আর্টিকেল ৩৭০ বাতিল হওয়ায় প্রভাব শেষ, হুরিয়াত ছাড়তে বাধ্য হলেন সৈয়দ গিলানি

2939
আর্টিকেল ৩৭০ বাতিল হওয়ায় প্রভাব শেষ, হুরিয়াত ছাড়তে বাধ্য হলেন সৈয়দ গিলানি
আর্টিকেল ৩৭০ বাতিল হওয়ায় প্রভাব শেষ, হুরিয়াত ছাড়তে বাধ্য হলেন সৈয়দ গিলানি

কাশ্মীর থেকে বিশেষ সাংবিধানিক ক্ষমতা; আর্টিকেল ৩৭০ বাতিল হওয়ায়; প্রভাব শেষ হয়ে গিয়েছিল। এবার তাই, হুরিয়াত কনফারেন্স ছাড়তে বাধ্য হলেন সৈয়দ গিলানি। কাশ্মীর থেকে উঠে গেছে; আর্টিকেল ৩৭০। কেন্দ্রের টাকা আসা বন্ধ। এছাড়া ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর; কড়া নজরে বোতলবন্দি। এর জেরেই, হুরিয়াত কনফারেন্স ছাড়তে বাধ্য হলেন সৈয়দ গিলানি। ভারতীয় সেনা বাহিনীর এক আধিকারিক জানিয়েছেন; “পাকিস্তানের পক্ষে আর সৈয়দ গিলানি; আর ততটা প্রভাবশালী নন। কাশ্মীরে কোন কাজ করতে পারছেন না। তাই গিলানির উপর থেকে; হাত সরিয়ে নিয়েছে পাকিস্তান। তাই এই সিদ্ধান্ত নিতেই হত”।

আরও পড়ুনঃ পাহাড় যুদ্ধে চিনকে কচুকাটা করতে, লাদাখে এল ভয়ঙ্কর গোর্খা বাহিনী

এর আগে বছরখানেক আগেই; তেহরিক-ই-হুরিয়তের চেয়ারম্যান পদ থেকে ইস্তফা দেন; সৈয়দ আলি শাহ গিলানি। এখন ওই দায়িত্ব সামলাচ্ছেন; তাঁর ঘনিষ্ঠ সহযোগী মহম্মদ আশরফ সেহরাই। এর পরে গিলানি কট্টরপন্থী অল পার্টি হুরিয়ত কনফারেন্স (গিলানি)-র শীর্ষ পদ থেকেও; সরে দাঁড়াতে পারেন বলেই তাঁর ঘনিষ্ঠ সূত্রে খবর ছিল। মোদী সরকার, কাশ্মীর থেকে আর্টিকেল ৩৭০ তুলে দেবার পর; সেই কাজটাই এবার করতে হল গিলানিকে। যদিও, তাঁর সমর্থকরা বলেছেন; ‘বয়সের কারণেই এই সিদ্ধান্ত”।

আরও পড়ুনঃ লাদাখে ভারত চিন যুদ্ধ পরিস্থিতি, ৪৫ হাজার ভারতীয় জওয়ান যাচ্ছে সীমান্তে

পাকিস্তানপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা হিসেবে; আজীবন কাশ্মীরের অশান্তিতে বড় ভূমিকা নিয়েছেন গিলানি; এমনটাই অভিযোগ। বিছিন্নতাবাদী নেতা হিসাবে; পাক মদতে উপত্যকায় অশান্তি ছড়াতে তিনি অন্যতম মুখ্য ভূমিকা নেন বলে; বারবার অভিযোগ তুলেছে দিল্লি। জঙ্গি দমন অভিযানের সময়ে; বাহিনীকে লক্ষ করে পাথর ছোড়ার পিছনে তিনিই মদত দিতেন; বলে মনে করেন গোয়েন্দারা। সেই গিলানি রাজত্ব এবার শেষ হল বলেই মনে করছে; ভারতের স্বরাষ্ট্র দফতরও।

ভারতীয় সেনা বাহিনীর এক আধিকারিক জানিয়েছেন; “গিলানি আর পাকিস্তানের হয়ে; টেরর ফান্ড করতে পারছেন না। পাক নতুন মুখ চাইছে; নতুন নেতা চাইছে, ভারতের বিরুদ্ধে কাশ্মীরি যুবকদের ব্যবহার করতে। আর তাই এবার জমানা খতম গিলানির”। তবে, গিলানির প্রভাব শেষ হবার পিছনে; মোদী সরকারের কাশ্মীর থেকে বিশেষ ক্ষমতা আর্টিকেল ৩৭০; তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্তকেই দেখছেন অনেকেই।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন