পঞ্চম দফার ভোটে নির্বাচন কমিশনের চিন্তার ও মাথাব্যাথার কারণ বাংলার কোন লোকসভা

559
পঞ্চম দফার ভোটে নির্বাচন কমিশনের চিন্তার ও মাথাব্যাথার কারণ বাংলার কোন লোকসভা/The News বাংলা
পঞ্চম দফার ভোটে নির্বাচন কমিশনের চিন্তার ও মাথাব্যাথার কারণ বাংলার কোন লোকসভা/The News বাংলা

বিছিন্ন কিছু ঘটনা ও চতুর্থ দফার ভোটে এক ভোটারের মৃত্যু বাদ দিলে; মোটের উপর বাংলায় ভোট শান্তিপূর্ণ হয়েছে বলেই মনে করে রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী দফতর। তবে পঞ্চম দফায় এসে; নির্বাচন কমিশনের মুখে দুশ্চিন্তার ছাপ। সৌজন্য ব্যারাকপুর লোকসভা কেন্দ্র।

ব্যারাকপুরের ভোট নিয়ে কমিশনের কপালে ভাঁজ। একের পর এক ঘটনা যেভাবে ঘটে চলেছে; তার পরিপ্রেক্ষিতেই রীতিমতো বড় চিন্তার ভাঁজ পড়েছে নির্বাচন কমিশনের কপালে। দুদিন আগেই এলাকায় হয়ে গিয়েছে একটি খুন।

প্রতিদিন জগদ্দল; ভাটপাড়া; কাকিনারা; নৈহাটি; ব্যারাকপুর; সব জায়গাতেই চলছে তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে সংঘর্ষ। অর্জুন সিং অনুগামী ও তৃণমূল সমর্থকদের মধ্যে প্রতিদিন চলছে রাজনৈতিক সংঘর্ষ।

আরও পড়ুনঃ মাওবাদী দমনে ব্যর্থ মোদী, মেদিনীপুরের সভা থেকে তোপ মুখ্যমন্ত্রীর

এর মাঝে আবার মদন মিত্রকে ভাটপাড়া বিধানসভা উপ নির্বাচনে দাঁড় করিয়ে; অর্জুনকে আরও লড়াইয়ে ফেলেছেন মমতা। মদন মিত্র ভাটপাড়ায় প্রচার শুরু করার পর; এই লড়াই আরও বেড়েছে। এবার লড়াইটা মদন মিত্র বনাম অর্জুন সিং হয়ে দাঁড়িয়েছে; কারণ ভাটপাড়া বিধানসভা উপ নির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী অর্জুন পুত্র পবন সিং।

তারপর যেভাবে শাসক-বিরোধী প্রচারে পারদ চড়ছে; তাতে করে কিভাবে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভোট করানো যায়; এই ব্যারাকপুরে তা নিয়ে নির্বাচন কমিশন দফায় দফায় বৈঠক করছে প্রতিদিন। আগামী ৬ই মে পঞ্চম দফায় ব্যারাকপুরে নির্বাচন।

একদিকে অতীতের ঘটনা; অন্যদিকে বর্তমান পরিস্থিতি। সব মিলিয়ে রীতিমতো টানটান এক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। এখন দেখার বিষয় এই উত্তেজনার পারদকে স্বাভাবিক করে কমিশন কতটা তৎপরতার সঙ্গে সুষ্ঠ; অবাধ ও শান্তিপূর্ণ ভোট করাতে পারে।

আরও পড়ুনঃ মহারাষ্ট্র ও ছত্তিসগড়ের মত ভোটে মাওবাদী হামলার আশঙ্কা বাংলায়

তবে কমিশন সূত্রের খবর; বুধবার গভীর রাত পর্যন্ত এখনও সেই অর্থে কোনো সমাধান করতে পারেনি কমিশন। সব বুথে কেবলমাত্র কেন্দ্রীয় বাহিনীই থাকবে তা কিন্তু নয়; কমিশন সূত্রে খবর ব্যারাকপুরের ভোটকে সম্পূর্ণ কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে মুড়ে ফেলতে চলেছে নির্বাচন কমিশন।

সেক্ষেত্রে শুধু বুথ নয়; গোটা ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলকে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে মুড়ে দিয়ে ভোট করাতে চাইছে নির্বাচন কমিশন। তাই অপেক্ষা এখন শুধু সময়ের। তারপরই কমিশনের পাশফেল সকলের সামনে উঠে আসবে; আগামী ৬ মে তারিখে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন