অমর গীতিকারকে গুগুলের শ্রদ্ধা নিবেদন

4025
অমর গীতিকারকে গুগুলের শ্রদ্ধা নিবেদন/The News বাংলা
অমর গীতিকারকে গুগুলের শ্রদ্ধা নিবেদন/The News বাংলা

জনপ্রিয় শীর্ষস্থানীয় প্রগতিশীল কবি ও চলচ্চিত্রের গীতিকার; কাইফি আজমীর জন্মবার্ষিকী। গুগল কাইফি আজমির জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে; একটি ডুডল তৈরি করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে। গুগলের এই গুগল ডুডলটি বিশেষ ভাবে তৈরি। এই ডুডলটিতে মাইকের সঙ্গে কাইফি আজমিকে দেখা যাচ্ছে। কাইফি আজমির জন্ম ১৯ জানুয়ারী ১৯১৯; উত্তর প্রদেশের আজমগড়ে। কাইফি আজমি ছিলেন উর্দুর একজন জনপ্রিয় কবি।

কাইফি আজমী হিন্দি চলচ্চিত্রের জন্য অনেক বিখ্যাত গান এবং গজল লিখেছিলেন। যার মধ্যে দেশপ্রেমের অমর গান “কর ছলে হম ফিদা, জান-ও-তান সাথীও”। তাঁর লেখা বিক্ষাত “ইয়ে দুনিয়া ইয়ে মেহফিল মেরে কাম কি নেহি” এবং “ঝুকি ঝুকি সি নাজার বে-করার হ্যায় ক্যয় নেহি” এর মতো সুন্দর গান উপহার দিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন ইতিহাস শাহজাহান ঔরঙ্গজেব পড়িয়েছে, তানাজি পড়ায়নি

সাহিত্যের ক্ষেত্রেও তাঁর অভূতপূর্ব অবদানের জন্য; তিনি বেশ কয়েকটি পুরষ্কারও পেয়েছিলেন। আসুন, জেনে নিন কাইফি আজমির জীবনের সম্পর্কিত কয়েকটি না জানা বিষয়। কাইফি আজমির আসল নাম; আখতার হুসেন রিজভী। শৈশব থেকেই পড়া ও লেখার শখ ছিল তাঁর। তিনি ১১ বছর; তাঁর বয়সে প্রথম কবিতা লিখেছিলেন।

কাইফি আজমি ছিলেন; ভারতের বিখ্যাত অভিনেত্রী শাবানা আজমির পিতা। কাইফি আজমির প্রথম বই ‘ঝাঁকর’ ১৯৪৪ সালে প্রকাশিত হয়েছিল। তাঁর অনেক দুর্দান্ত কবিতা; এই বইতে রয়েছে। কবি হিসাবে শুধু ভারতেই নয়; বিশ্ব জুড়ে গজল প্রেমী মানুষের কাছে প্রিয় কাইফি আজমি।

আরও পড়ুন ডাক্তারদের সুন্দরী নারীর টোপ দেবেন না, সতর্ক করলেন মোদী

কাইফি অতন্ত্য রোমান্টিক এবং আবেগপ্রবণ লেখক ছিলেন। তাঁর লেখায়; রোমান্টিকতার নতুন পথ উন্মুক্ত হয়েছিল। কেবল গীতিকার হিসাবেই নয়; চিত্রনাট্যকার হিসাবেও কাইফি আজমি নিজের প্রতিভাকে প্রকাশিত করেছেন। “হির-রঞ্জা” সিনেমাটিকে কাইফির লেখা কবিতা বলা যেতে পারে।

সাহিত্যের ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব অবদানের জন্য তাঁকে ভারত সরকার পদ্মশ্রী পুরষ্কার দিয়েছিল। শুধু তাই নয়, তাঁকে সাহিত্য আকাদেমি ফেলোশিপও দেওয়া হয়েছে। জাতীয় পুরস্কার ছাড়াও তিনি বেশ কয়েকবার ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিলেন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন