প্রবাসী মুসলিমরা স্বাগত জানালেন মোদীকে, রাগে ফেটে পড়ল পাকিস্তান

1071
প্রবাসী মুসলিমরা স্বাগত জানালেন মোদীকে, রাগে ফেটে পড়ল পাকিস্তান/The News বাংলা
প্রবাসী মুসলিমরা স্বাগত জানালেন মোদীকে, রাগে ফেটে পড়ল পাকিস্তান/The News বাংলা

বৃহস্পতিবার দুদিনের ফ্রান্স সফরে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্যারিসের চার্লস ডি-গল বিমানবন্দরে; মোদীকে স্বাগত জানাতে উপস্থিত ছিলেন প্রবাসী ভারতীয়রা। বিমান বন্দরে গুজরাটের প্রবাসী মুসলিমরা প্রধানমন্ত্রীকে ভারতের জাতীয় পতাকা হাতে স্বাগত জানাতে উপস্থিত ছিলেন। ওনারা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান; “ভারত মাতা কি জয়” ধ্বনি দিয়ে।

প্রবাসী ভারতীয়দের থেকে উষ্ণ অভ্যর্থনা পেয়ে অভিভূত হয়ে যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বিমান বন্দরের সেই ভিডিওটি; প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অফিশিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর এই ভিডিও দেখে আবারও কুরুচিকর মন্তব্য শুরু করে পাকিস্তান।

আরও পড়ুনঃ জাতীয় কবাডি খেলোয়াড়ের ভবিষ্যৎ অন্ধকার করে দেওয়ার হুমকি মমতা ঘনিষ্ঠের

প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় থেকে প্রকাশিত ভিডিওটিতে লেখা ছিল; “উষ্ণ অভ্যর্থনা; উষ্ণ কথাবার্তা। ফ্রান্সে থাকা ভারতীয়রা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে স্বাগত জানাচ্ছে সেটার একটি দৃশ্য”। পাকিস্তানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী চৌধুরী ফওয়াদ হুসেন এই ভিডিও দেখে নিজের রাগ ও হতাশা ছেপে রাখতে পারেননি।

ফওয়াদ হুসেন এই ভিডিও শেয়ার করে প্রশ্ন তোলেন; ‘এই ড্রামা করার জন্য কত টাকা লেগেছে’? এরপর সোশ্যাল মিডিয়ায় পাকিস্তানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী চৌধুরী ফওয়াদ হুসেনকে নিয়ে ট্রল শুরু হয়ে যায়।

আরও পড়ুনঃ রাজ্যে রেড অ্যালার্ট, ঢুকে পড়েছে ৬ লস্কর ই তৈবা সদস্য

প্রণব মহাজন নামের এক ব্যাক্তি লেখেন; “একজন ব্যাক্তিকে গোটা বিশ্ব সেইভাবেই দেখে; যেটা তার নিজের চরিত্র। আর আপনারা গোটা দুনিয়ায় সেটাই খোঁজেন; যেটা আপনাদের চরিত্রে আছে”। এর একজন লেখেন; “টাকা পয়সার কথা জিগেস করে কি লাভ; ওটা তো আপনাদের দেশে নেই”।

আরও পড়ুনঃ গুমনামি বাবাই কি নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু, জানাচ্ছে ডিএনএ রিপোর্ট

নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠকের পরে; ফরাসি প্রেসিডেন্ট মাঁকর বলেন; প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁকে জম্মু ও কাশ্মীরের বিষয়ে ভারতের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন। প্রেসিডেন্ট মাঁকর তাঁকে বলেছেন; এই বিষয়ে ভারত এবং পাকিস্তানকেই একটা সমাধান সূত্র খুঁজে বের করতে হবে।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট মাঁকর আরও বলেন; কাশ্মীর প্রসঙ্গে কোনও তৃতীয় পক্ষের নাক গলানো বা হিংসায় উস্কানি দেওয়া উচিত নয়। প্রেসিডেন্ট মাঁকর মনে করেন; কাশ্মীর অঞ্চলে শান্তি বজায় রাখা খুবই প্রয়োজন এবং মানবাধিকার রক্ষা করাও প্রয়োজন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন