চিতায় পরে চিতাভস্ম, হাথরস কাণ্ডে হিন্দু রীতি অনুযায়ী শেষ কাজও করতে দিল না যোগী সরকার

1308
হাথরস কাণ্ড, ৪৮ ঘণ্টা পরেও চিতা থেকে অস্থি নিয়ে বিসর্জন করতে দেওয়া হয়নি পরিবারকে
হাথরস কাণ্ড, ৪৮ ঘণ্টা পরেও চিতা থেকে অস্থি নিয়ে বিসর্জন করতে দেওয়া হয়নি পরিবারকে

চিতায় পরে চিতাভস্ম, হাথরস কাণ্ডে হিন্দু রীতি অনুযায়ী; মৃতার শেষ কাজও করতে দিল না; হিন্দুত্বের ধ্বজাধারী যোগী সরকার। হাথরস কানে নির্যাতিতাকে দাহ করার ৪৮ ঘণ্টা পরেও; সাংবাদিক থেকে বিরোধী নেতা নেত্রীদের; নির্যাতিতার পরিবারের ধারে কাছে ঘেঁসতে দিচ্ছে না উত্তর প্রদেশ পুলিশ। ব্যারিকেড করে ঘিরে রেখেছে গোটা গ্রাম। এসবের মধ্যে, নিভে যাওয়া চিতায় পরে রয়েছে; নির্যাতিতার অস্থি। পরিবারের কাউকেই তা বিসর্জন করার অনুমতি দেওয়া হয়নি; উত্তর প্রদেশ পুলিশ প্রশাসনের তরফে।

আরও পড়ুনঃ কত বড় প্রভাবশালীর ছেলে, হাথরস কাণ্ডে কাদের আড়াল করতে চাইছে যোগী সরকার

নির্যাতিতার মৃত্যুর পর, তড়িঘড়ি তাঁর দেহ; পরিবারের অনুপস্থিতিতে পুড়িয়ে ফেলে পুলিশ। এই ঘটনার পর থেকেই; প্রবল চাপে যোগী প্রশাসন। হাথরসের উচ্চবর্ণের বাসিন্দারা, মহা পঞ্চায়েত ডেকে; গ্রেফতার হওয়া দুষ্কৃতীদের অবিলম্বে মুক্তি দাবি করেছে। তাদের বক্তব্য, পুলিশ যখন বলছে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেনি; কাউকে আটক করে রাখাও চলবে না।

আরও পড়ুনঃ ৭ বছরেও শাস্তি হয় নি বাংলার কামদুনি কাণ্ডে, উত্তরপ্রদেশের হাথরসে প্রতিবাদ তৃণমূলের

এই ঘটনায় বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে, ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন; সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে রাজনীতির নেতা-নেত্রীরা। লোকচক্ষুর আড়ালে নির্যাতিতার মৃতদেহ পুড়িয়ে ফেলার; ৪৮ ঘণ্টা কেটে যাবার পরেও; চিতায় পড়ে রয়েছে নির্যাতিতার অস্থি। পরিবারের কাউকে তা বিসর্জনের সুযোগ দেওয়া হয়নি। চিতার পাশে পরে আছে; কেরোসিনের জার, হাতশুদ্ধির আধখালি বোতল।

হাথরসের ওই গ্রামকে; বিচ্ছিন্ন করে আদতে কী গোপন করতে চাইছে যোগী সরকার? কেন নির্যাতিতার পরিবারকে; বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়েছে? প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে গোটা দেশ। কেন হিন্দু রীতি অনুযায়ী, মৃতার শেষ কাজও করতে দিল না; হিন্দুত্বের ধ্বজাধারী যোগী আদিত্যনাথ সরকার। প্রশ্ন উঠছে দেশ জুড়ে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন