অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহার করে আপনিও কি এই রোগে আক্রান্ত

9434
মোবাইল ফোন ব্যাবহার করে অজান্তে আপনিও এই রোগে আক্রান্ত/The News বাংলা
মোবাইল ফোন ব্যাবহার করে অজান্তে আপনিও এই রোগে আক্রান্ত/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

মোবাইল ফোনের অতিরিক্ত ব্যবহারে যে রোগ গুলো হচ্ছে; তার মধ্যে একটি হল নমোফোবিয়া। মোবাইল ফোন যেকোনো সময় হাতছাড়া হওয়ার ভয়ে সারাদিন ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে থাকার লক্ষণ দেখা যায় এই রোগে। স্মার্টফোনটি কিছুক্ষণ ব্যবহার করতে না পারলেই; মনে অস্বস্তিকর অবস্থার সৃষ্টি হয়। স্মার্টফোন বেশ কিছুক্ষণ ব্যবহার না করার কারণে যে অস্বস্তি বা ভীতি তাকে বলা হয় নমোফোবিয়া।

পারকিনসন রোগ হল; এক ধরনের স্নায়বিক রোগ। মোবাইল ফোনের মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহারের ফলে; এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। পারকিনসন রোগ মস্তিষ্কের এমন এক অবস্থা; যাতে হাতে ও পায়ে কাঁপুনি হয়। এই রোগের লক্ষণ দুর্বলতা; বিষাদগ্রস্ততা; ভাবলেশহীন অভিব্যক্তি ও বিভ্রান্তি এবং স্মৃতিশক্তির বিলোপ ইত্যাদি।

কি ভাবে যত্ন নেবেন নিজের প্রিয় ল্যাপটপের

পারকিনসন রোগ থেকে মুক্তি পেতে হলে; বিশ্রাম নিন সময় মত; কেননা চাপ এবং অবসাদ; রোগের উপসর্গগুলোকে আরও খারাপ দিকে নিয়ে যেতে পারে। মোবাইল ফোন প্রয়োজনের অতিরিক্ত ব্যবহার করলে; আমাদের মধ্যে চাপ ও অবসাদ তৈরি হয়।

ব্রেন টিউমার হচ্ছে এমন অবস্থা যখন মানুষের মস্তিষ্কে অস্বাভাবিক কোষ তৈরি হতে থাকে; এই টিউমার দুধরণের হয়। একটি ম্যালিগন্যান্ট বা ক্যান্সার তৈরিকারী টিউমার। অন্যটি ব্রেইন টিউমার। মোবাইল থেকে বেরনো রেডিও-ফ্রিকোয়েন্সির ফলে ব্রেন টিউমার হওয়ার সম্ভাবনা অনেকখানি বেড়ে যায়। ফোনের ব্যবহার বাড়ার সাথে সাথে ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার হারও বেড়েছে।

৫৬ জন মানুষকে নিয়ে পৃথিবীর আশ্চর্যতম পিটকার্ন দ্বীপের গল্প

ইনসমনিয়া শারীরিকভাবে সুস্থ থাকতে হলে একজন মানুষের প্রতিদিন ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা ঘুমের প্রয়োজন হয়। কিন্তু মানুষের এই ঘুমের সময়টা যদি বৈদ্যুতিক যন্ত্রের ব্যবহার দখল করে নেয় তাহলে ঘুমের সমস্যা দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা প্রবল হয়ে ওঠে। ইনসমনিয়া এমনই একটি সমস্যা। ইনসমনিয়া বা স্লিপিং ডিসঅর্ডার বলতে অনিদ্রা বা স্বল্প নিদ্রাকে বোঝায়। এর ফলে মানুষের শরীরে ঘুমের চাহিদা অপূর্ণ থেকে যায়।

যোগাযোগ মাধ্যমের সর্বাধুনিক সহজ প্রযুক্তি হচ্ছে মোবাইল ফোন। এর বিকল্প এখনও আবিষ্কৃত হয়নি। বিজ্ঞানের এই আবিষ্কার এড়িয়ে চলবার উপায় নেই। তাই এর ব্যবহার অনিবার্য। তবে অপব্যবহার যেন না হয় সেদিকে নজর দেয়া খুব জরুরি। বিনা প্রয়োজনের এর অতিরিক্ত ব্যবহার পরিহার করা বুদ্ধিমানের কাজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন