গান্ধী জয়ন্তীতে ‘গডসে জিন্দাবাদ’ জয়ধ্বনি, প্রতিবাদে সরব বুদ্ধিজীবীরা ও গান্ধী পরিবার

4313
গান্ধী জয়ন্তীতে ‘গডসে জিন্দাবাদ’ জয়ধ্বনি, প্রতিবাদে সরব বুদ্ধিজীবীরা ও গান্ধী পরিবার
গান্ধী জয়ন্তীতে ‘গডসে জিন্দাবাদ’ জয়ধ্বনি, প্রতিবাদে সরব বুদ্ধিজীবীরা ও গান্ধী পরিবার

গান্ধী জয়ন্তীতে ‘গডসে জিন্দাবাদ’ জয়ধ্বনি দেখে; প্রতিবাদে সরব বুদ্ধিজীবীরা; বেজায় ক্ষুব্ধ বিজেপি সাংসদও। ২ রা অক্টোবর গান্ধী জয়ন্তীর দিনও, মহাত্মা গান্ধীর হত্যাকারী নাথুরাম গডসের নামে; জয়ধ্বনি দিচ্ছে এক শ্রেণির মানুষ। সোশ্যাল মিডিয়ায়; গডসের নামে উঠেছে জয়ধ্বনি। তাই নিয়ে এবার বেজায় ক্ষুব্ধ; বিজেপি সাংসদ বরুণ গান্ধী। শনিবার, মহাত্মার খুনির নামে যাঁরা জয়ধ্বনি দিচ্ছেন; তাঁদের একহাত নিলেন গান্ধী পরিবারের এই সদস্য। জাতির জনক মহাত্মা গান্ধীর জন্মজয়ন্তীতে; ‘গডসে জিন্দাবাদ’ টুইটে ছয়লাপ সোশ্যাল মিডিয়া। জানা গিয়েছে, ১ লাখেরও বেশি মানুষ; গডসে জিন্দাবাদ টুইট করেছেন। এই ঘটনার প্রতিবাদে সরব বুদ্ধিজীবীরা; সরব বরুণ গান্ধী।

ভারতের বুদ্ধিজীবী-দের পাশাপাশি; বিজেপি নেতা বরুণ গান্ধীও কড়া ভাষায় এই ঘটনার নিন্দা করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, যে বা যারা এই কাজ করুক; তারা দেশের মর্যাদাকে ধুলোয় মিশিয়ে দিয়েছেন। নিজের টুইটার হ্যান্ডলে বরুণ গান্ধী লিখেছেন; “ভারতকে এক নতুন উচ্চতায় পৌঁছে দিয়েছেন; জাতির জনক মহাত্মা গান্ধী। তিনিই আমাদের সবার জীবনীশক্তি। যাঁরা নাথুরাম গডসের নামে জয়ধ্বনি দিচ্ছেন; তারা দেশের মান-সম্মানকে ধুলোয় মিশিয়ে দিয়েছেন। এই ঘটনার নিন্দা করার মত; ভাষা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না”।

আরও পড়ুনঃ কার্গিলের পরে এবার লাদাখ, ফের শীতের সুযোগে পাক-চিন হানাদার বাহিনী কি ভারতের পাহাড়ে

বরুণ গান্ধির টুইট; ঝড়ের গতিতে ছড়িয়ে পড়ে। এই টুইট ৩ হাজারবার রিটুইট হয়েছে। ১৫ হাজারের বেশি মানুষ; টুইট লাইক করেছেন। সেই সঙ্গে বুদ্ধিজীবীরা ও নেটিজেনরা নাথুরাম গডসের নামে; জয়ধ্বনি দেওয়ার নিন্দা করেছেন। দেশজুড়ে শনিবার শ্রদ্ধার সঙ্গে পালিত হয়; মহাত্মা গান্ধীর জন্মজয়ন্তী। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ; উপরাষ্ট্রপিত এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু; প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী; কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ; প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং-সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা; জাতির জনকের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

মহাত্মা গান্ধীর জন্মদিনে, বিজেপির শীর্ষ নেতারা ও প্রধানমন্ত্রী; রাষ্ট্রপতি ও অন্যান্য দলের নেতা-নেত্রীরা শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। কিন্তু এক শ্রেণির হিন্দুত্ববাদী ব্যক্তি-সংগঠন; এদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় গডসে জিন্দাবাদ বলে জয়ধ্বনি দিচ্ছেন। গডসেকে নিয়ে জয়ধ্বনি দিচ্ছে; তাও গান্ধী জয়ন্তীর দিন; প্রতিবাদ জানিয়েছেন বুদ্ধিজীবীরাও; রেগে গিয়েছেন বরুণ গান্ধী। ১৯৪৮ সালে ৩০ জানুয়ারি, আরএসএস সদস্য নাথুরাম গডসে; মহাত্মা গান্ধীকে একটি প্রার্থনা সভায় গুলি করে হত্যা করেন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন