কাশ্মীর ইস্যুর পর, বাংলার পতাকা বাজারে জাতীয়তাবোধের জোয়ার

174
কাশ্মীর ইস্যুর পর, বাংলার পতাকা বাজারে জাতীয়তাবোধের জোয়ার/The News বাংলা
কাশ্মীর ইস্যুর পর, বাংলার পতাকা বাজারে জাতীয়তাবোধের জোয়ার/The News বাংলা

কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ও ৩৫এ ধারা তোলার প্রভাব; এবার পড়তে চলেছে পতাকার বাজারেও। পতাকা প্রস্তুতকারীদের বক্তব্য; অন্তত তেমনটাই। গত সোমবার কেন্দ্রীয় সরকারের ঘোষনার পর; তেরঙ্গার চাহিদা স্রেফ যে বেড়েছে তাই নয়; হয়েছে প্রায় দ্বিগুণ। হাওড়ার একাধিক পতাকা মার্কেটের ছবিটা এরকমই। ক্লাব সংগঠন বা সরকারি প্রতিষ্ঠানের অর্ডারই নয়; ব্যক্তিগতভাবে বাড়িতে পতাকা লাগানোর জন্যও কিনছেন অনেকেই। কাশ্মীর ইস্যুর পর; বাংলার পতাকা বাজারে জাতীয়তাবোধের জোয়ার এসেছে।

মোদী সরকারের ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ প্রকল্প; বেশ অন্য চেহারাই নিয়েছে। তার ফলস্বরূপ স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে; ভারতীয় জাতীয় পতাকার চাহিদা এখন তুঙ্গে। হাতে গোনা আর কয়েকটা দিন। তারপরেই গোটা দেশ জুড়ে পালিত হবে; ৭২ তম স্বাধীনতা দিবস।

আরও পড়ুনঃ দুর্গা পুজোতে ট্যাক্স মোদী সরকারের, মঙ্গলবার ধর্নায় বসছে মমতা

আর এসবকিছুর মূলেই রয়েছে; স্বাধীনতার চেতনাকে উজ্জীবিত রাখা। জাতীয় চেতনাকে তুলে ধরার ক্ষেত্রে; জাতীয় পতাকা অন্যতম একটি মাধ্যম। তাই ভারতবাসীর মনে জাতীয়তাবোধ জাগাতে; জাতীয় পতাকাকে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শুরুকরে; বিভিন্ন সরকারি অফিস; ক্লাব কিংবা অনেক বাড়িতেও উড়ানো হবে এই জাতীয় পতাকা। সারা বছর না হলেও স্বাধীনতা দিবস এলেই; পতাকার চাহিদা বাড়ে। দিবসটি উদযাপনকে কেন্দ্র করে; পতাকার চাহিদা অন্যান্য বছরের চেয়ে এই বছরে অনেক বেশি।

আরও পড়ুনঃ জম্মু কাশ্মীরে জইশ সন্ত্রাসবাদীদের বড়সড় হামলার আশঙ্কা, বহাল কড়া নিরাপত্তা

পতাকা তৈরির ব্যবসায়ী রাজীব হালদার বলছেন; এই বছরে পতাকা তৈরির চাহিদা বেশ ভালো। প্রায় ২০-২৫ জন শ্রমিক কাজ করছে; তাঁর কারখানায়। প্রায় ৪০ বছর ধরে এই ব্যবসা তারা চালাচ্ছেন। বিভিন্ন ধরণের ছোট বড় পতাকা তৈরিতে এই মুহূর্তে কর্মব্যস্ততা তার কারখানাতে। কাগজের পতাকা হোক বা কাপড়ের নানা সাইজের। সব পতাকার অর্ডারই বেশ ভালো। বিশেষত গত সোমবারের পর থেকে তা বেড়েছে।

তেরঙা পতাকা দেশের ঐতিহ্য; সংষ্কৃতি ও গর্বের প্রতীক। গেরুয়া; সাদা; সবুজ রঙগুলি ত্যাগ; শক্তি ও উন্নতির প্রতীক হিসাবে চিহ্নিত হয়ে রয়েছে। আর তার মাঝে বসা অশোক চক্র মানবতার ‘ধর্ম চক্র’। মোদী সরকারের শাসনকালে এর চাহিদা বেড়েই চলেছে। মোদী সরকারের সাফল্যে যোগ হচ্ছে আরও এক একমাত্রা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন