মানুষের উপস্থিত বুদ্ধিতে, বাংলায় এবার ধরা পড়ল পুরসভার ভুয়ো ফুড ইন্সপেক্টর

7394
মানুষের উপস্থিত বুদ্ধিতে, বাংলায় এবার ধরা পড়ল পুরসভার ভুয়ো ফুড ইন্সপেক্টর
মানুষের উপস্থিত বুদ্ধিতে, বাংলায় এবার ধরা পড়ল পুরসভার ভুয়ো ফুড ইন্সপেক্টর

ঘটনার শেষ নেই। তবে মানুষের উপস্থিত বুদ্ধিতে, বাংলায় এবার ধরা পড়ল; কলকাতা পুরসভার ভুয়ো ফুড ইন্সপেক্টর। কসবায় ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ডের খলনায়ক, ভুয়ো আইএএস দেবাঞ্জন দেবের পর থেকে; রাজ্যে একের এপর এক ভুয়ো আমলা আর ভুয়ো আধিকারিকের হদিশ মিলেছে। ভুয়ো আইএএস; সিআইডি; ভুয়ো সিবিআই অফিসার; ভুয়ো মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যান; পুলিশ অফিসার; রেল কর্তা; সেনা অফিসার; ভুয়ো ডাক্তারের পর এবার ফের ভুয়ো পুর-আধিকারিক। দেবাঞ্জন দেব-এর পর স্বপন সমাদ্দার; কলকাতা পুরসভার ফেক অফিসার।

কলকাতা পুরসভার ফুড ইন্সপেক্টর পরিচয় দিয়ে; প্রতারণার অভিযোগে এবার পাকড়াও এক ব্যক্তি। বৃহস্পতিবার তাকে গ্রেফতার করেছে; ভবানীপুর থানার পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, ওই ব্যাক্তির নাম; স্বপন সমাদ্দার। পুলিশ সূত্রে খবর, বেশ কিছুদিন ধরে; যদুবাবুর বাজারে ব্যবসায়ীদের লাইসেন্স পরীক্ষা করছিলেন স্বপন। দেবাঞ্জন কাণ্ডের পর সতর্ক থাকা, ব্যবসায়ীদের সন্দেহ হলে; এদিন তাঁকে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। উত্তরে সন্তুষ্ট না হলে; তাকে গ্রেফতার করা হয়।

আরও পড়ুন; ‘মুসলিম কন্যা’, শিক্ষায় ধর্মীয় সুড়সুড়ি সংসদ সভাপতির, জোর বিতর্ক

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, দীর্ঘদিন ধরে ব্যবসায়ীরা; নাজেহাল ছিল তাঁর দৌরাত্ম্যে। সমস্ত দোকানে ট্রেড লাইসেন্স, করিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে; টাকা নিতেন স্বপন। লাইসেন্স না বানালে; জরিমানা করার ভয়ও দেখাতেন। বৃহস্পতিবারও সেই উদ্দেশ্য নিয়ে; বাজারে ঢোকেন। কিন্তু স্থানীয় ব্যবসায়ীরা তাঁর অত্যাচারে, এতটাই বিরক্ত ছিলেন যে; পুরসভার খাদ্য বিভাগের আধিকারিকদের বিষয়টি জানিয়ে রাখেন। স্বপন সমাদ্দার টাকা তুলতে এলেই; ব্যবসায়ীরাও পাল্টা চেঁচামেচি শুরু করেন।

আরও পড়ুন; ৫০০ র মধ্যে ৪৯৯ পেয়ে বাংলায় উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম মুসলিম কন্যা

গ্রেফতারের পর পুলিশের জানিয়েছে, ধৃতের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে; কলকাতা পুরসভার ভুয়ো রবার স্ট্যাম্প। ধৃতের কাছ থেকে; ভুয়ো ট্রেড লাইসেন্সের ফর্ম পাওয়া গিয়েছে। যেগুলি ১০০ টাকা দিয়ে; তিনি দোকানিদের কাছে বিক্রি করতেন। যে সমস্ত ব্যবসায় ট্রেড লাইসেন্স না হলেও চলে; সেখানে অন্য উপায়ে টাকা তুলতেন বলে স্বপনের বিরুদ্ধে অভিযোগ। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে প্রতারণা সহ; একাধিক ধারায় মামলা রুজু হয়েছে। কলকাতায় এইভাবে কলকাতা পুরসভার, কত ফেক অফিসার ঘুরে বেড়াচ্ছে; সেটাই এখন প্রশ্ন মানুষের।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন