মঙ্গলের বুকে প্রথম মানুষ বাংলার মেয়ে

2797
মঙ্গলের বুকে প্রথম মানুষ বাংলার মেয়ে/The News বাংলা
মঙ্গলের বুকে প্রথম মানুষ বাংলার মেয়ে/The News বাংলা

মঙ্গলের বুকে; প্রথম মানুষ বাংলার মেয়ে। স্পেস ফিকশন এবার বাংলা সিনেমার হাত ধরে। দিন আনি দিন খাই এর মধ্যবিত্ত জীবনে; বাঙালি কিন্তু আকাশ দেখার চর্চা ছাড়েনি। এখনো কোন কোন বাবা; তাঁর সন্তানকে চিনিয়ে দেন; শুকতারা অথবা সপ্তর্ষিমন্ডল। আকাশ ছুঁতে চাওয়ার ইচ্ছা তো সব মানুষের থাকে; তাই না? সেই আকাশ ছোঁয়া স্বপ্নগুলো এবং বাংলার  প্রথম Space Fiction নিয়ে আসছেন; পরিচালক প্রসেনজিৎ চৌধুরী তাঁর আগামী সিনেমা ‘দিন রাত্রির গল্প’ তে।

নাসার থেকে এক গোপন অভিযানে যাচ্ছেন অরণিমা চ্যাটার্জী; অথচ তার বাবা মা জানেন না সেটা। সাতদিন মেয়ের খোঁজ না পেয়ে; যখন দুজনেই চিন্তিত; বাড়িতে আসে এক অদ্ভুত কল। নাসার থেকে লোক আসছেন মেয়ের খবর জানাতে।

রহস্য আরো ঘনীভূত হয় যখন জানা যায়; মঙ্গলগ্রহে প্রথম পা রাখতে চলেছেন অরুণিমা। এরপরের চমক নাহয় উহ্যই থাক। দর্শক চমকে যাবেন এর পরের ঘটনাপ্রবাহে। এক জোরালো সূর্যের আলোয় শুধু ধাধিয়ে যেতে পারে চোখ। আলোতেই যদিও শেষ নয় এই সিনেমা। এক গভীর কালো রাতের গল্পও বুনেছেন পরিচালক।

এক বৃষ্টির রাতে অচেনা পথে; একটি মেয়ে এবং একটি লোকের দেখা হল। লোকটি সেই দুর্যোগের রাতে আশ্রয় দিল মেয়েটিকে। কিন্তু সেই গোটা বাড়িতে জেগে আছে; যেন এক অদ্ভুত অস্বস্তি। ভদ্রলোক জানতে চেষ্টা করেন মৃত্যুর রহস্য; সঠিক পথ অনুসরণ করলে কথা বলা যায় মৃত্যুর সাথেও; বলে মানেন তিনি। শুরু হয় গল্পের রোমাঞ্চকর অধ্যায়।

মেয়েটি কি বাড়িতে বন্দী? কি করেন ভদ্রলোক? তবে কি সত্যিই আছে আলৌকিক -এরকম নানা প্রশ্ন দর্শককে বসিয়ে রাখবে শেষ পর্যন্ত। এমনকি সিনেমার শেষেও চমকেই উঠবেন তারা। দিন ও রাত্রি মিশে গেছে এই গল্পে অনায়াস দক্ষতায়;  প্রসেনজিৎ চৌধুরী এবং সুপ্রীতি চৌধুরী দুজনে মিলে লিখেছেন এই গল্প। সুপ্রীতির অভিনয়ক্ষমতাও  ঋদ্ধ করেছে সিনেমাটিকে।

সিনেমার সঙ্গীত পরিচালক শান্তনু দত্ত। মুহূর্তদের ক্যামেরাবন্দী করেছেন মৃন্ময় মন্ডল। সিনেমাটির VFX এর দায়িত্বে রয়েছেন দীপঙ্কর দাস। সম্পাদনা করেছেন প্রদীপ দাস।   কিছু অসামান্য চরিত্র দেখবেন দর্শকেরা এই সিনেমায়। প্রতিটি চরিত্রই মনে দাগ রেখে যাবে।   প্রদীপ মুখার্জী , রুমকি চ্যাটার্জী, রজতাভ দত্ত , দেবেশ রায় চৌধুরী, সৌরভ চক্রবর্তী , রায়তী ভট্টাচার্য-র মত কিছু অসামান্য অভিনেতারা জুড়ে আছেন এই সিনেমায়।

অরুণিমার বাবার চরিত্রে; প্রদীপবাবুর অভিনয় আপনার চোখের কোণকেও একটু ভিজিয়ে তুলবেই। সত্যজিৎ রায়ের সিনেমার নায়কের অভিনয়; মুগ্ধ করেই আমাদের সবসময়।  তবে আলাদা করে বলতে হবে রজতাভর কথা। অভিনয় নিয়ে নিরন্তর কাটাছেঁড়া করে চলেছেন তিনি। ইতিমধ্যেই লঞ্চ করে যাওয়া ট্রেলারে যখন তিনি বলে ওঠেন ‘ পৃথিবীর সবচেয়ে বড় খুনি, আমাদের ঈশ্বর।’ বুকের ভিতরটা একটু কেঁপে যায় বোধহয় আপনারও। সব মিলিয়ে; অপেক্ষার শুরু। আর কিছুদিন পরেই আসতে চলেছে ‘দিন রাত্রির গল্প’।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন