রাজ্যপালকে ঢুকতে দেওয়া হল না বিধানসভায়

1172
রাজ্যপালকে ঢুকতে দেওয়া হল না বিধানসভায়/The News বাংলা
রাজ্যপালকে ঢুকতে দেওয়া হল না বিধানসভায়/The News বাংলা

রাজ্য সরকার-রাজ্যপাল সংঘাত অব্যাহত। বিধানসভায় গিয়েও হতাশ হলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। খোলা হল না গেট। রাজ্যপাল বিধানসভা ভবনে পৌঁছতেই; দেখেন বিধাসভা ভবনের ৩ নম্বর গেট বন্ধ। সেখানেই দাঁড়িয়ে থাকেন রাজ্যপাল। এরপর সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে; তীব্র ভাষায় ক্ষোভ উগরে দেন। বললেন; অধিবেশন মুলতুবি মানেই; বিধানসভা ভবন বন্ধ থাকবে তা নয়। রাজনীতি করা হচ্ছে বলে আরও একবার রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে আঙুল তোলেন তিনি।

তিন নম্বর গেটই তার ঢোকার জন্য বরাদ্দ ছিল। কিন্তু গেট বন্ধ থাকায় সাধারণের গেট দিয়েই; তিনি বিধানসভার ভেতরে ঢোকেন। রাজ্যপাল প্রতিক্রিয়ায় জানান; গোটা বিষয়টি লজ্জাজনক। এটি গণতন্ত্রের লজ্জা। নজিরবিহীন এমন ঘটনা আগে ঘটেনি। এমনকি আগের থেকে বিধানসভার স্পিকারকে জানানো সত্ত্বেও; গেট খোলা হয়নি। রাজপাল আরও বলেন; সাংবিধানিক প্রধানের সঙ্গে এমন আচরণ নির্লজ্জতার নজির। গেট বন্ধ থাকা উচিত ছিল না।

আরও পড়ুন বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছলেন রাজ্যপাল, গায়েব উপাচার্য-সহ উপাচার্য

বৃহস্পতিবার রাজপালের আসার খবর পেয়ে বিধানসভায় অ্যাডভাইসারি কমিটির বৈঠক বাতিল করা হয়। তৃণমূল আগেই রাজ্যপালকে বয়কট করে বিধানসভা মুলতুবি করেছে। রাজভবন-রাজ্যপাল সংঘাতের আগুনে ঘি পড়ে মঙ্গলবার। বিধানসভা থেকে বেশ কয়েকটি সংশোধনী বিল রাজভবনে পাঠানো হয়। কিন্তু রাজ্যপাল সেই বিলে সম্মতি দেননি বলে জানা গিয়েছে। যে কারণে; বিধানসভার অধিবেশন স্থগিত হয়ে যায়। রাজ্যপাল সংঘাতের জল্পনা উড়িয়ে বলেন; বিলের ব্যপারে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে; প্রতিটি দফতরের সঙ্গে কথা বলতে হবে।

এদিন উল্টে সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে রাজ্যপাল বলেন; রাজ্যের তরফেই সঠিক সময়ে বিল পাঠানো হয়নি। এরপর থেকেই রাজ্যপালের বিরুদ্ধে খড়গহস্ত হয়; রাজ্যের মন্ত্রীরা। নিন্দার ঝড় ওঠে। থেমে থাকেননি; জগদীর ধনখড়ও। ট্যুইটে জবাব দিয়েছেন; নিজ ভঙ্গিতেই। তিনি বলেন; তিনি রাজ্যসরকারের রাবার স্ট্যাম্প নন। তিনি সংবিধান মেনেই; কাজ করছেন। না দেখে তিনি সই করবেন না। বিল পাঠাতে দেরি হলে; তার জন্য দায়ী রাজ্য সরকার; ট্যুইটে লেখেন রাজ্যপাল।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন