পাক জঙ্গিদের নামে, বেছে বেছে আলাদা করে ফের হিন্দুদের মারা হচ্ছে কাশ্মীরে

3065
জঙ্গিদের নামে, বেছে বেছে আলাদা করে ফের হিন্দুদের মারা হচ্ছে কাশ্মীরে
জঙ্গিদের নামে, বেছে বেছে আলাদা করে ফের হিন্দুদের মারা হচ্ছে কাশ্মীরে

জঙ্গিদের নামে, বেছে বেছে আলাদা করে; ফের হিন্দুদের মারা হচ্ছে কাশ্মীরে। এক সপ্তাহে ৮ জন সাধারণ মানুষকে; হত্যা করা হয়েছে কাশ্মীরে। দুঃখের বিষয় এটাই; এঁরা প্রত্যেকেই হিন্দু। শ্রীনগরের সাগাম ইদগা এলাকায় জঙ্গি হামলায়, স্কুলে ঢুকে প্রধান শিক্ষিকা ও সহকারী শিক্ষককে; গুলি করে খুন করে জঙ্গিরা। প্রধান শিক্ষিকা সতীন্দর কউর ও শিক্ষক দীপক চাঁদ; স্থানীয় বাসিন্দা নন। আশ্চর্যর বিষয় হল এটাই, মুসলিম শিক্ষকদের গ্রুপ থেকে; টেনে বের করা হয় দুই হিন্দু শিক্ষককে। তারপর পরপর গুলি চালায় জঙ্গিরা। অধ্যক্ষ সুখবিন্দর কাউর, একজন শিখ; এবং দ্বিতীয় মৃত ব্যক্তি হলেন একজন হিন্দু শিক্ষক দীপক চাঁদ।

৭-দিনে ৮-জন হিন্দু ও কাশ্মীরের বাইরের মানুষকে মারল, তথাকথিত জঙ্গিরা; হাতে ছোট পিস্তল নিয়ে! এর আগে এক বড় ওষুধের দোকানের মালিককে; খুন করেছিল সন্ত্রাসীরা। তিনিও ছিলেন হিন্দু। মঙ্গলবার তিনজন সাধারণ মানুষকে; গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল। সব মিলিয়ে গত পাঁচদিনে সাতজন সাধারণ মানুষকে; খুন করল সন্ত্রাসীরা পিস্তল হাতে। যাদের সঙ্গে সরকার বা প্রশাসনের; কোন সম্পর্কই নেই! প্রতিটি ক্ষেত্রেই পিস্তল ব্যবহার করা হয়েছে হত্যার জন্য; জঙ্গিরা সাধারণত যা ব্যবহার করে না! তাহলে পিস্তল নিয়ে; কাশ্মীরে ফের হিন্দু নিধনে; নেমেছে কারা?

আরও পড়ুনঃ সামনের আসন থেকে পিছনের সারিতে, বাবুলের পরিণতি

স্কুলের প্রিন্সিপাল ছিলেন সুপুন্দর কাউর; একই স্কুলের শিক্ষক ছিলেন দীপক চন্দ। নিহত দুইজনেই, বর্তমানে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ কাশ্মীরের; সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ। দুই শিক্ষকের হত্যার ঘটনায়; রীতিমতো উত্তেজনা ছড়িয়েছে শ্রীনগরে। পাঁচ থেকে ছয়জন শিক্ষক; প্রধান শিক্ষকের অফিসে বৈঠক করছিলেন। সেই সময় দুজন জঙ্গি; সেখানে ঢুকে পড়ে। মুসলিম শিক্ষকদের থেকে আলাদা করে, অধ্যক্ষ সহ দুই হিন্দু শিক্ষককে; স্কুল থেকে টেনে বের করে জঙ্গিরা। স্কুল-প্রাঙ্গনেই তাদের গুলি করা হয়; এবং ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

কাশ্মীর পুলিশের দাবি, দ্য রেসিসট্যান্স ফ্রন্ট (টিআরএফ); এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত। তবে আশ্চর্যর বিষয় এটাই, কোন সন্ত্রাসী গোষ্ঠী; এখনও পর্যন্ত এই ঘটনা-গুলির দায় স্বীকার করেনি। বৃহস্পতিবারের ঘটনার পরে, দিল্লির নর্থ ব্লকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ; এনএসএ অজিত ডোভাল, র এবং গোয়েন্দা বিভাগের প্রধানকে নিয়ে; কাশ্মীরের এই বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক করেন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন