ইরানের হামলার কারণেই অগ্নিসংযোগ ঘটে ইউক্রেনের বিমানে

1874
ইরানের হামলার কারণেই অগ্নিসংযোগ ঘটে ইউক্রেনের বিমানে/The News বাংলা
ইরানের হামলার কারণেই অগ্নিসংযোগ ঘটে ইউক্রেনের বিমানে/The News বাংলা

ইরানের মিশাইল হামলার কারণেই অগ্নিসংযোগ ঘটে ইউক্রেনের বিমানে। কমান্ডার সোলেমানির মৃত্যুর বদলা নিতেই; ইরাকে অবস্থিত মার্কিন সেনাঘাঁটিতে ১২ টি মিশাইল দিয়ে; হামলা চালিয়েছিল ইরান। এই হামলায় নিঃশ্বেস হয়ে যায় মার্কিন ঘাঁটি। যার জেরেই; সেদিন ইউক্রেনের বিমানটিতে অগ্নিসংযোগ ঘটে; মৃত্যু হয় ১৭৬ যাত্রীর।

ইরানের মার্কিট ঘাঁটি উদ্দেশ্য করে; রকেট হামলার জন্যই সেদিন ইউক্রেনের বিমানটি ভূপতিত হয়েছিল; মেনে নেয় ইরান। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র প্রথম থেকেই; দাবি করে আসছিল যে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের ফলেই; বিমানটি ভূপতিত হয়। যার জেরে ইউক্রনের বিমানটি ভেঙে পড়ে।

আরও পড়ুন কথা মতোই কাজ, দেশজুড়ে কার্যকর সিএএ

যেদিন ভোররাতে ইউক্রেন ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৩৭ বিমানটি তেহরান থেকে কিয়েভগামী বিমানটিতে আগুন লাগে; সেই একই সময়; ইরানের তরফে ইরাকে মার্কিন সেনা ক্যাম্পের মিশাইল হামলা চালানো হয়।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তরফে জানানো হয়; শুধুই যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে এতবড় বিমান ভেঙে পড়তে পারে না। প্রথমের মার্কিন অভিযোগকে গুঞ্জন হিসেবে উড়িয়ে দিলেও; পরে ইরানের মিশাইল উৎক্ষেপণের ফলেই; যে এমন ঘটনা ঘটেছে; তা তারা শিকার করে নেয়। তবে তদন্তের রিপোর্ট সামনে আসতেই; মাথা নোয়াতে হয় ইরানকে।

সে দেশের রাষ্ট্রপতি জানান; খুব দুর্ভাগ্যবসত মিশাইল ছুঁড়তে গিয়ে; ইউক্রেনের বিমানটিতে আগুন লাগে; যার জেরে সব যাত্রীরাই মারা যায়। মানুষের ত্রুটির কারণেই; এমন ভয়াবহ দুর্ঘটনাটি ঘটেছে; বলে জানায় ইরান। দোষীদের শাস্তি দেওয়া হবে বলে; জানান রাষ্ট্রপতি হাসান রুহানি। ১৭৬ জন যাত্রী সহ ইউক্রেনের ওই বিমানটি তেহরানের ইমাম খামেনি বিমানবন্দর থেকে ওড়ার পরই; ধ্বংস হয়।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন