চীন আমেরিকাকে টেক্কা দিয়ে সুপার কম্পিউটার বানাচ্ছে ভারত

15601
চীন আমেরিকাকে টেক্কা দিয়ে সুপার কম্পিউটার বানাচ্ছে ভারত
চীন আমেরিকাকে টেক্কা দিয়ে সুপার কম্পিউটার বানাচ্ছে ভারত

চীন আমেরিকাকে টেক্কা দিয়ে; সুপার কম্পিউটার বানাচ্ছে ভারত। বিশ্বের তাবড় দেশগুলোকে টেক্কা দেবে ভারত। সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে বিপ্লব ঘটিয়ে; আরও ১১ টি সুপার কম্পিউটার তৈরি করছেন দেশের নামকরা প্রযুক্তিবিদ ও বিজ্ঞানীরা। ২০২১ সালের মার্চের মধ্যেই আইআইটি-কানপুর; বেঙ্গালুরুর জওহরলাল নেহরু সেন্টার ফর অ্যাডভান্সড সায়েন্টিফিক রিসার্চ; ও আইআইটি হায়দরাবাদে বসানো হবে এই সুপার কম্পিউটারগুলোকে; এমনটাই জানা গেছে। চলছে চূড়ান্ত মুহূর্তের প্রস্তুতি।

কেন্দ্রীয় সরকারের ইলেকট্রনিক্স ও আইটি মন্ত্রক; এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের উদ্যোগে ন্যাশনাল সুপার কম্পিউটার মিশনে; সামিল হয়েছে পুণের সেন্টার ফর ডেভেলপমেন্ট অব অ্যাডভান্সড কম্পিউটিং এবং বেঙ্গালুরুর ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স। জানা গেছে, এই প্রযুক্তির উন্নয়নে কেন্দ্রের তরফে; প্রায় ৭৫০.৯৭ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে।

সুপার কম্পিউটার বলা হয়ে থাকে; ক্ষমতা বিশেষ করে হিসাব নিকেশের গতির উপর নির্ভর করে কোন নির্দিষ্ট সময়ে; পৃথিবীর অগ্রগণ্য কম্পিউটারগুলোকে। ১৯৬০ সালের দিকে কন্ট্রোল ড্যাটা কর্পোরেশন (সিডিসি) এর সেইমার ক্রে; সর্বপ্রথম প্রাথমিক ভাবে সুপার কম্পিউটারের একটি ডিজাইন তৈরি করেন; এবং তা পৃথিবার কাছে তুলে ধরেন। ১৯৭০ সালের দিকের সুপার কম্পিউটারগুলোতে; সামান্য কয়েকটি প্রসেসর ব্যবহার করা হয়ে থাকলেও; ১৯৯০ সালের দিকের সুপার কম্পিউটারগুলোতে হাজার হাজার প্রসেসর ব্যবহার হত। কিন্তু বিংশ শতাব্দীর শেষের দিকে সুপার কম্পিউটারে প্রসেসরের সংখ্যা; লক্ষ ছাড়িয়ে যায়।

কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণাধীন অসংখ্য মাল্টি-কোর প্রসেসর সংযুক্ত করার মাধ্যমে চালিত উক্ত পদ্ধতিটির জনপ্রিয়তা ক্রমশ বাড়ছে। বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাশীল; সুপার কম্পিউটার চীনের Sunway Taihulight। হাই পারফরম্যান্স কম্পিউটিং-এ; আর পিছিয়ে নেই ভারতও। বিশ্বের দ্রুততম কম্পিউটারের তালিকায়; এরমধ্যেই পাকাপাকি জায়গা করে নিয়েছে; ভারতের দুই সুপার কম্পিউটার ‘প্রত্যুষ’ ও ‘মিহির’।

কোয়ান্টাম পদার্থবিদ্যা, আবহাওয়ার পূর্বাভাস দেয়া, জলবায়ু গবেষণা, তেল ও গ্যাসের উৎস চিহ্নিত করতে; আণবিক মডেল পর্যবেক্ষণ যেমন কোন কেমিকেল কম্পাউন্ড, বায়োলজিক্যাল ম্যাক্রোমলিকিউল, পলিমার এবং ক্রিস্টালের গঠন ও বৈশিষ্ট্য পর্যবেক্ষনের ক্ষেত্রে; এবং বাহ্যিক সিমিউলেসন যেমন এয়ারপ্লেন সিমিউলেসন, নিউক্লিয়ার বোমা বিস্ফোরণ সিমিউলেসন এবং নিউক্লিয়ার ফিউশন গবেষণার ক্ষেত্রে; সুপার কম্পিউটার ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন