সোমবার মমতা আসবেন, তাই জন্মাষ্টমী ও শনি রবি ছুটি বাতিল করলেন জেলাশাসক

2263
সোমবার মমতা আসবেন, তাই জন্মাষ্টমী ও শনি রবি ছুটি বাতিল করলেন জেলাশাসক/The News বাংলা
সোমবার মমতা আসবেন, তাই জন্মাষ্টমী ও শনি রবি ছুটি বাতিল করলেন জেলাশাসক/The News বাংলা

একেই কি বলে তুঘলকি কাণ্ড? পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী-র তুঘলকি কাণ্ডে বেজায় ক্ষুব্ধ; জেলার সব সরকারি কর্মচারী। কিন্তু কি করেছেন; পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী? শুক্রবার থেকে সোমবার; যাবতীয় ছুটি বাতিল করেছেন জেলাশাসক বিজয় ভারতী। সোমবার মমতা আসবেন; তাই জন্মাষ্টমী ও শনি রবিবারের; ছুটি বাতিল করলেন জেলাশাসক।

দুপুরের পর থেকেই ক্ষোভে ফেটে পরেছেন; পূর্ব বর্ধমান জেলার সব সরকারি কর্মচারী। কারণ বৃহস্পতিবার দুপুরেই; জেলার সব সরকারি দফতরে এসে পৌঁছায়; পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী-র অর্ডার বা নির্দেশনামা। আর সেখানে লেখা আছে; শুক্রবার থেকে সোমবার; যাবতীয় ছুটি বাতিল। আর এরপরেই ক্ষেপে যান; সরকারি কর্মীরা।

আরও পড়ুনঃ যে কোন মুহূর্তে বিপদে পড়তে পারেন বিজেপি সভাপতি, রিপোর্ট কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের

কারণ শুক্রবার দেশ জুড়ে সব সরকারি দফতর বন্ধ। জন্মাষ্টমীর ছুটি। শুক্রবার থেকে রবিবার; ঘুরতে যাবার পরিকল্পনাও অনেকেই করে রেখেছেন অনেক দিন আগে থেকেই। কিন্তু একেই হয়ত বলে; বিনামেঘে ব্জ্রপাত। বৃহস্পতিবার জেলাশাসকের নির্দেশে; বাতিল হয়ে গেল জন্মাষ্টমীর ছুটিও।

পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতীর এই নির্দেশের বিরুদ্ধে; মুখ খুলেছেন সরকারি কর্মচারী সংগঠনগুলিও। বেআইনিভাবে জন্মাষ্টমীর ছুটি বাতিল করেছেন জেলাশাসক; অভিযোগ তাঁদের।

মুখ খুলেছেন জেলার মহিলা সরকারি কর্মীরাও। তাঁদের অভিযোগ; জন্মাষ্টমীর দিন পুজো হয়; অনেকের বাড়িতেই। এটা হিন্দুদের একটি বড় উৎসব। কি করে রাতারাতি নির্দেশ দিয়ে; পুজো ও উৎসবের ছুটি বাতিল করতে পারেন জেলাশাসক?

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশাসনিক বৈঠকে অংশ নিতে; পূর্ব বর্ধমানে আসবেন বুধবার। “শনি ও রবিবার ছুটি বাতিল; মেনে নেওয়া যায়; কিন্তু শুক্রবার জন্মাষ্টমীর ছুটি বাতিল একেবারেই মানা যায় না”। বলছেন পূর্ব বর্ধমানের সরকারি কর্মীরা।

এই নির্দেশ নিয়ে পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক-কে; বারবার ফোন করেও কোন উত্তর পাওয়া যায় নি। জেলাশাসকের অফিসিয়াল নাম্বার যদি জেলাশাসক না ধরেন; তাহলে ঘটা করে রাজ্য প্রশাসনের জেলাশাসকের নাম্বার রেখে লাভই বা কি? প্রশ্ন উঠছে।

রাজ্যের সবকটি সরকারি কর্মী সংগঠনের তরফ থেকে; জন্মাষ্টমীর ছুটি বাতিলের ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করা হয়েছে। এই সমস্ত তুঘলকি নির্দেশের কারনে বিরক্ত হয়েও; মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের উপর থেকে মানুষের আস্থা ও ভরসা কমছে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহলও।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন