জাল সিবিআই অফিসার, ফিল্মের অক্ষয়কুমার-কেও টেক্কা দিল বাংলার শুভদীপ

6876
জাল সিবিআই অফিসার, ফিল্মের অক্ষয়কুমার-কেও টেক্কা দিল বাংলার শুভদীপ
জাল সিবিআই অফিসার, ফিল্মের অক্ষয়কুমার-কেও টেক্কা দিল বাংলার শুভদীপ

বাংলায় এবার জাল সিবিআই অফিসার; স্বামীর কীর্তিকলাপ পর্দাফাঁস করলেন প্রতারিত স্ত্রী। এবার ফেক সিবিআই অফিসার; যার কীর্তিকলাপে হতবাক সবাই। স্পেশাল ২৬ ফিল্মের অক্ষয়কুমার-কেও; বলে বলে টেক্কা দিল বাংলার শুভদীপ। দিল্লি থেকে পাকড়াও; হাওড়ার জগাছার ভুয়ো সিবিআই অফিসার। রাজধানীর একটি পাঁচতারা হোটেল থেকে; অভিযুক্ত শুভদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সরকারি চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নাম করে; লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে এই জালিয়াত শুভদীপের বিরুদ্ধে।

ভুয়ো IAS-এর পর; ভুয়ো CBI অফিসার। দেবাঞ্জন দেব, সনাতন রায়চৌধুরীর পর; এবার প্রকাশ্যে বাংলার আরও এক গুণধরের কীর্তি। হাওড়ার জগাছার বাসিন্দা শুভদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়; সেজেছিলেন ফেক সিবিআই অফিসার। অভিযোগ, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার স্পেশাল ক্রাইম ব্রাঞ্চের অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর পরিচয় দিয়ে; বিভিন্ন প্রতারণা করেছে সে। সরকারি চাকরি দেওয়ার নাম করে; লক্ষ লক্ষ টাকা তুলেছে। এমনকী জাল অফিসারের পরিচয় দিয়ে; বিয়েও করেছিল। নিজের স্ত্রীই ফাঁস করে দিল; এই জালিয়াতের নানান কর্মকাণ্ড।

বিবাহবিচ্ছেদের মামলা চলার মধ্যেই, স্বামীর এই কীর্তিকলাপের পর্দাফাঁস; করেছেন তাঁর স্ত্রী। তিনি বলেছেন, “শুভদীপ বলেছিল, ও সিবিআই-এর অ্যাসিস্ট্যান্ড ডিরেক্টর; বাবা আইবি-তে আছে। কিন্তু ওসব কিছুই নয়। বিয়ের পর জানতে চাইলে বলে; ইউপিএসসি ২০১৭ দিয়ে চাকরি পেয়েছে। নিজে ও বাবাকেও নীলবাতি লাগানো গাড়িতে; নিয়ে যেত সব জায়গায়। নিজেই ল্যাপটপে পে স্লিপ তৈরি করত; সেটা দেখে নিয়েছিলাম। তারপরেই সব বুঝতে পারি”।

রাতেই দিল্লি পৌঁছায়, হাওড়ার জগাছা থানার পুলিশ; ও হাওড়া সিটি পুলিশের গোয়েন্দাদের একটি বিশেষ দল। এরপর ভুয়ো সিবিআই অফিসারের মোবাইল ফোনের, টাওয়ার লোকেশন ট্র্যাক করে; তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। জানা গেছে, সোমবারই ধৃতকে দিল্লির আদালতে তুলে; তাঁকে ট্রানজিট রিমান্ডে নিয়ে হাওড়ায় আনা হবে। সিবিআই অফিসার পরিচয় দিয়ে, বিভিন্ন জায়গায় অভিযান থেকে শুরু করে; চাকরির ইন্টারভিউ নেওয়া; ফিল্মের অক্ষয়কুমার যেভাবে কীর্তিকলাপ করেছিলেন; তাকে হেলায় হারিয়েছেন হাওড়ার জগাছার বাসিন্দা ২৬ বছরের শুভদীপ।

তার বিরুদ্ধে সিবিআই অফিসার, সেনাকর্মী, রেলের ভিজিল্যান্স অফিসার পরিচয় দিয়ে; কেন্দ্রীয় সংস্থায় চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। পাশাপাশি, নীলবাতি লাগানো গাড়িতে যাতায়াতই শুধু নয়; সিবিআই অফিসার পরিচয় দিয়ে বিয়ে করার মত; মারাত্মক অভিযোগও উঠেছে শুভদীপের বিরুদ্ধে।

কখনও দিল্লির নর্থ ব্লকের দফতরের সামনে; কখনও সেনাবাহিনীর সঙ্গে; আবার কখনও রাইফেল হাতে; তো কখনও গুজরাত পুলিশের লোগো দেওয়া জামা পরে; অভিযুক্ত শুভদীপের এরকম নানা ছবি সামনে এসেছে। কিন্তু তাঁর স্ত্রীর অভিযোগ; এসবই ভুয়ো। প্রতারণার অভিযোগ; স্বীকার করে নিয়েছে শুভদীপ। সে বলেছে, “বিহারের এক বাসিন্দা লালনের পাল্লায় পড়ে; একাজ করেছিলাম। লালনই আসল লোক; ওই প্রতারণা কাণ্ড চালায়”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন