মানুষকে চোখের জলে ভাসিয়ে, সুরের জগতেই হারিয়ে গেলেন এসপি

3123
মানুষকে চোখের জলে ভাসিয়ে, সুরের জগতেই হারিয়ে গেলেন এসপি

অজস্র শ্রোতাকে কাঁদিয়ে বিদায় নিলেন, সঙ্গীতের ম্যাজেসিয়ান এস পি বালসুব্রহ্মণ্যম। করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ৫ অগস্ট থেকে; চেন্নাইয়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। তবে গত দুদিনে, আচমকাই শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় বিখ্যাত গায়কের। দ্রুত তাঁকে আইসিইউতে স্থানান্তরিত করে; রাখা হয় লাইফ সাপোর্টে। গত চব্বিশ ঘণ্টায় বর্ষীয়ান শিল্পীর শারীরিক পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি ঘটেছে বলে জানায়; চেন্নাইয়ের এমজিএম হেলথকেয়ার কর্তৃপক্ষ। শেষ পর্যন্ত, মানুষকে চোখের জলে ভাসিয়ে; সুরের জগতেই হারিয়ে গেলেন এসপি।

৭৪ বছরের এই সংগীতশিল্পীর শারীরিক অবস্থা; ধীরে ধীরে উন্নতি হচ্ছিল; কিন্তু শুক্রবার দুপুরে হেরে গেল জীবন যুদ্ধে। এস পি বালসুব্রহ্মণ্যম; জন্ম ৪ জুন ১৯৪৬ সালে জন্মগ্রহন করেন। ভারত সরকার থেকে পদ্মশ্রী (২০০১) এবং পদ্মভূষণ (২০১১); সম্মানও পান এই শিল্পী। জাতীয় পুরস্কার জয়ী এই সঙ্গীতশিল্পী, দক্ষিণ ভারতের পাশাপাশি; বলিউডি ছবিতে অসংখ্য জনপ্রিয় গান উপহার দিয়েছেন দর্শকদের। নব্বইয়ের দশকে; ‘ম্যায়নে প্যার কিয়া’; ‘হাম আপকেে হ্যায় কৌন’-র মতো; সুপারহিট ছবিতে প্রতিটি গানে প্লে-ব্যাক করেছেন এস পি বালসুব্রহ্মণ্যম।

আরও পড়ুনঃ সামলাতে পারবে তো ভারত, করোনা ভাইরাসের পর চিন থেকে ভারতে এসে গেল ব্রুসেলোসিস ব্যাকটেরিয়া

যদিও তাঁর মিউজিক্যাল সফল শুরু হয়; অনেক আগে থেকেই। ১৯৬৬ সালে প্রথম; তেলুগু ছবিতে গান গেয়েছিলেন এই কিংবদন্তী শিল্পী। দীর্ঘদিন বলিউড মিউজিক থেকে দূরে থাকবার পর; ২০১৩ সালে শাহরুখ খানের চেন্নাই এক্সপ্রেস ছবিতে; প্লে-ব্যাক করেছিলেন এস পি বালসুব্রহ্মণ্যম। তেলুগু; তামিল; কান্নাদ; হিন্দি এবং মালায়ালাম ভাষায়; কাজ করেছিলেন জাতীয় পুরস্কার জয়ী এই সঙ্গীতশিল্পী।

তিনি ১৬টি ভারতীয় ভাষায়; ৪০,০০০ এরও বেশি গান রেকর্ড করেছেন। ৪০,০০০ এর বেশি গান; সর্বোচ্চ সংখ্যক গান রেকর্ড করার জন্য; গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড-এ নাম ওঠে তাঁর। চারটি ভিন্ন ভাষায়; তাঁর কাজের জন্য সেরা পুরুষ প্লেব্যাক সিঙ্গার হিসাবে; ছয়টি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার পেয়ে ছিলেন এস পি বালসুব্রহ্মণ্যম। তাঁর মৃত্যুতে দেশ জুড়ে শোকের ছায়া।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন