ভারত চিন সীমান্ত উত্তেজনার মধ্যেই, জুলাইয়েই ভারতের হাতে আসছে ৬ টি রাফাল যুদ্ধবিমান

19112
জুলাইয়েই ভারতের হাতে আসছে ৬ টি রাফায়েল যুদ্ধবিমান
জুলাইয়েই ভারতের হাতে আসছে ৬ টি রাফায়েল যুদ্ধবিমান

ভারত চিন সীমান্ত উত্তেজনার মধ্যেই; ভারতীয় বিমান বাহিনীর কাছে খুশির খবর। জুলাইয়েই ভারতের হাতে আসছে; শক্তিশালী যুদ্ধাস্ত্র রাফাল বিমান। লাদাখ সীমান্তে চিনা সেনাবাহিনীর সঙ্গে চলতি সংঘাতের আবহে; যেটা ভারতীয় বায়ুসেনার কাছে দারুণ খবর। কিছুদিন আগেই দুর্নীতির অভিযোগ ঘিরে; ফ্রান্স থেকে, এই রাফাল যুদ্ধবিমান কেনার সিদ্ধান্ত ঘিরে প্রবল শোরগোল হয়েছিল। অবশেষে তার প্রথম ব্যাচের ৬টি জেট বিমান; ২৭ জুলাই নাগাদ ভারতে আসছে। সেগুলি থাকবে হরিয়ানার আম্বালা এয়ারবেসে।

আরও পড়ুনঃ পাহাড় যুদ্ধে চিনকে কচুকাটা করতে, লাদাখে এল ভয়ঙ্কর গোর্খা বাহিনী

ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং-কে; ফ্রান্সের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ফ্লোরেন্স পার্লে জানিয়েছেন; করোনা ভাইরাস অতিমারী সংক্রমণ সত্ত্বেও; নির্ধারিত সূচি মেনেই রাফাল জেট বিমান ডেলিভারি দেওয়া হবে। সেই অনুযায়ী, প্রথম ধাপে আগামী ২৭ জুলাই; ভারতের হাতে আসছে ৬ ‌টি অত্যাধুনিক রাফাল যুদ্ধবিমান। চিনের সঙ্গে সাময়িক উত্তেজনার কারণে; ভারতীয় বিমানবাহিনী এমনিতেই সতর্ক রয়েছে পুরো পরিস্থিতি নিয়ে। তার মধ্যে রাফাল বিমানের ভারতীয় বায়ু সেনায় সংযুক্তিকরণ; নতুন করে ভারতের শক্তি আরও বৃদ্ধি করবে।

আরও পড়ুনঃ লাদাখে চিন সীমান্তে কুইক রিঅ্যাকশন সারফেস টু এয়ার মিসাইল বসাল ভারত

সূত্রের খবর, আম্বালা ঘাঁটিতে; প্রথম ধাপের এই বিমানগুলি রাখা থাকবে। এটি বায়ুসেনার অন্যতম প্রধান; একটি বায়ুসেনা ঘাঁটি। এক সেনা আধিকারিক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন; রাফাল বিমান অবশ্যই ভারতীয় সেনাকে শক্তিশালী করবে; ও শত্রু শক্তিকে একটা বড় বার্তা দেবে। ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে; ৩৬টি রাফাল জেট কেনার বিষয়ে ফ্রান্সের সঙ্গে চুক্তি করে ভারত। এই রাফাল জেটগুলি কিনতে খরচ হবে; ৫৮০০০ কোটি টাকা।

শক্তিশালী অস্ত্র বহনের ক্ষমতা আছে রাফালের। ইউরোপের ক্ষেপণাস্ত্র নির্মাতা এমবিডিএ-র মেটিওর বিয়ন্ড ভিস্যুয়াল রেঞ্জ এয়ার-টু-এয়ার মিসাইল; ও স্ক্যাল্প ক্রুজ মিসাইল; হবে রাফালের অস্ত্র প্যাকেজের মূল শক্তি। মেটিওর হল আকাশপথে এয়ার-টু-এয়ার যুদ্ধে বিপ্লব ঘটিয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে; আনা পরবর্তী প্রজন্মের বিভিআর এয়ার-টু-এয়ার ক্ষেপণাস্ত্র। ব্রিটেন, জার্মানি, ইতালি,ফ্রান্স, স্পেন ও সুইডেনের মতো দেশগুলির সামনে; একই ধরনের বিপদ মোকাবিলায় এই হাতিয়ার বানিয়েছে এমডিবিএ।

আরও পড়ুনঃ লাদাখ সীমান্তে চিনের দিকে তাক করে দাঁড়াল, ভারতের খতরনাক ভীষ্ম ট্যাঙ্ক

ক্ষেপণাস্ত্র সিস্টেম ছাড়াও রাফাল জেট বিমানে থাকবে; ইজরায়েলি হেলমেট ভিত্তিক ডিসপ্লে, রাডার ওয়ার্নিং রিসিভার, লো ব্যান্ড জ্যামার, ১০ ঘন্টার ফ্লাইট ডাটা রেকর্ডিং, ইনফ্রা-রেড সার্চ ও ট্র্যাকিং সিস্টেম সমেত; ভারতের কথা মাথায় রেখে তৈরি বেশ কিছু সুবিধা। নতুন জেট বিমানগুলি ব্যবহারের জন্য; প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো তৈরি রাখা; পাইলটদের প্রশিক্ষণ সমেত যাবতীয় প্রস্তুতি সেরে রেখেছে বায়ুসেনা।

ভারতীয় বায়ুসেনা মনে করছে; ২০২২ সালের মধ্যেই ৩৬টি রাফায়েল ভারতের হাতে চলে আসবে। রাফালের দ্বিতীয় ব্যাচের জেটবিমানগুলিকে নিয়োগ করা হবে; পশ্চিমবঙ্গের হাসিমারা বেসে। দুটি ঘাঁটিতে শেল্টার, হ্যাঙ্গার ও মেনটেন্যান্সের সুবিধার মতো পরিকাঠামো নির্মাণে; প্রায় ৪০০ কোটি টাকা খরচ করেছে বায়ুসেনা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন