পুজোর উপহার, বাংলাদেশ থেকে বাংলায় এল টনটন ইলিশ

1796
পুজোর উপহার, বাংলাদেশ থেকে বাংলায় এল টনটন ইলিশ

পুজোর উপহার, বাংলাদেশ থেকে বাংলায় এল টনটন ইলিশ। শারদীয় দুর্গা পুজা উপলক্ষ্যে; বাংলাদেশ সরকার ভারত সরকারকে ইলিশ রপ্তানি করল। (বাংলাদেশের বানিজ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনক্রমে) ১৪৫০ মে.টন ইলিশ দেওয়ার প্রতিশ্রুতির অংশ হিসেবে ১৪/০৯/২০২০ তারিখে প্রথম চালানে আটটি ট্রাকে ৪১.৪ মে.টন ইলিশ বেনাপোল হতে পেট্রাপোলে রপ্তানী করা হয়েছে ভারতে।

আরও পড়ুনঃ রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, বিরোধী নেতা-নেত্রী, চিফ অফ ডিফেন্স, গোপন নজরে রেখেছে চিন

আসন্ন দুর্গাপূজা উপলক্ষে শুভেচ্ছা হিসেবে; বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে সোমবার সন্ধ্যায়; ইলিশের প্রথম চালান রপ্তানী হয়েছে ভারতে। প্রথম দিনে দুটি ট্রাকে গেছে; ১২ টন ইলিশ। ইলিশের চালানটির রপ্তানীকারক খুলনার জাহানাবাদ সি ফিশ লিমিটেড। প্রতি কেজি ইলিশের রপ্তানী দর নির্ধারণ করা হয়েছে; ১০ ডলার হিসেবে ৮০০ টাকা। এ দরে রপ্তানী করা প্রতিটি ইলিশের ওজন হবে এক কেজি থেকে ১ কেজি ২০০ গ্রাম।

আরও পড়ুনঃ বিধানসভা ভোটের আগেই পুরোহিতদের ভাতা দেওয়ার কাজ শুরু করছেন মমতা

মত্স্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক ও বেনাপোলের ফিশারিজ কোয়ারেন্টিন অফিসার মাহবুবুর রহমান জানান; বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবার নয়জন রপ্তানীকারককে; মোট ১ হাজার ৪৭৫ টন ইলিশ ভারতে পাঠানোর অনুমতি দিয়েছে। প্রতি কেজি ১০ ডলার দরে মোট ১ লাখ ২০ হাজার ডলার মূল্যের ইলিশ মাছ; ভারতে রপ্তানী করা হবে। এ বছর ভারতে মোট ১ হাজার ৪৭৫ টন ইলিশ মাছ; ভারতে রপ্তানী করা হবে। বেনাপোল কাস্টমস থেকে মাছগুলো ছাড়িয়ে রপ্তানীর দায়িত্বে নিযুক্ত হয়েছে; সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট নিলা এন্টারপ্রাইজ।

আরও পড়ুনঃ ৫ টাকার কাজে ১ টাকা কাটমানি নেয় তৃণমূল, জানিয়ে দিলেন খোদ জেলা সভাপতি

সূত্র জানায়; সোমবার দুপুরে ইলিশের চালান বেনাপোল বন্দরে এসে পৌঁছলে; কাস্টমস ও মত্স্য বিভাগ আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে বিকালে রপ্তানীর অনুমতি প্রদান করেন। পর্যায়ক্রমে মাসজুড়ে বাকি ইলিশ ভারতে যাবে। সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট মহিতুল হক জানান; বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা ভারতের কলকাতায় ইলিশ নিয়ে যাবেন। পরে সেখানকার বাজারে তা বিক্রি করবেন। কলকাতা ছাড়াও এ ইলিশ বিক্রি হবে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন বাজারে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন