নির্যাতিতার বাড়িতে গিয়ে মুখ না খোলার হুমকি, হাথরস কাণ্ডের আসল ভিলেন জেলাশাসক প্রবীণ কুমার

1958
নির্যাতিতার বাড়িতে গিয়ে মুখ না খোলার হুমকি, হাথরস কাণ্ডের আসল ভিলেন জেলাশাসক প্রবীণ কুমার
নির্যাতিতার বাড়িতে গিয়ে মুখ না খোলার হুমকি, হাথরস কাণ্ডের আসল ভিলেন জেলাশাসক প্রবীণ কুমার

মানব গুহ, The News বাংলাঃ নির্যাতিতার বাড়িতে গিয়ে মুখ না খোলার হুমকি; আইনজীবী ও সাংবাদিকদের ধর্ষিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে না দেওয়া; আর এই সব ‘কীর্তি’র পিছনে ছিলেন একজনই; হাথরস কাণ্ডের আসল ‘ভিলেন’ জেলাশাসক প্রবীণ কুমার লস্কর। হাথরসের নির্যাতিতার জন্য; সুবিচারের দাবিতে উত্তাল গোটা দেশ। সেই সুবিচারের পাশাপাশিই উঠে আসছে; প্রাক্তন শিক্ষক ও এখন আইএএস প্রবীণ কুমারের কীর্তির কথা। জেলাশাসকের একের পর কীর্তি; সামনে আসছে। নির্যাতিতার বাড়িতে গিয়ে তিনি নাকি; মুখ না-খোলার হুমকি দিয়েছেন। লাথি মেরেছেন নির্যাতিতার কাকাকে। বয়ান বদলানোর জন্য; ভয় দেখিয়েছেন। অভিযোগ নির্যাতিতার পরিজনদের। গোটা দেশে এখন একজনই ভিলেন; জেলাশাসক প্রবীণ কুমার।

আরও পড়ুনঃ কত বড় প্রভাবশালীর ছেলে, হাথরস কাণ্ডে কাদের আড়াল করতে চাইছে যোগী সরকার

উত্তরপ্রদেশের হাথরসের জেলাশাসক প্রবীণ কুমার লস্করের; একটি ভিডিয়ো আগেই ভাইরাল হয়েছে। যেখানে দেখা গিয়েছিল, ধর্ষিতা দলিত যুবতীর পরিবারের পাশে না দাঁড়িয়ে; বরং তাঁদের মাস্তান বা গুণ্ডার মতো হুমকি দিচ্ছেন; “আপনাদের বিশ্বাসযোগ্যতা হারাবেন না। সংবাদমাধ্যমের লোকেরা আজ আছে। কাল চলে যাবে। কিন্তু আমরা থাকব। এবার আপনি ভেবে দেখুন; বয়ান বদল করবেন কিনা। আমরা তো যখন তখন বদলে যেতে পারি”। এই ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পরেই; জেলাশাসকের আসল স্বরুপ বোঝা যায়।

কর্মজীবন শুরু করেছিলেন; শিক্ষকতা দিয়ে। তার মধ্যেই নিয়েছিলেন; সিভিল সার্ভিস পরীক্ষার প্রস্তুতি। ২০১১ সালে পাশ করেন। তার পরের বছর ২০১২ সাল থেকেই; প্রবীণ কুমার লস্কর ‘সরকারি চাকুরে’। প্রবীণ কুমার নামেই যিনি; আপাতত সারা দেশে কুখ্যাত।রাজস্থানের আদি বাসিন্দা প্রবীণের; প্রথম পোস্টিংই হয়েছিল উত্তরপ্রদেশে। রাজ্যের বিভিন্ন জেলা ঘুরে; ২০১৯ সালে তিনি হাথরসের জেলাশাসকের দায়িত্ব পান। জেলাশাসক হওয়ার এক বছরের মধ্যেই; তাঁর প্রশাসনিক ভূমিকা বড়সড় প্রশ্নের মুখে।

আরও পড়ুনঃ চিতায় পরে চিতাভস্ম, হাথরস কাণ্ডে হিন্দু রীতি অনুযায়ী শেষ কাজও করতে দিল না যোগী সরকার

নির্যাতিতার পরিবারকে ন্যায়বিচার দেওয়ার বদলে; প্রশাসনিক ক্ষমতা ব্যবহার তাঁদের ভয় দেখানো ও দমন করার; অভিযোগ উঠেছে প্রবীণের বিরুদ্ধে। ভাইরাল হওয়া ভিডিয়োতে শোনা যাচ্ছে, নির্যাতিতার পরিবারকে ঠান্ডা গলায় প্রবীণ বলেছেন; “অর্ধেক মিডিয়া চলে গিয়েছে। বাকি অর্ধেক কাল চলে যাবে। শুধু আমরাই থাকব। বয়ান বদলাবেন কি না; সেটা আপনাদের ব্যাপার”। কাদের আড়াল করার চেষ্টা করছেন জেলাশাসক? গোটা দেশের মানুষ এখন এটাই জানতে চায়; হাথরসের জেলাশাসক প্রবীণ কুমার লস্করের কাছে।

হাথরাস কাণ্ডে ধর্ষকদের বাঁচাতে; অতি সক্রিয় হতে গিয়ে চাপে পড়ে গেছে; যোগী প্রশাসন। এলাহাবাদ হাইকোর্টের লখনউ বেঞ্চ, স্বতঃপ্রণাদিত হয়েই; হাথরাস ধর্ষণ কাণ্ডে মামলা শুরু করেছে। রাজ্যের স্বরাষ্ট্র দফতরের অতিরিক্ত মুখ্যসচিব; রাজ্য পুলিসের ডিজি; এডিজি (আইনশৃঙ্খলা); হাথরাসের জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছ থেকে; দলিত যুবতীর উপরে হওয়া নির্যাতন নিয়ে; রিপোর্ট তলব করেছে। আগামী ১২ অক্টোবরের মধ্যে ওই রিপোর্ট; জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ওই দিনই এ বিষয়ে পরবর্তী নির্দেশিকা; জারি করবেন বিচারপতিরা। গোটা ঘটনায় চরম লজ্জা ও অস্বস্তিতে; যোগী সরকার।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন