স্কুলেও জাতপাত, হাতে রঙিন রিস্টব্যান্ড দেখে আলাদা করা যাবে উঁচু ও নিচু জাতের ছাত্রছাত্রী

4634
স্কুলেও জাত পাত, হাতে রঙিন রিস্ট ব্যান্ড দেখে বোঝা যাবে ধর্ম/The News বাংলা
স্কুলেও জাত পাত, হাতে রঙিন রিস্ট ব্যান্ড দেখে বোঝা যাবে ধর্ম/The News বাংলা

একদিকে চাঁদে পা রাখছে বিজ্ঞানীরা; অন্যদিকে জাতের পার্থক্য বোঝাতে, আলাদা আলাদা রঙের রিস্ট ব্যান্ড পরে; স্কুলে আসছে ছোট ছোট শিশুরা। আর এই প্রথাকে সমর্থন জানাচ্ছেন; খোদ শিক্ষামন্ত্রী। এমনটাই ঘটে চলেছে তামিলনাড়ুতে। এই প্রথাকে পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছেন; তামিলনাড়ুর শিক্ষামন্ত্রী কেএ সেঙ্গোত্তাইয়ান। উঁচু জাত নাকি নীচু জাত তা বোঝাতেই; এই চালু হয় অনেক স্কুলে। দায় এড়িয়ে গিয়ে; ঘটনাটিকে ‘বিচ্ছিন্ন ঘটনা’ বলে দাবী সরকারের।

প্রথার কথা জানাজানি হওয়াতে; দেশজুড়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। তামিলনাড় শিক্ষা দপ্তরের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা জানিয়েছিলেন; যে স্কুলগুলিতে এই ঘটনা ঘটেছে; তাদের খুঁজে বের করা হবে। বৈষম্যের কালো বিষ সমাজে ছড়ানোর অভিযোগে; তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সেই অনুযায়ী কাজ এগোচ্ছিল।

আরও পড়ুনঃ পাকিস্তানে সেনা অভ্যুত্থানের আশঙ্কা, ইমরানকে পুতুল বানিয়েছে সেনাপ্রধান

কিন্তু তাঁদের এই উদ্যোগে; রীতিমতো জল ঢেলে দিলেন খোদ রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী। আধিকারিকদের পাশে থেকে; এই ঘটনার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ না নিয়ে; উলটে এই প্রথাকেই সমর্থন জানান তিনি। ঘটনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন; “যেমন চলছিল তেমনই চলবে। কারও বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হবে না। আমাকে না জানিয়েই এই প্রথা বন্ধ করার চেষ্টা হয়েছিল। কিন্তু আমি বিষয়টি জানতে পেরে; পদক্ষেপ নিয়েছি। পড়ুয়ারা যেমন রঙিন রিস্ট ব্যান্ড পরে স্কুল আসছিল; তেমনই আসবে”।

২০১৮ সালের একটি সার্ভে থেকে জানা যায়; তামিলনাড়ুর কিছু স্কুলে জাত অনুযায়ী পড়ুয়াদের লাল; হলুদ; গেরুয়া কিংবা সবুজ রিস্ট ব্যান্ড পড়ে আসতে হচ্ছে। এমনকী তারা উঁচু না নিচু জাতের তা বোঝাতে নির্দিষ্ট রঙের আংটি ও কপালে তিলক কাটতে হচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ গল্প হলেও সত্যি, পোস্ত ভাত খেতেও বাঙালি এবার প্রধানমন্ত্রী মোদীর দারস্থ

আবার কয়েকটা স্কুলের পোশাকের নিচে; নিজেদের জাতের নেতার ছবি দেওয়া গেঞ্জি পড়ে আসতে হয়। এই ‘জাতের বৈষম্য’ অঙ্গনওয়াড়ি থেকেই চালু করা হয়েছে স্কুলগুলিতে। বিশেষত দলিতদের আরও বেশি অত্যাচার সহ্য করতে হচ্ছে বলে জানা যাচ্ছে। জাতের তারতম্যের জন্য বিশেষ সুবিধাও পায় উঁচু জাতের শিশুরা।

বর্তমানে বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক শুরু হলেও একটুও চিন্তিত নয় তামিলনাড়ু সরকার। কিছু সমাজকর্মী প্রতিবাদ করার চেষ্টা করলেও অদ্ভুত ভাবে চুপ রয়েছে সরকার বিরোধী সব দলগুলি।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন