ভারতীয় রাজনীতির গুরু মোদী অমিত, বিরোধী নেতারা অন্ধভাবে দুজনের পিছনে

363
ভারতীয় রাজনীতির গুরু মোদী অমিত, দুজনে যা বলাচ্ছেন বিরোধী নেতারা তাই বলছেন/The News বাংলা
ভারতীয় রাজনীতির গুরু মোদী অমিত, দুজনে যা বলাচ্ছেন বিরোধী নেতারা তাই বলছেন/The News বাংলা

দেশের বিরোধী সব নেতারাই; এখন কাশ্মীরের পিছনে ছুটছেন; ঠিক সাধারণ মানুষের মতোই। কাশ্মীরে ৩৭০ তুলে দেবার বিরুদ্ধে; বলছেন সব বিরোধী দল। কাশ্মীরে ভারতীয় সেনাবাহিনী নাকি অত্যাচার করছে; প্রচার শুরু করেছে বাম কংগ্রেস সহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলের নেতারা। আর এখানেই নিজের বুদ্ধি বিসর্জন দিয়ে; নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহের ছকেই; বোকার মত পা দিচ্ছেন তাঁরা। আর তাই মোদী অমিতই এখন; ভারতীয় রাজনীতির মহাগুরু।

কি কি বিষয়ে মুখ খুলতে পারতেন বিরোধী নেতারা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জমানায় আছে; বেশ কিছু নেগেটিভ দিক। যা নিয়ে এই মূহুর্তে উদাসীন; ভারতের বিরোধী দলগুলির নেতারা। ১. জেট এয়ারওয়েজ বন্ধ। ২. এয়ার ইন্ডিয়ার ৭৬০০ কোটি টাকার বেশি ক্ষতি। ৩. বিএসএনএল এর ৫৪,০০০ মানুষের কাজ ছাঁটাই হতে চলেছে। ৪. হ্যাল কর্মীদের মাইনে দেবার টাকা নেই। ৫. পোস্টাল দফতর ১৫,০০০ কোটি টাকার ক্ষতি মুখে।

আরও পড়ুনঃ মমতার পরিকল্পনায় জল ঢাললেন মোদী, কলকাতায় হচ্ছে না দ্বিতীয় এয়ারপোর্ট

তবে তাতে নজর নেই বিরোধী দলের নেতাদের। তাঁরা ছুটছেন কাশ্মীরের দিকে। কিন্তু আরও অনেক বিষয়েই কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনা করা যায়। ৬. অটোমোবাইল ইন্ডাস্ট্রি বা গাড়ি শিল্পে ৩ লক্ষ চাকরি ছাঁটাই। ৭. আবাসন শিল্পে ভয়ানক অবস্থা। ভারতের ৩০টি বড় শহরে; প্রায় ১৩ লক্ষ বাড়ি ও ফ্লাট অবিক্রীত অবস্থায় পড়ে। ৮. এয়ারসেল কোম্পানি মৃত। ৯. জেপি গ্রুপ শেষ। ১০. ভারতের সবচেয়ে লাভজনক কোম্পানি; ওএনজিসি এখন ক্ষতির দিকে।

তবে তাতে নজর নেই সোনিয়া; মমতা; রাহুল; সীতারাম বা অন্যান্যদের। তাঁরাও এখন ব্যস্ত; কাশ্মীর নিয়ে সরকারের সমালোচনায়। মোদী অমিত শাহ যা দেখাচ্ছেন; এঁরা তাই দেখছেন। কাশ্মীর নিয়ে মন্তব্য করে দেশের বিরোধিতা না করে; আর কি কি বিষয়ে মোদী সরকারের সমালোচনা করতে পারতেন তাঁরা?

আরও পড়ুনঃ ব্যাঙ্ক জালিয়াতি মামলায়, ইডির জালে মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপো

১১. নীরব মোদী; বিজয় মালিয়ার মত; বিভিন্ন ব্যাংক থেকে লক্ষ কোটি টাকা ধার করে ভারতের প্রায় ৪০ জন ব্যবসায়ী; বিদেশে গায়েব হয়ে গেছেন। ১২. বিভিন্ন ব্যবসায়ীর প্রায় ৩ লক্ষ কোটি টাকা লোন; মকুব করেছে মোদী সরকার। ১৩. পিএনবি ব্যাংক লোকসানের চোটে; দেউলিয়া হবার জোগাড়। ১৪. ভারতের সব ব্যাংক চরম ক্ষতির মুখে।

কিন্তু তাতে কি! ভারতীয় রাজনীতির গুরুদেব নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ যা দেখাচ্ছেন; তাই দেখছেন বিরোধী নেতারা। ১৫. ভারতের বৈদেশিক ঋণ; ৫০০ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়েছে। ১৬. ধীরে ধীরে ভারতীয় রেলকেও; বেসরকারিকরণ করছে মোদী সরকার। ১৭. এমন অবস্থা যে রেড ফোর্টের মত; হেরিটেজ বিল্ডিং-গুলিকেও ভাড়া দিতে হচ্ছে। কিন্তু তাতে কি? বিরোধীরা পরে আছেন সেই কাশ্মীরেই।

১৮. ভারতের সবচেয়ে বেশি গাড়ি তৈরি করা মারুতি; গাড়ি তৈরি কমিয়ে দিয়েছে। ১৯. বিভিন্ন কোম্পানির ৫৫০০০ গাড়ি পরে আছে; বিক্রি হয় নি; কারণ ক্রেতা নেই। ২০. স্বাধীনতার পর থেকে; সবচেয়ে বেশি কর্মহীনতার সময় চলছে ভারতে। ২১. আস্তে আস্তে ভারতের সব এয়ারপোর্ট; আদানিদের হাতে যাচ্ছে। ২২. ভিডিওকোন দেউলিয়া; টাটা ডোকামো শেষ।

না; এতকিছুর পরেও ঘুম ভাঙে নি কারোর। সিসিডি প্রতিষ্ঠাতা ভিজি সিদ্ধার্থর আত্মহত্যা নিয়েও; সেভাবে কেউ মুখ খোলে নি কোন দলই। বাম, কংগ্রেস, তৃণমূল, টিডিপি, জেডিএস; সব বিরোধীরাই চুপ। ভারতের সাধারণ মানুষ ও সোশ্যাল মিডিয়ার মত; তাঁরাও ব্যস্ত কাশ্মীর ও পাকিস্তান নিয়ে।

নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ যেভাবে চাইছেন; বিরোধীরা ঠিক তাই বলছেন। মোদী অমিত যেদিকে আকর্ষণ করছেন; সীতারাম ইয়েচুরি ও রাহুল গান্ধীরা সেদিকেই হাঁটছেন। আর এই কারণেই; এই মূহুর্তে ভারতীয় রাজনীতির দুই গুরু নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ। তাঁরাই ঠিক করে দিচ্ছেন; ভারতীয় রাজনীতি কোন পথে চলবে; কোন বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন