শিক্ষামন্ত্রীর বেফাঁস মন্তব্য, প্রতিবাদে বাংলার প্রাথমিক শিক্ষকরা

292
শিক্ষামন্ত্রীর বেফাঁস মন্তব্য, প্রতিবাদে বাংলার প্রাথমিক শিক্ষকরা/The News বাংলা
শিক্ষামন্ত্রীর বেফাঁস মন্তব্য, প্রতিবাদে বাংলার প্রাথমিক শিক্ষকরা/The News বাংলা

শিক্ষামন্ত্রীর বেফাঁস মন্তব্য; এবার প্রতিবাদে বাংলার প্রাথমিক শিক্ষকরা। রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী হয়ে; শেষ পর্যন্ত শিক্ষকদের অপমান! রাজ্যের বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে যোগ্য জবাব দিতে গিয়ে; পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন; “ওর একটা প্রাইমারি টিচার হওয়ারও যোগ্যতা নেই”। রাজ্যে মন্ত্রীর ‘অযোগ্যতা’ বোঝাতে; শিক্ষা ব্যবস্থার ভিতকে এইভাবে অপমান করা কতটা ঠিক; তা একমাত্র জানাতে পারেন শিক্ষামন্ত্রীই। এই বক্তব্যের পরই; প্রতিক্রিয়া দেখাতে শুরু করেছেন রাজ্যের প্রাইমারি শিক্ষকরা। স্বাভাবিকভাবেই তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন তাঁরা; শিক্ষামন্ত্রীর এই মন্তব্যে।

মুকুল রায়ের শিক্ষাগত যোগ্যতা বোঝাতে গিয়েই; এই মন্তব্য করেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তার কোথায় এটাই স্পষ্ট যে; নূন্যতম যোগ্যতা থাকলেই যে কেউ প্রাথমিক শিক্ষক হতে পারেন। কিন্তু কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুকুলের সেই যোগ্যতাও নেই। আর এতেই চটেছেন; বাংলার প্রাথমিক শিক্ষকরা।

আরও পড়ুনঃ অমিত শাহের হাত ধরে বিজেপিতে গিয়ে সব্যসাচী দত্ত প্রমাণ করবেন, এতদিন তৃণমূলেই ছিলেন

সোশ্যাল মিডিয়াতে সমালোচনার ঝড় উঠেছে ইতিমধ্যেই। এক শিক্ষাকর্মী সরাসরি খোলা চিঠি লিখে প্রতিবাদ করছেন। তিনি লিখেছেন; “পার্থবাবু, প্রাইমারি টিচার হওয়া কিন্তু বেশ কঠিন কাজ । প্রাইমারি টিচাররা মানুষ গড়ার আসল কারিগর। কাঠামো একমেটে বা দোমেটে করে তারাই। অনেক যোগ্যতা লাগে, অনেক কিছু জানতে হয় আর প্রাইমারি টিচারদের হাত ধরেই সবাই উঁচু ক্লাসের চৌকাঠে পৌঁছায়”।

আরও পড়ুনঃ মুসলিমদের কিডনি লিভার হার্ট কেটে নিচ্ছে বন্ধু চীন, কেন চুপ ইমরান ও মালালা

তিনি পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বক্তব্য উল্লেখ করে বলেন; “আপনার বক্তব্যের টোন শুনে মনে হচ্ছে যাদের কোন যোগ্যতা নেই তারাই প্রাইমারী টিচার হয়”। রাজ্যের প্রাইমারী শিক্ষকদের মর্যাদা নিয়ে; খোদ শিক্ষামন্ত্রী কতটা উদাসীন তা ওই চিঠিতে দেখা যায়।

আরও পড়ুনঃ তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগ দিয়েও, নারদা কান্ডে রেহাই নেই মুকুলের

সম্প্রতিকালে কলকাতায় বেশ কিছু প্রাইমারী শিক্ষকরা অনশনে বসেন; নিজেদের বেতন বৃদ্ধির দাবীতে। তখনই শিক্ষামন্ত্রীর শিক্ষকদের প্রতি উদাসীনতা দেখতে পায় রাজ্যবাসী। বেশ কয়েকদিন ধরে চলা ওই আন্দোলনে অসুস্থ হয়ে যায় বেশ কিছু শিক্ষক।

অন্যদিকে; শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেছেন; তিনি মোটেও এই ধরনের কোন মন্তব্য করেনি। সংবাদমাধ্যমে তার বক্তব্য বিকৃত করে প্রচার করা হচ্ছে। এরফলে একটা ভুল বোঝা-বুঝি তৈরি হচ্ছে বলে জানান পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন