নিখুঁত নিশানায় আঘাত, শব্দের চেয়েও দ্রুতগতি সম্পন্ন সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইল ব্রহ্মসের ফের সফল পরীক্ষা

1640
নিখুঁত নিশানায় আঘাত, শব্দের চেয়েও দ্রুতগতি সম্পন্ন সুপারসনিক ক্রুজ ব্রহ্মসের ফের সফল পরীক্ষা
নিখুঁত নিশানায় আঘাত, শব্দের চেয়েও দ্রুতগতি সম্পন্ন সুপারসনিক ক্রুজ ব্রহ্মসের ফের সফল পরীক্ষা

নিখুঁত নিশানায় আঘাত, শব্দের চেয়েও দ্রুতগতি সম্পন্ন; সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইল ব্রহ্মসের; ফের সফল পরীক্ষা করল ভারত। ভারতের প্রতিরক্ষা গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থা, ডিআরডিও জানিয়েছে; আরব সাগরের ভারতীয় নৌবাহিনীর স্টেলথ ডেস্ট্রয়ার ‘আইএনএস চেন্নাই’; থেকে ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রটি পূর্বনির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুকে; নিখুঁত ভাবে আঘাত করতে সক্ষম হয়েছে। এই সফল পরীক্ষণের ফলে; নৌসেনার শক্তি অনেকগুণ বাড়বে। আগামী দিনে এই ব্রহ্মস মিসাইল; ভারতীয় রণতরীতে নিযুক্ত হতে চলেছে।

আরও পড়ুনঃ পাকিস্তানের মঞ্চে দাঁড়িয়েও, ভারতের বদনাম করলেন কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুর

গত ৩০ সেপ্টেম্বরও, ওড়িশার বালেশ্বর উপকূলে; ভারত জমি থেকে জমিতে আঘাত হানতে সক্ষম; ব্রহ্মস ক্রুজ মিসাইলের একটি নবীনতম সংস্করণের সফল পরীক্ষণ করেছে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রের খবর, রবিবার পরীক্ষিত মিসাইলটি; শব্দের চেয়ে তিনগুণ গতি সম্পন্ন। এই ক্ষেপণাস্ত্রের প্রাথমিক পাল্লা ২৯০ কিলোমিটার। কিন্তু তা বাড়িয়ে; ৪০০ কিলোমিটার পর্যন্ত করা যায়। ডিআরডিও-র চেয়ারম্যান জি সতীশ রেড্ডি; এ দিন ব্রহ্মসের সফল পরীক্ষার জন্য ডিআরডিও-র বিজ্ঞানী এবং ভারতীয় নৌসেনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। অভিনন্দন এসেছে; প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহের তরফ থেকেও।

ভারত এবং রাশিয়ার যৌথ উদ্যোগে নির্মীত; ব্রহ্মস ক্ষেপণাস্ত্রের তিনটি পৃথক সংস্করণ রয়েছে। স্থল, নৌ এবং বায়ুসেনার জন্য। প্রতিটি সংস্করণেরই একাধিক বার পরীক্ষা সফল হয়েছে। চিনের সঙ্গে সাম্প্রতিক সীমান্ত সংঘর্ষের মধ্যেই; ব্রহ্মসের নৌ-সংস্করণের এই পরীক্ষা খুব গুরুত্বপূর্ণ; বলে মনে করছেন প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের মতে, চিনা নৌবাহিনীর বিশাল তিনটি বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজের মোকাবিলায়; কার্যকরী হবে এই ক্ষেপণাস্ত্র।

৬০ হাজার টনেরও বেশি ওজনের যুদ্ধজাহাজকে; সাধারণ অ্যান্টি-শিপ মিসাইল দিয়ে ঘায়েল করা কঠিন। কারণ, বিশাল ওই যুদ্ধজাহাজগুলিতে; অ্যান্টি-শিপ মিসাইলের আঘাত সহ্য করে নেওয়ার মত; চেম্বার-সহ নানা রক্ষাকবচ থাকে। চিনের বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজ বা এয়ারক্র্যাফ্ট ক্যারিয়ার; তিনটিরই ওজন ৬০ হাজার টনের বেশি। তাই তাদের ধ্বংস করতে ‘এয়ারক্র্যাফ্ট ক্যারিয়ার কিলার’; ক্ষেপণাস্ত্র প্রয়োজন। তাই ভারত ‘এয়ারক্র্যাফ্ট ক্যারিয়ার কিলার’ হিসেবে; ব্রহ্মসের এই সংস্করণটি নিয়ে এল।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন