কেদারনাথ বদ্রিনাথ ট্যুর, খুব সস্তায় কিভাবে বেড়াবেন ‘স্বর্গের সফরে’

781
কেদারনাথ বদ্রিনাথ ট্যুর, খুব সস্তায় কিভাবে বেড়াবেন 'স্বর্গের সফরে'
কেদারনাথ বদ্রিনাথ ট্যুর, খুব সস্তায় কিভাবে বেড়াবেন 'স্বর্গের সফরে'

কেউ কেউ বলেন; ‘স্বর্গের সফর’। কেউ কেউ বলেন, “এখানে না গেলে; সবকিছুই দেখা অসম্পূর্ণ থেকে যায়”। কেউ বলেন, “বাবা মহাদেবের এলাকা”। কেদারনাথ বিপর্যয়ের পরে তো; এই সফর আরও মুল্যবান হয়ে উঠেছে। সেই কেদারনাথ বদ্রিনাথ ট্যুর; খুব সস্তায় কিভাবে বেড়াবেন। কেদারনাথ ও বদ্রিনাথ যাঁরা সস্তায় ঘুরতে চান; তাঁদের উদ্দেশ্যেই এই লেখা। প্রথমে একটা ট্রাভেল প্লান দিচ্ছি; তারপর ধাপে ধাপে বাকি সব কিছু বলে দেওয়া হবে। কলকাতা হাওড়া বা শিয়ালদা থেকে; ট্রেনে সরাসরি পৌঁছে যান হরিদ্বার। তারপর থেকেই; শুরু করুন এই বেড়ানো।

আরও পড়ুনঃ লকডাউন উঠলেও পকেটে টান, বেড়াতে গিয়ে খুব কম খরচে থাকুন ভারত সেবাশ্রম সংঘে

▪️ ট্রাভেল প্লান:
▪ ৮ রাত্রি ৯ দিনের ট‍্যুর (HARIDWER TO HARIDWER)

▪️ কি কি দেখবেন:
হরিদ্বার; বাবা কেদারনাথ; বদ্রি নারায়ণ; শোনপ্রয়াগ; গুপ্তকাশী; তুঙ্গনাথ; ঋষিকেশ, দেবপ্রয়াগ, যোশীমঠ, রুদ্রপ্রয়াগ, কর্ণপ্রয়াগ, নন্দপ্রয়াগ, বিষ্ণুপ্রয়াগ, আউলি, মানাগ্রাম ইত‍্যাদি।

▪️ কিভাবে সাজাবেন এই ট্যুর:
▪️ প্রথম দিন; প্রথম দিন বিকালে পৌঁছে যাবেন হরিদ্বার। হোটেলে পৌঁছে ফ্রেশ হয়েই চলে যাবেন; হরিদ্বার এর হর কি পৌরি ঘাটে সন্ধ্যা আরতি দেখতে। রাত্রিবাস করবেন; অবশ্যই হরিদ্বারেই।

▪️ দ্বিতীয় দিন: দ্বিতীয় দিনে খুব ভোরে হরিদ্বার থেকে রওনা হতে হবে; এই দিনের জার্নি হবে সবচেয়ে বেশি দূরত্বের। গন্তব্য শোনপ্রয়াগ; গুপ্তকাশী; সীতাপুর; ফাটা। পথে দেখে দেখে নেবেন; বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান ও প্রয়াগ। উপরে দেওয়া জায়গাগুলির মধ্যে, যে কোন একটা জায়গায়; রাত্রিবাস করতে হবে। সস্তায় যেতে হলে আগের দিন রাত্রের মধ্যে হরিদ্বার থেকে; সরকারি বাসের টিকিট কেটে নেবেন। কারণ পরের দিন ভোর ৬টা নাগাদ; বাস ছেড়ে চলে যাবে। তাই বাসে যেতে হলে, একদিন আগেই খোঁজখবর নিয়ে; সিট বুকিং অবশ্যই প্রয়োজন। খরচা বেশি হবে; তবে প্রাইভেট গাড়িও আছে।

▪️ তৃতীয় দিন; তৃতীয় দিনে আপনি সীতাপুর; শোনপ্রয়াগ; গুপ্তকাশী বা ফাটা যেখানেই থাকুন না কেন; সেখান থেকে শেয়ার গাড়িতে গৌরিকুন্ড পৌঁছে; তারপর হেঁটে (২২.৫ কিমি) যেতে হবে বাবা কেদারনাথ দর্শন করতে। এখানে পায়ে হেঁটে ছাড়াও; হেলিকপ্টার; ডুলি; ঘোড়া ইত্যাদির সুবিধা আছে। তবে সস্তায় হবে; হেঁটে গেলেই। ওঠার সময় ছোট্ট একটা ব্যাগ ও রেইন কোট বা ছাতা নিয়ে নেবেন; বাকি বড় লাগেজ হোটেলে রেখে যাবেন।
রাত্রিবাস কেদারনাথ মন্দিরের কাছের; কোন হোটেলে বা আশ্রমে।

Kedarnath Badrinath Tour
কেদারনাথ বদ্রিনাথ ট্যুর, খুব সস্তায় কিভাবে বেড়াবেন 'স্বর্গের সফরে'

▪️ চতুর্থ দিন; সকাল সকাল কেদারনাথ বাবাকে দর্শন করে; পুজো দিয়ে ফিরে আসবেন নীচে এবং থাকবেন আগের দিনের হোটেলেই। তবে এক্ষেত্রে সিতাপুরে থাকা বেস্ট। হোটেলে বিশ্রাম নিয়ে; রাত্রিবাস সিতাপুরে।

▪️ পঞ্চম দিন; সিতাপুরে থেকে যাত্রা শুরু; চোপতা ভ্যালির উদ্দেশ্যে। এই দিন এখানেই থাকবেন; প্রকৃতির রূপ মন ভরে দেখবেন। তবে যাঁরা তুঙ্গনাথ যেতে চাইবেন, তাঁরা হোটেলে রেস্ট না নিয়ে; চোপতা পৌঁছেই ট্রেক শুরু করে দেবেন। যাওয়া আসা মিলিয়ে তুঙ্গনাথ ট্রেক ৭ কিমি হলেও; সময় লাগবে পরায় ৪-৫ ঘন্টা। এদিনের রাত্রিবাস চোপতা।

▪️ ষষ্ঠ দিন; এই দিন খুব সকাল সকাল চোপতা-কে বিদায় জানিয়ে; বেড়িয়ে পড়বেন বদ্রিনাথ এর উদ্দেশ্যে। পথে দেখে নেবেন চোপতা ভ্যালি; জসিমঠ; গোবিন্দঘাট; বিষ্ণুপ্রয়াগ এইসব। পৌঁছাতে সন্ধ্যে হয়ে যাবে প্রায়; রাত্রিবাস বদ্রিনাথ।

▪️ সপ্তম দিন; সপ্তম দিনে সকালে প্রথমে বদ্রিনারায়ণ দর্শন করবেন; ঘুরে দেখবেন বদ্রিনাথ মন্দির। বিকালে মানাগ্রাম, ভারতের শেষ গ্রাম ঘুরে দেখে; ফিরে আসা জসিমঠে, রাত্রিবাস ওখানেই।

▪️ অষ্টম দিন; এই দিন সকালে জসিমঠ থেকে বেড়িয়ে প্রথমে যাবেন আউলি; সেখানে বেশ কিছুক্ষণ কাটিয়ে এগিয়ে যাবেন রুদ্রপ্রয়াগের দিকে; রাত্রিবাস রুদ্রপ্রয়াগেই।

▪️ নবম দিন; রুদ্রপ্রয়াগ থেকে সোজা হরিদ্বার রেলওয়ে স্টেশন; যাওয়ার পথে দেখে নিতে পারেন ঋষিকেশ এর রামঝুলা ও লক্ষণঝুলা। এরপর রাত্রে কলকাতা ফেরার; ট্রেন ধরা। তবে কেনাকাটা করার থাকলে বা ঋষিকেশ আরেকটু ভালো ভাবে ঘুরতে হলে; অবশ্যই শেষ আরেকটা দিন হরিদ্বারে রাত কাটাতে পারবেন। সেক্ষেত্রে, সেইভাবেই ট্রেনের টিকিট; কাটতে হবে আপনাকে। এই ট্যুর সস্তায় করতে হলে, শেয়ার ট্যাক্সি, সরকারি বাস; এইসব ধরেই যেতে হবে।

Kedarnath Badrinath Tour
কেদারনাথ বদ্রিনাথ ট্যুর, খুব সস্তায় কিভাবে বেড়াবেন 'স্বর্গের সফরে'

▪️ থাকবেন কোথায়; এই ট্যুরে বহু জায়গায় ভারত সেবাশ্রম; পেয়ে যাবেন। সস্তায় থাকা ও খাওয়া; হয়ে যাবে। এছাড়া GMVN (গাড়োয়াল মন্ডল বিকাশ নিগম) এর; ডর্মিটোরি আছে। খুব সস্তায় জনপ্রতি ৪০০ টাকায়; ভালোভাবেই থাকতে পারবেন। সব সিঙ্গল বেড, পরিষ্কার বিছানা; তবে কমন টয়লেট।

▪️ খাওয়া; ভারত সেবাশ্রম বা অন্য কোনও হোটেলে বা লজে; খাবার পেয়ে যাবেন। GMVN এর রুম বা ডর্মিটোরি নিলেও; সেখানে খাবার পেয়ে যাবেন।

▪️ কিছু জরুরী টিপস;
১. হেঁটে যখন উঠবেন, ভালো জুতো অবশ্যই; কিনে নিয়ে তবেই যাবেন।
২. হালকা লাগেজ নিয়ে যাবেন, লাগেজ যত ভারী হবে; ততই আপনার পরিশ্রম বাড়বে।
৩. পরিমিত নিরামিষ খাবার খাবেন, প্রচুর জল খাবেন; আর যাবার দুই তিন আগে থেকেই প্রতিদিন ৫-৬ কিমি হাঁটা প্র্যাকটিস করতে থাকুন।
৪. সব রকমের মেডিসিন নিয়ে নেবেন; একটা ছোট্ট মেডিসিন বক্স রাখবেন।
৫. স্মোকিং ও ড্রিংকিং না করার চেষ্টা করবেন; দম বেশি থাকবে।
৬. সঙ্গে কিছু ড্রাই ফ্রুটস, চকোলেট; অবশ্যই নিয়ে নেবেন।
৭. রেইন কোট বা ছাতা অবশ্যই যেন; প্যাকিং লিস্টে থাকে।
৮. পূজার সময় বা তার পরে গেলে, অবশ্যই ভালো পরিমানে; শীতের পোশাক নিয়ে যাবেন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন