ধনখড় জমানা কি শেষ, বাংলার নতুন রাজ্যপাল কে হতে পারেন

2100
ধনখড় জমানা কি শেষ, বাংলার নতুন রাজ্যপাল কে হতে পারেন
ধনখড় জমানা কি শেষ, বাংলার নতুন রাজ্যপাল কে হতে পারেন

পশ্চিমবঙ্গের বর্তমান রাজ্যপাল; জগদীপ ধনখড় জমানা কি শেষ? বাংলার নতুন রাজ্যপাল; কে হতে পারেন? হঠাৎ করেই এই প্রশ্ন; উঠেছে বাংলার রাজনীতিতে। রাজ্যপাল ধনখড়ের সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের; বিতর্কের ইতিহাস সবাই জানে। এই মুহূর্তেও তিনি দিল্লিতে; রাজ্যের ভোট পরবর্তী হিং’সার রিপোর্ট নিয়ে। নির্বাচনের আগে এবং পরে একাধিকবার; মমতার সমালোচনায় মুখর হয়েছেন ধনখড়। ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়েও; ভীষণরকম সরব তিনি। এবার কি তাঁর বদলে রাজ্যে; নতুন রাজ্যপাল আসবেন? ইতিমধ্যেই সামনে এসেছে; একটি নাম।

রাজ্যপাল ধনখড়কে; দিল্লি তলব করেছে কেন্দ্র। হঠাৎ এভাবে রাজ্যপালকে; দিল্লিতে ডাকার কারণ কি? বিজেপি সূত্রে খবর, এর মধ্যে রয়েছে; বাংলায় রাজ্যপাল পরিবর্তনের জল্পনাও। কেন্দ্রের একটি সূত্র জানাচ্ছে, ধনখড় যেভাবে কাজ করছেন; তাতে খুশি নয় কেন্দ্র। বিভিন্ন ঘটনায়, রাজ্যপালের আরও কড়া ব্যবস্থা নেওয়া উচিত ছিল; বলেই মনে করছে মোদী সরকার।

যদিও ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকবার, রাজ্যের প্রশাসনিক আধিকারিকদের তলব করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় এবং যথেষ্ট কড়া ভাষায় তাদের সমালোচনা করেছেন তিনি। কিন্তু সূত্রের খবর, কেন্দ্রের মতে পশ্চিমবঙ্গে বর্তমানে যেভাবে রাজ্য প্রশাসন চলছে; তাতে আরও কড়া ব্যবস্থা নিতে হবে। সম্প্রতি রাজভবনে নিয়োগকে ঘিরেও, ধনখড়ের বিরুদ্ধে; স্বজনপোষণের অভিযোগ উঠেছে। আর সেই কারণেও তাকে সরিয়ে দেওয়া হতে পারে; রাজ্যপাল পদ থেকে।

আরও পড়ুনঃ প্রতিশ্রুতি পূরণে মানুষের সেবায় চন্দনা, বাংলার এমন ‘গরিব’ বিধায়কই দরকার

কেন্দ্র সরকার এই নিয়ে সরাসরি মুখ না খুললেও, কেন্দ্র বিজেপির একটি সূত্র জানাচ্ছে; বাংলার পরিবর্ত রাজ্যপাল তালিকায়; শীর্ষে রয়েছেন কেরলের রাজ্যপাল আরিফ মহম্মদ খান। আরিফ খান সংখ্যালঘু; এবং নাগরিকত্ব আইনের পক্ষে। শুধু তাই নয়, ধনখড়ের তুলনায়; আরও বেশি চ’রমপন্থী আরিফ। ইতিমধ্যেই কেরলে যথেষ্ট সমালোচনার মুখে; পড়েছেন তিনি। কেন্দ্র সরকারের তিন তালাক বিরোধী বিলকেও; সমর্থন করেন আরিফ।

সেই কারণেই, তাকে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল পদে অভিষিক্ত করে; সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে বার্তা দিতে চায় কেন্দ্র। রাজনৈতিক মহলের মতে, আরিফ মহম্মদ খান বাংলার রাজ্যপাল পদে অভিষিক্ত হলে; সরকারের সঙ্গে দ্ব’ন্দ্ব আরও বাড়বে। অন্য আরেকটি সূত্র অবশ্য বলছে, এখনই ধনখড়কে; বদল করার কোনো সম্ভাবনাই নেই। বাংলার বর্তমান আইনি পরিস্থিতি বিষয়ে, আলোচনার জন্যই; তাঁকে দিল্লিতে ডেকে পাঠানো হয়েছে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন