সরকারি প্রতিশ্রুতি থাকলেও চাকরি নেই, পেট চালাতে ‌হাঁড়িয়া বেচছেন জাতীয় গেমসে পদকজয়ী আদিবাসী তরুণী

2711
চাকরি নেই, পেট চালাতে ‌হাঁড়িয়া বেচছেন জাতীয় গেমসে পদকজয়ী আদিবাসী তরুণী
চাকরি নেই, পেট চালাতে ‌হাঁড়িয়া বেচছেন জাতীয় গেমসে পদকজয়ী আদিবাসী তরুণী

২০১১ সালে ৩৪তম জাতীয় গেমসে; রাজ্যের হয়ে রূপো জিতেছিলেন বিমলা মুন্ডা। রাজ্য সরকারের কাছ থেকে; পেয়েছিলেন চাকরীর আশ্বাসও। কিন্তু শেষ পর্যন্ত, সেই চাকরী এখনও পাননি; রাঁচির ক্যারাটে খেলোয়াড় বিমলা মুন্ডা। তার উপর করোনা পরিস্থিতিতে; কর্মসংস্থানও বন্ধ হয়ে যাওয়ায়; দু বেলা অন্ন সংস্থান করতে; হাঁড়িয়া বিক্রি করে দিন কাটাতে হচ্ছে তাঁকে। বিমলা মুন্ডার এই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই; নড়েচড়ে বসেছে ঝাড়খণ্ড সরকার। সরকারের সমালোচনায় সরব হয়েছে সবাই।

আরও পড়ুনঃ বাড়িতে বসে ঈদ পালন হলে, পাড়ায় বসে দুর্গা পুজো কেন হবে না, আসল কারণটা ঠিক কি

রাঁচি শহরের উপকণ্ঠে বাস; ২৬ বছরের বিমলা মুন্ডার। করোনা আবহে; যে কোচিং সেন্টারটি তিনি চালাচ্ছিলেন; সেটি বন্ধ করতে হয়। ফলে পেট চালাতে বাড়িতেই ভাত পচিয়ে হাঁড়িয়া তৈরি করে; তা বিক্রি করতে শুরু করেন। সেই ভিডিও ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। তারপরেই সরকারের সমালোচনা শুরু হয়।

আরও পড়ুনঃ পুজো মণ্ডপে দর্শক ঢোকার অনুমতি পেতে, কলকাতা হাইকোর্টে রিভিউ পিটিশন দায়ের ফোরাম ফর দুর্গোৎসবের

২০১১ সালে জাতীয় গেমস ছাড়াও; ২০১২ সালে বলিউড অভিনেতা অক্ষয় কুমার আয়োজিত; চতুর্থ আন্তর্জাতিক কুডো চ্যাম্পিয়নশিপে; সোনা জিতেছিলেন বিমলা মুন্ডা। পরবর্তীতে রাজ্য সরকার যে ৩৩ জন খেলোয়াড়কে; চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল; তাতে নামও ছিল বিমলার। কিন্তু ফেব্রুয়ারি মাসে যাবতীয় নথিপত্রের কাজ হয়ে গেলেও; চাকরিতে যোগদানের চিঠি; এখনও পাননি ঝাড়খণ্ডের বিমলা মুন্ডা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন