ডাক্তাররা কি জল খেতে বলছেন, ঠাণ্ডা না গরম, এখনই জেনে নিন

431
ডাক্তাররা কি জল খেতে বলছেন, ঠাণ্ডা না গরম, এখনই জেনে নিন/The News বাংলা
ডাক্তাররা কি জল খেতে বলছেন, ঠাণ্ডা না গরম, এখনই জেনে নিন/The News বাংলা

প্রতিদিনের ব্যস্ত জীবনে; জল খাওয়ার কথা আলাদা করে কারোর মনে থাকে না। কিন্তু জল খাওয়ার গুরুত্ব সবার জানা। সারাদিনে কম জল খেলেও; রাতে শোওয়ার আগে; এক গ্লাস ঈষদুষ্ণ জল আপনাকে খেতেই হবে। জানে নিন কেন; শরীর সুস্থ রাখতে শোওয়ার আগে ঈষদুষ্ণ জল খাওয়া খুব প্রয়োজন?

ওজন কমায় গরম জল: গরম জল শরীরের বিপাক ক্রিয়া; খুব ভালভাবে সম্পন্ন করে। যার ফলে বাড়তি মেদ কমবে। তবে আরো বেশি কাজ দেবে; যদি সকালে খালি পেটে গরম জলের সাথে লেবু মিশিয়ে পান করেন। এটা বডি ফ্যাট ভাঙতে সাহায্য করবে।

ঠাণ্ডা লাগা সারায়: ঠাণ্ডা লাগা; কফ জমে যাওয়া এবং গলা ব্যাথায়; গরম জলের খুব কার্যকর ভূমিকা রাখে। এটা কফ তরল করে; বের করে দেয়। গলা ব্যথা কমায়। এছাড়া নাসারন্দ্রের পথ পরিষ্কার রাখে।

মোবাইল কম্পিউটার দেখে চোখ জ্বলছে, এখনই জানুন কিভাবে চোখ ঠিক রাখবেন

রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রেখে নার্ভতন্ত্র সক্রিয় রাখে: গরম জল খাওয়ার আরেকটি উপকারিতা হল; এটা রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখে। ফলে পেশী ও স্নায়ু সক্রিয় থাকে। পাশাপাশি বাড়তি চর্বি ভেঙ্গে ফেলায় এগুলো যথেষ্ট উন্নত হয়।

হজম ভাল হয় : খাবার খাওয়ার পরে ঠাণ্ডা জল খেলে খাদ্যের সাথে থাকা চর্বিগুলো জমে যায়৷ এতে পাকস্থলীর গায়ে চর্বির স্তর জমতে থাকে। যা শেষ পর্যন্ত ক্যান্সারে রূপান্তরিত হয়। কিন্তু গরম জল তার উলটো করে। এটা চর্বি ভেঙ্গে তা হজম বা নিঃসরণে সহায়তা করে। ফলে হজম প্রক্রিয়া ভাল হয়।

শরীরের বর্জ্য বের করে দেয় : গরম জল পান করলে শরীরের তাপমাত্রা বাড়তে শুরু করে। ফলে ঘাম ঝরে৷ ঘামের সাথেই শরীরের অনেক ধরনের বর্জ্য বের হয়ে যাবে। এতে শরীর সুস্থ থাকে৷

অকাল বার্ধক্য ঠেকায়: শরীরের বর্জ্য বের হতে না পারলে ত্বকের কোষ নষ্ট হয়। ফলে অকালে বয়সের ছাপ পড়ে। গরম জল এই নষ্ট কোষগুলোকে ঠিক করে ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা বাড়ায়।

চুলের স্বাস্থ্য এবং জীবনীশক্তি: গরম জল চুলের গোড়ায় থাকা স্নায়ু কার্যকর করে চুল শক্ত করে। ফলে চুল নরম ও উজ্জ্বল থাকে। এটি ফিরে পায় স্বাভাবিক জীবনীশক্তি।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন