যোগীর রাজ্যে শিশু মৃত্যুতে বেকসুর খালাস ডাক্তার কাফিল খান

77
যোগীর রাজ্যে শিশু মৃত্যুতে বেকসুর খালাস ডাক্তার কাফিল খান/The News বাংলা
যোগীর রাজ্যে শিশু মৃত্যুতে বেকসুর খালাস ডাক্তার কাফিল খান/The News বাংলা

নির্দোষ কাফিল। সিবিআই-এর তরফ থেকে ক্লিন চিট পেল উত্তরপ্রদেশের ডাক্তার; কাফিল খান। একসময় অক্সিজেন দিয়ে প্রাণ বাঁচিয়েছিল বহু শিশুর। কিন্তু সরকারী অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় তাঁকে। তাঁর বিরুদ্ধে মোট চারটি বিষয়ে অভিযোগ ওঠে। কিন্তু সিবিআই অফিসার; হিমাংশু কুমার ১৫ পাতার রিপোর্টে জানিয়ে দিল; কাফিলের বিরুদ্ধে ওঠা চারটি অভিযোগের একটিও সঠিক নয়।

সিবিআই রিপোর্টে স্পষ্ট বলা হয়েছে; কাফিল খান তাঁর কাজে ফাঁকি দেয়নি; বরং অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাওয়ার পরে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করে গেছেন। তাঁর প্রাইভেটে প্র্যাকটিস করা নিয়েও ওই রিপোর্ট বলেছে; ২০১৬ সালের পর থেকে প্রাইভেট প্র্যাকটিস বন্ধ করেছেন কাফিল। সরকারি হাসপাতালে কর্তব্যরত অবস্থায় অন্য কোথাও প্র্যাকটিস করেননি।

আরও পড়ুনঃ হিন্দুরা হিন্দুরাষ্ট্র চাইলে আমরা বাধা দেওয়ার কে, বিস্ফোরক তসলিমা

অন্যদিকে; যে এনসেফ্যালাইটিস বিভাগে চিকিৎসার গাফিলতির অভিযোগ উঠেছিল তাঁর বিরুদ্ধে সে বিভাগের দায়িত্বেই ছিলেন না কাফিল খান। তাই তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা প্রতিটি অভিযোগই মিথ্যে।

শুধু তাই নয়; হিমাংশু কুমারের ওই রিপোর্ট স্পষ্ট; এত দিন কাফিল খানের বিরুদ্ধে যা তদন্ত হয়েছে; যার ভিত্তিতে তাঁকে জেলে পাঠানো হয়েছিল; তার কোনও তথ্য-প্রমাণ মেলেনি। যখন হাসপাতালে অক্সিজেন বিপর্যয় হয়েছিল; তখন পদক্ষেপ নেওয়ার আগে কাফিল তাঁর উচ্চ কর্তৃপক্ষকেও জানিয়েছিলেন বলে প্রমাণ রয়েছে; কিন্তু তাঁরা কেউ কোন পদক্ষেপ নেয়নি।

আরও পড়ুনঃ রাজীব কুমার উধাও, কেন পুলিশে মিসিং ডাইরি করছেন না স্ত্রী

২০১৭ সালে শিশু-বিভাগে অক্সিজেন সরবরাহ হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায়। জানা যায়; সংস্থাকে ঠিক সময়ে টাকা দেয়নি গোরক্ষপুরের সরকারি হাসপাতাল। মৃত্যুর মুখে বহু শিশু। এই সময়ে নিজের উদ্যোগে অক্সিজেন সিলিন্ডার কিনে এনে; অনেকের প্রাণ বাঁচিয়েছিলেন হাসপাতালের শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ কাফিল খান।

কিন্তু ২০১৭ সালে; এই ঘটনার পরেই কাফিল খানকে রাতারাতি দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিয়েছিল যোগী আদিত্যনাথ সরকার। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয় দুর্নীতির, কাজে ফাঁকি দেওয়ার, প্রাইভেট প্র্যাকটিসের এবং চিকিৎসায় গাফিলতির।

এরপর পেরিয়ে গেছে ২ বছর। অবশেষে, এত দিন পরে নির্দোষ প্রমাণিত হলেন তিনি। তিনি জানিয়েছেন; “সরকারের সঙ্গে এই লড়াই ক্রমেই কঠিন হয়ে উঠছিল। আসল অপরাধীরা আজও বুক ফুলিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন