‘স্বর্গরাজ্য’, বন্দুকের নল উঁচিয়ে দলে দলে কাবুলে ঢুকছে লস্কর, আইএস, জইশ জঙ্গিরা

3560
'স্বর্গরাজ্য', বন্দুকের নল উঁচিয়ে দলে দলে কাবুলে ঢুকছে লস্কর, আইএস, জইশ জঙ্গিরা
'স্বর্গরাজ্য', বন্দুকের নল উঁচিয়ে দলে দলে কাবুলে ঢুকছে লস্কর, আইএস, জইশ জঙ্গিরা

‘স্বর্গরাজ্য’, বন্দুকের নলের জোরে; আফগানিস্তানে ইসলামিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করছে তালিবানেররা। বর্তমানে আফগানিস্তানের মাটি; তালিবান সন্ত্রাসবাদী শক্তির দখলে। তালিবানেরা পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে; আফগানিস্তানে তারা জারি করবে, শরিয়া আইন। আর এই সুযোগে, সারা পৃথিবীর বিভিন্ন জঙ্গি গোষ্ঠীর সদস্যরা; দলে দলে প্রবেশ করছে আফগানিস্তানে। দলে দলে কাবুলে ঢুকছে লস্কর-ই-তইবা; আইএস, জইশ-ই-মহম্মদ জঙ্গিরা। তাদের ‘ইসলামিক এমিরেটস অফ আফগানিস্তান’-এ; স্বাগত জানাচ্ছে তালিবানরা। আফগানিস্তানে বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠনের জমায়েত; চিন্তার কারন হয়ে দাঁড়িয়েছে ভারতের পক্ষে।

তালিবানরা আফগান দখল নেবার পরেই; তালিবানের পতাকা হাতে সে দেশে ঢুকেছে; লস্কর-ই-তইবা, আইএস, জইশ-ই-মহম্মদ জঙ্গিরা। যাদের কন্ট্রোল করার রাশ; তালিবানদের হাতেও নেই। দেশের মাটিতে বিদেশি জঙ্গিদের জোট তৈরি, ও তাদের ক্ষমতাধর হয়ে ওঠা রুখতে; তালিবান নেতৃত্ব কতটা তৎপরতা দেখায়, সেটাই বড় প্রশ্ন।

আরও পড়ুনঃ আত্মঘাতী হামলায় কাবুলে ১৩ জন মার্কিন সেনাকে উড়িয়ে দিল তালিবান আইএস

আমেরিকার সঙ্গে তালিবানের শান্তিচুক্তি অনুযায়ী; আফগানিস্তানের মাটিতে কোনও জঙ্গিগোষ্ঠীকে কাজ করতে দেওয়া হবে না। কিন্তু তালিবানেরা আফগান দখল করার মাত্র; কয়েকদিনের মধ্যেই আফগানিস্তান রক্তাক্ত হয়েছে বারবার। তালিবান নেতৃত্বের আদেশ লঙ্ঘন করে জঙ্গিগোষ্ঠীগুলি; তাদের নিজস্ব অভিযান শুরু করতে পারে বিভিন্ন দেশে।

আরও পড়ুনঃ রয়েল গুর্খা রাইফেলসের দীপ প্রসাদ পুন, একাই মেরেছিলেন ৩০ তালিবান জঙ্গিকে

বিদেশি জঙ্গি গোষ্ঠী আফগানিস্তানে ভিড় করতে শুরু করলে; তালিবানদের ক্ষমতাও হ্রাস হতে পারে। তাই কাবুলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করাই; প্রথম পর্যায়ে তালিবানের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। তবে এই ঘটনায় সবচেয়ে চিন্তায়; প্রতিবেশী ভারত। আফগানিস্তানের মাটি সন্ত্রাসবাদীদের কার্যকলাপে ব্যবহার হলে; সবচেয়ে ক্ষতি হবে ভারতেরই। এমনটাই আশঙ্কা করা হচ্ছে; গোটা বিশ্ব জুড়েই।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন