পশ্চিমবঙ্গ এখন ‘হীরক রাজার দেশ’, রাজ্যপাল পদে একবছরে বললেন জগদীপ ধনখর

2534
পশ্চিমবঙ্গ এখন হীরক রাজার দেশ, রাজ্যপাল পদে একবছরে বললেন জগদীপ ধনখর
পশ্চিমবঙ্গ এখন হীরক রাজার দেশ, রাজ্যপাল পদে একবছরে বললেন জগদীপ ধনখর

“পশ্চিমবঙ্গ এখন হীরক রাজার দেশ”; বাংলার রাজ্যপাল পদে একবছর পূর্ণ করে বললেন; রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর। রাজ্যপাল নির্বাচিত হয়ে আসার পর থেকেই; রাজ্য সরকারের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক আদায় কাঁচকলায়। বিতর্কিত মন্তব্য করে; পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিরাগভাজন হন তিনি। মুখ্যমন্ত্রী ও তার সংঘাত নতুন নয়। বারে বারে মুখ্যমন্ত্রীর যে কোনও সিদ্ধান্তের; বিরোধীতা করেছেন তিনি। পাল্টা মুখ্যমন্ত্রীও ছেড়ে কথা বলেননি রাজ্যপালকে। রাজ্যপাল একজন সাংবিধানিক প্রধানের মতো নয়; বিজেপির মুখ্যপাত্রের মতো আচরণ করেছেন বলে; পাল্টা তোপ দেগেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। এবার, মমতা স্রকারকের আমলে বাংলাকে; ‘হীরক রাজার দেশ’ বলে তুলনা করলেন রাজ্যপাল।

আরও পড়ুনঃ বেহাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, তোলাবাজির পর মহিলা ওয়ার্ডে পিপিই পরা চোর

সম্প্রতি করোনা নিয়ে রাজ্যসরকারের; তুমুল সমালোচনা করেন রাজ্যপাল। সেই নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা, রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধানের চূড়ান্ত অসহযোগীতার অভিযোগ তোলেন; প্রধানমন্ত্রীর কাছেও। রাজ্যপালও তেমনই নাছো়বান্দা; তিনি তো দমার মানুষ নন। তাই রাজ্য সরকারকে কখনও পুলিশকে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য খোঁটা দিয়েছেন; তো কখনও বলেছেন শাসকদল গণতন্ত্র হরণ করছে। তবে এই টক ঝাল মিষ্টি সম্পর্ক ও রাজ্য সরকারের সঙ্গে সম্পর্কের নানান চড়াই উৎরাইয়ের মধ্যে দিয়েই; এক বছর সম্পূর্ণ করলেন রাজ্যপাল জগদীর ধনখড়। পশ্চিমবঙ্গের সাংবিধানিক প্রধান হিসেবে; তার অভিজ্ঞতাও শেয়ার করলেন। বললেন, “পশ্চিমবঙ্গ এক হীরক রাজার দেশ”।

গত বছর ৩০ জুলাই তিনি; বাংলার রাজ্যপাল পদে শপথ নেন। রাজ্যপাল হিসেবে এক বছর পূর্ণ করায়; নিজের আনন্দও প্রকাশ করেন তিনি। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর জন্ম দেওয়া কেউ; এই প্রথম পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল পদে বসেছেন; বলেও তিনি জানিয়েছেন।রাজ্যপাল পদে এক বছর পূর্ণ করার দিন; জগদীপ ধনখর একটি ভাষণ পোস্ট করেছেন ইউটিউবে। সেই লিঙ্ক তিনি টুইটারে পোস্ট করেছেন। ভাষণে বাংলার সাহিত্য, সংস্কৃতি ও চিন্তাভাবনার কথা যেমন তুলে ধরেছেন; তেমনই ফের একবার আইনশৃঙ্গলা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন পুরোনো ভঙ্গিতেই। রাজ্যে শাসনের অংশ পুলিশের সুরক্ষায় গুন্ডারাজ ও দুর্নীতিকে; ‘হীরক রাজার দেশে’ আখ্যা দেন জগদীপ ধনখড়।

আরও পড়ুনঃ “চিটফান্ড কাণ্ডে সবচেয়ে বেশি লাভ করেছেন মমতা”, বক্তা আজ তৃণমূল মুখপাত্র

তিনি বলেন, সত্যজিৎ রায় কখন ভাবেননি যে; তিনি ওই সিনেমাতে যা দেখিয়েছিলেন; তা একদিন এই রাজ্যও ঘটবে। তিনি গণতন্ত্রের স্বাধীনতার দাবি তোলেন। এখানেই শেষ নয়; পরবর্তী টুইটে ধনখড় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ট্যাগ করে লিখেছেন; “পশ্চিমবঙ্গের গভর্নর হিসাবে এক বছর; বেশ কিছু চিন্তা আমার মনকে উঁচু করে দেয়। অবিস্মরণীয়, স্মরণীয়, সমৃদ্ধকারী এবং অনুপ্রেরণামূলক এবং প্রায়ই বেদনাদায়ক বিরক্তি”।

মুখ্যমন্ত্রীকে তাঁর ফের পরামর্শ; “সংবিধান মেন চলুন। আইনের শাসন পুনরুদ্ধার করুন। পুলিশ রাজ শেষ করুন। সঠিকভাবে সরকার পরিচালনা করুন। কেন্দ্রের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক রাখুন। গভর্নরের সঙ্গে দুরত্ব রাখবেন না। প্রতিষ্ঠানের রাজনৈতিক নিরপেক্ষতা বজায় রাখুন”। সাংবিধানিক প্রধান হিসেবে নিজের টক, ঝাল অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে গিয়েও; এদিনও রাজ্যপাল রাজ্য সরকার সম্পর্কে আরও একবার নিজের অনড় অবস্থানের কথাই স্পষ্ট করে দিয়েছেন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন