শনিবার থেকেই চাঁদে রাত, অন্ধকার ইসরোর বিজ্ঞানীদের মুখেও

206
শনিবার থেকেই চাঁদে রাত, অন্ধকার ইসরোর বিজ্ঞানীদের মুখেও/The News বাংলা
শনিবার থেকেই চাঁদে রাত, অন্ধকার ইসরোর বিজ্ঞানীদের মুখেও/The News বাংলা

শনিবারই শেষ হয়ে যাচ্ছে চন্দ্রযান-২ এর জীবন। ১৪ দিনের লড়াই শেষ হতে চলেছে। চাঁদের মাটিতেই শেষ হয়ে যাচ্ছে; ল্যান্ডার বিক্রমের জীবন। কারণ আজ থেকেই; চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে রাত্রি শুরু হয়ে যাচ্ছে। অন্ধকারে ঢেকে যাবে দক্ষিণ মেরু। থাকবে না কোনও সূর্যের আলো। যার ফলে সৌরশক্তি থেকেও; শক্তি সংগ্রহ করতে পারবে না ল্যান্ডার বিক্রম; ১৪ দিনে ব্যাটারির ক্ষমতা ক্ষীণ হয়ে এসেছে ইতিমধ্যেই।

শেষ ১৪ দিনের মেয়াদ। শনিবারই চাঁদের মাটিতে; পুরোপুরি রাত নেমে এসেছে। সেই সঙ্গে তাপমাত্রাও; কমতে কমতে নেমে এসেছে শূন্য ডিগ্রির প্রায় ২০০ সেলসিয়াস নিচে। আগামী ১৪ দিন চাঁদের মাটিতে এই কনকনে ঠাণ্ডার রাতই থাকবে।

আরও পড়ুনঃ পুজোর পরপরই দুই রাজ্যে নির্বাচন, কাশ্মীরের পর মোদী অমিতের অগ্নিপরীক্ষা

টানা ২ সপ্তাহ এতো শীতল পরিবেশে; বেঁচে থাকা বিক্রমের পক্ষে সম্ভব নয়। এই তাপমাত্রার হ্রাসের কারণে; বিক্রমের সব যন্ত্র নিষ্ক্রিয় হয়ে যাবে। আর বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগের কোনও আশাই থাকবে না। তাই, ধরেই নিতে হবে ল্যান্ডার বিক্রমের; হয়তো আজই শেষ দিন চাঁদের বুকে।

নাসার অরবিটার চাঁদের মাটিতে; বিক্রমের ছবি তুলতে না পারার পরই মোটামুটি পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল; বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগের আর কোনও আশা নেই। এবার সেই আশঙ্কাই সত্যি হতে চলেছে।

অন্যদিকে ল্যান্ডার বিক্রম এবং রোভার প্রজ্ঞানের; আয়ুই ছিল ১৪ দিন। যা আজই শেষ হচ্ছে। আজ থেকেই চাঁদের মাটিতে নামছে শীতল রাত। চাঁদের মাটিতে দিনের আর রাতের তাপমাত্রার আকাশ-পাতাল ফারাক। দিনের বেলায় যেখানে তাপমাত্রা ১৮৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত সেখানে রাতের তাপমাত্রা নেমে যায় -২০০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

আরও পড়ুনঃ জলপথে পাক সেনাকে হারাতে, নৌসেনার হাতে এলো নতুন অস্ত্র

গত ৭ সেপ্টেম্বর চাঁদের মাটিতে সফট ল্যান্ডিং হওয়ার কথা ছিল বিক্রমের। কিন্তু, সফট ল্যান্ডিংয়ের সময় শেষ মুহূর্তে ইসরোর নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায় বিক্রম। তাঁর সঙ্গে আর কোনওরকমভাবে যোগাযোগ করা যায়নি। পরে চন্দ্রযানের অরবিটারের মাধ্যমে তাঁর থার্মাল ইমেজ পাওয়া যায়।

জানা যায়, নির্ধারিত লক্ষ্যের মাত্র ৫০০ মিটার দূরে হার্ড ল্যান্ডিং হয়েছে বিক্রমের। তারপর থেকেই ল্যান্ডারের সঙ্গে যোগাযোগের আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরো। কিন্তু, কোনওভাবেই যোগাযোগ সাধন সম্ভব হয়নি।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন