মুসলিম বৃদ্ধকে ‘জয় শ্রী রাম’ বলানোর ফেক ভিডিও ছড়িয়ে দেশের বদনাম, মুসলিম যুবকরাই মারধর করে

3179
মুসলিম বৃদ্ধকে জয় শ্রীরাম বলানোর ভিডিও ফেক, মুসলিম যুবকরাই মারধর করে
মুসলিম বৃদ্ধকে জয় শ্রীরাম বলানোর ভিডিও ফেক, মুসলিম যুবকরাই মারধর করে

মুসলিম বৃদ্ধকে ‘জয় শ্রী রাম’ বলানোর; ফেক ভিডিও ছড়িয়ে দেশের বদনাম। মুসলিম যুবকরাই মারধর করে; ওই বৃদ্ধকে। ভিডিও-তে কোন সাউণ্ড নেই; তবু ভাইরাল হয়ে গেল জোর করে ‘জয় শ্রী রাম’ বলানো হচ্ছে বলে। পরে জানা গেল, বৃদ্ধ একজন মুসলিম জ্যোতিষী। বেশ কিছু মুসলিম যুবককে সে; তাবিজ পরতে দিয়েছিল। তাবিজে কাজ না হওয়ায় ওই মুসলিম যুবকরাই; ওই বৃদ্ধকে মারধর করে তার দাড়ি কেটে নেয়। এদিকে যে ভিডিও করছিল; সে ভিডিও মিউট করে; সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেড়ে দেয়। ভাইরাল ভিডিও-তে দাবি করা হয়; জয় শ্রী রাম বলানোর জন্য; মারধর করে ওই বৃদ্ধকে।

উত্তরপ্ৰদেশের গাজিয়াবাদে, যোগী সরকারকে বদনাম করার; এক বড়সড় ষ’ড়যন্ত্র সামনে এসেছে। দিল্লী ঘেঁষা গাজিয়াবাদে এক মুসলিম বৃদ্ধকে; মারধর করা হয়। সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায়; ব্যাপক ভাইরাল হয়েছে। ভুক্তভোগী সুফি আব্দুল সামাদ অভিযোগ তুলেছেন; তিনি একজন মুসলিম বলেই, তাঁকে মারধর করা হয়েছে। একই সঙ্গে, জয় শ্রী রাম বলার জন্য; জোর করা হয়েছে।

অভিযোগ এও যে, মুসলিম হওয়ার কারণেই তার; দাড়ি কেটে দেওয়া হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় মুসলিম বৃদ্ধের উপর হামলার ভিডিও; গোটা দেশে বেশ ভাইরাল হয়। তবে যে ভিডিও তুলেছিল, সেই ব্যক্তি ভিডিওর অডিও; মিউট করে রেখেছিলেন। এই ভিডিওকে অ’স্ত্র হিসেবে ব্যবহার করে একদল লোক; দেশকে বদনাম করতে নেমে পড়েছে।

আরও পড়ুনঃ গাজিয়াবাদ কাণ্ডে টুইটারের নামেও এফআইআর, আইনি সুরক্ষা তুলে নিল মোদী সরকার

ভিডিওটি ভারত ছাড়িয়ে; পাকিস্থান ও বাংলাদেশেও ভাইরাল হয়েছে। বাংলাদেশের ক’ট্টরপন্থীরা ভিডিওটিকে কাজে লাগিয়ে; হি’ন্দুবাদীদের দোষ-ত্রুটি খুঁজতে লেগে পড়েছে। তবে ভিডিওটির সত্যতা যাচাই হতেই; আসল ষ’ড়যন্ত্র ফাঁস হয়েছে। আসলে মুসলিম বৃদ্ধকে যারা মারধর করেছে; তারা সবাই মুসলিম যুবক। আরিফ, আদিল, মুসাহিদ নামের কিছু যুবক; পারভেজ নামে একজনের বাড়িতে বৃদ্ধকে নিয়ে যায়; এবং মারধর করে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

জানা গেছে, ওই বৃদ্ধ তাবিজ বিক্রির ব্যবসা করেন। বৃদ্ধের তাবিজ পরেও, কোনো সুফল না পেয়ে; আরিফ, আদিল, মুসাহিদ নামের কিছু যুবক এই কাজ করেছে। সমাজবাদী পার্টির এক নেতার উস্কানিতেই, ওই বৃদ্ধ; মিথ্যা অভিযোগ করেছে বলেই জানা গেছে। পুলিশ ফেক ভিডিওর বিরুদ্ধে; কড়া ব্যবস্থা নিচ্ছে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন