অপরাজিত অযোধ্যা দিয়েই নতুনযাত্রায় কঙ্গনা রানাওয়াত শুরু করলেন রাম মন্দির

188
অপরাজিত অযোধ্যা দিয়েই নতুনযাত্রায় কঙ্গনা রানাওয়াত শুরু করলেন রাম মন্দির/The News বাংলা
অপরাজিত অযোধ্যা দিয়েই নতুনযাত্রায় কঙ্গনা রানাওয়াত শুরু করলেন রাম মন্দির/The News বাংলা

অযোধ্যা নিয়ে এখনও মামলা চলছে সুপ্রিম কোর্টে; আর তার মাঝেই সুখবর দিল বলিউড। অয্যোধ্যা মামলা নিয়ে সিনেমা করবে বলিউড। আর সেই ছবির প্রযোজক হিসাবে থাকবেন; অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। চ্যালেঞ্জিং বিষয় নিয়ে কাজ করা তাঁর স্বভাব। আর সেই জন্যই; নিজের প্রথম প্রযোজিত ছবি চ্যালেঞ্জিং ও বিতর্কিত বিষয় নিয়েই। এই সিনেমা নিয়ে খুব আশাবাদী অভিনেত্রী। মুম্বইয়ের প্রথম সারির একটি স্ট‌ুডিওর সঙ্গে এই বিষয়ে কথাবার্তাও চূড়ান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন কঙ্গনা।

কঙ্গনা নিজের প্রযোজনা সংস্থার নাম দিয়েছেন; মণিকর্ণিকা ফিল্মস প্রাইভেট লিমিটেড। আর তাঁর প্রথম ছবি হতে চলেছে; ‘অপরাজিত অযোধ্যা’। ছবির স্ক্রিপ্ট লিখবেন; বাহুবলী সিরিজের লেখক কেভি বিজয়েন্দ্র প্রসাদ।

আরও পড়ুনঃ শুধু রামমন্দির রায় নয়, অবসরের আগে ভারত কাঁপানো আরও সিদ্ধান্ত দিচ্ছেন রঞ্জন গগৈ

ইতিমধ্যেই পরিচালনার কাজে হাত পাকিয়েছেন কঙ্গনা; তবে প্রযোজনা এই প্রথম। যখন প্রযোজনায় হাত দেওয়ার কথা ভাবলেন; তখন অযোধ্যায় রাম মন্দির তৈরির মতো বিষয় বেছে নিলেন তিনি। কঙ্গনা জানিয়েছেন; ‘৮০-র দশকে জন্ম হওয়ায় ছোট থেকেই অযোধ্যা বিতর্ক শুনেই আমি বড় হয়েছি। কয়েকশো বছর ধরে এই বিষয়টি বহু মানুষকে ভাবিয়ে এসেছে’।

তিনি জানিয়েছেন; ‘ভারতীয় রাজনীতির চেহারাই বদলে দিয়েছে বিতর্কিত এই জমি। সুপ্রিম কোর্টের রায়; আমাদের ধর্ম নিরপেক্ষতা এবং সহিষ্ণুতার ছবিকেই সঠিকভাবে তুলে ধরেছে’। অনেকদিন ধরে এই ইস্যুটি নিয়েই এত আলোচনা-সমালোচনা। তাই তাঁর প্রযোজিত; প্রথম ছবির জন্য এই ইস্যুটিকেই বেছে নিয়েছেন অভিনেত্রী।

সিনেমা নিয়ে তিনি বলেন; ‘অপরাজিত অযোধ্যা’ আসলে একজনের নাস্তিক থেকে আস্তিকে পরিণত হওয়ার গল্প। আমাদের দেশের একতা ও ধর্মনিরপেক্ষতাকে নষ্ট করার অনেক চেষ্টা হয়েছে। তবু আমরা আমাদের বিশ্বাসকে হারিয়ে যেতে দিইনি। এই বিশ্বাসের গল্পই শোনাবে অপরাজিত অযোধ্যা’।

যদিও এটা প্রথম নয়। অযোধ্যা মামলাকে কেন্দ্র করে এর আগেও সিনেমা তৈরি হয়েছে। বাবরি মসজিদ ধ্বংস ও সেই জায়গায় রামের মন্দির প্রতিষ্ঠা নিয়ে তৈরি হয়েছে ‘রাম কে নাম’ তথ্যচিত্র। ১৯৯০ সালে আডবানীর রথযাত্রা; মসজিদের মধ্যে হঠাৎই রামের মূর্তির দেখা সব কিছুই আছে ওই তথ্যচিত্রে। তথ্যচিত্রে যেমন আটের দশকের সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার কথা তুলে ধরা হয়েছে, তেমনই নাথুরাম গডসের হাতে মহাত্মা গান্ধীর মৃত্যু সংক্রান্ত ক্লিপিংসও দেখানো হয়েছে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন