয়েছে”; বলে অভিযোগ করেন তিনি। এই প্রসঙ্গে উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রী সুনীল ভারালা বলেন, “কৃষকরা সবসময় খড় পুড়িয়ে থাকে। এটি একটি স্বাভাবিক ব‍্যাপার। বারবার এটা নিয়ে সমালোচনা করা দুর্ভাগ্যজনক। সরকারের উচিত যজ্ঞ করে ভগবান ইন্দ্রকে সন্তুষ্ট করা; উনিই সবকিছু ঠিক করে দেবেন”।

রবিবার দিল্লিতে দূষণের মাত্রা এতো বেড়ে যায়; জনস্বাস্থ‍্য সংক্রান্ত ‘গুরতর জরুরি অবস্থা’ জারি করতে হয়। সকাল ৯টায় যেখানে বাতাসের গুণগত মান (Air Quality Index) ছিল ৪১০, বেলা ১২টায় তা বেড়ে হয় ৬২৫। ০-৫০ এর মধ্যে ইনডেক্সের মান থাকলে; সেখানের বাতাসকে ‘ভালো’ বলে ধরা হয়। ৫১-১০০ এর মধ্যে থাকলে ‘সন্তোষজনক’ ও ১০১-২০০ ইনডেক্স থাকলে; সেই বাতাসকে ‘মাঝারি’ মানের বাতাস মনে করা হয়।

২১০-৩০০; ৩০১-৪০০ ও ৪০১-৫০০ ইনডেক্সের বাতাসকে যথাক্রমে খারাপ, খুব খারাপ ও গুরুতর খারাপ বাতাস মনে করা হয়। ইনডেক্স ৫০০-এর ওপরে উঠলে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়। পরিবেশবিদ থেকে শুরু করে বিভিন্ন বিশেষজ্ঞরা যখন; দিল্লির দূষণ কমানোর নানা উপায় ভাবছেন; তখন সুনীল ভারালার দৃঢ় বিশ্বাস; ভগবান ইন্দ্রের বিশেষ যজ্ঞ করলেই কমে যাবে দিল্লির দূষণ৷

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন