বাংলার মন্দানমণি সি বিচে, ভেসে এল বিশাল আকারের একটি তিমি

651
আর বিদেশ যেতে হবে না, বাংলার মন্দানমণি-তেই এল বিশাল আকারের তিমি/The News বাংলা
আর বিদেশ যেতে হবে না, বাংলার মন্দানমণি-তেই এল বিশাল আকারের তিমি/The News বাংলা

বাংলার মন্দানমণি সি বিচে; এল বিশাল আকারের তিমি। বিশালাকায় একটি তিমি ভেসে এল; মন্দানমণি সমূদ্রতটে। সোমবার সকালে তিমি-টি দেখতে পেয়ে ঘটনাস্থলে ভিড় জমান; উৎসুক এলাকাবাসীরা। প্রাথমিকভাবে তিমিটিকে ‘সেয় হোয়েল’ প্রজাতির; বলেই মনে করছেন মৎস্যজীবিরা। তবে এই তিমি-টি মৃত অবস্থায় আসে মন্দানমণি-তে। কিভাবে গভীর সমুদ্রের তিমি; মন্দানমণি-তে এসে পৌঁছাল, সেটাই খতিয়ে দেখছে প্রশাসন।

আরও পড়ুনঃ আমফান দুর্নীতি তদন্তে তৃণমূলের টাস্ক ফোর্সে রয়েছে অভিযুক্তই

বিশালাকায় তিমির খবর যায়; প্রশাসনের কাছেও। এই মাছটিকে কি সংরক্ষণ করা হবে; নাকি একে সমূদ্রের পাড়েই বালি খুঁড়ে কবর দেওয়া হবে; তা এখনও পরিষ্কার নয়। এর আগে ২০১২ সালের ১০ ডিসেম্বর; দিঘা মোহনা থেকে প্রায় ৪০ নটিক্যাল মাইল সমূদ্রের গভীর থেকে; মৃত অবস্থায় ৪৫ ফুট লম্বা ও ১০ ফুট চওড়া এবং ১৮ টন ওজনের একটি তিমি-কে মৎস্যজীবিরা উদ্ধার করেছিল। সেটিও মন্দারমণি উপকূলে আনা হয়েছিল। সেটির দেহাবশেষ উদ্ধার করে রাখা হয়েছিল; দিঘার মেরিন জুওয়লজিক্যাল মিউজিয়ামে।

আরও পড়ুনঃ EXCLUSIVE: তৃণমূল নেতাদের আমফান চুরির টাকা ফেরতের ফর্ম ধরাল রাজ্য সরকার

পরে সেটিকে টেনে; দিঘা মোহনায় এনে তোলা হয়। প্রশান্ত মহাসাগরের গভীরে থাকা; এই ‘সেয় হোয়েল’ তিমি-টি কিন্তু, সাধারণ ভাবে প্রশান্ত মহাসাগরের গভীরে বসবাস করে। তবে কোনওভাবে খাওয়ারের সন্ধানে ঘুরতে ঘুরতে; সেটি বঙ্গোপসাগরে চলে আসে। এরপর কোনও জাহাজের ধাক্কায়; মাছটির মৃত্যু হতে পারে। এবং সেটি মৎস্যজীবিদের জালে এসে আটকে পড়ে। পরে সেটি মন্দানমণি সি বিচে এসে পৌঁছায়। সবটাই খতিয়ে দেখছে বিশেষজ্ঞরা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন