৭০ বছর ধরে ভারতের করদাতাদের, ১০ শতাংশ টাকা গেছে কাশ্মীরের পাকপ্রেমী নেতাদের পকেটে

2989
৭০ বছর ধরে ভারতের করদাতাদের, ১০ শতাংশ টাকা গেছে কাশ্মীরের পাকপ্রেমী নেতাদের পকেটে/The News বাংলা
৭০ বছর ধরে ভারতের করদাতাদের, ১০ শতাংশ টাকা গেছে কাশ্মীরের পাকপ্রেমী নেতাদের পকেটে/The News বাংলা

১ শতাংশ মানুষ পাচ্ছে; ১০ শতাংশ টাকা। গল্প হলেও সত্যি। ৭০ বছর ধরে ভারতের করদাতাদের; ১০ শতাংশ টাকা কাশ্মীরকে দিয়েও, অর্থনীতি দুর্বল কাদের জন্য? উঠে গেছে প্রশ্ন। কেন এতদিনেও উন্নতি হল না কাশ্মীরের। কাশ্মীর উপত্যকা দেশী এবং বিদেশী পর্যটকদের জন্য; একটি জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র। কাশ্মীরের সৌন্দর্য; গুলমার্গের স্কি রিসোর্ট; ডাল হ্রদের জনপ্রিয় হাউসবোট; পাহলগম এর মনমুগ্ধকর রুপ এবং হিন্দু মঠ অমরনাথ মন্দির। তবু উন্নতি নেই কাশ্মীরের! কেন?!

প্রতি বছর ভারত সরকারের কাছ থেকে; আর্থিক সাহায্য পেয়েছে কাশ্মীর। কিন্তু রাজ্যের কোন উন্নতি হয় নি। কাশ্মীরের অর্থনৈতিক বৃদ্ধি হয়নি। শুধু জঙ্গি কার্যকলাপ বৃদ্ধি পেয়েছে। ভারতের আর্থিক সাহায্য পেয়ে; ভারতেরই সেনার উপর হামলার ঘটনা বেড়েছে। এর জন্য দায়ি কারা? জম্মু কাশ্মীরের সব রাজ্য সরকারই; ভারতের করদাতাদের ১০ শতাংশ টাকা পেয়েছে। কিন্তু দুঃখের বিষয় এটাই; তাদের সহানুভূতি সবসময় ছিল; পাকিস্তানের প্রতি।

আরও পড়ুনঃ কাশ্মীরে অশান্তির ছক পাকিস্তানের, পাক অধিকৃত কাশ্মীরে জঙ্গি বৈঠক

পর্যটন কাশ্মীরের অর্থনীতির একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এছাড়া হাজার হাজার হিন্দু তীর্থযাত্রীরা; প্রতিবছর অমরনাথের পবিত্র স্থান পরিদর্শন করে এবং এটি উল্লেখযোগ্যভাবে রাজ্যের অর্থনীতির উপকার করে। কাশ্মীর উপত্যকায় পর্যটন সাম্প্রতিক বছরগুলিতে বেড়েছে। কাশ্মীর এখনও ভারতের শীর্ষ পর্যটক গন্তব্যস্থলগুলির মধ্যে একটি। তবু কাশ্মীরের অর্থনীতি বাড়ে নি।

পর্যটন ছাড়া আর কিছুই নেই কেন? কেন পর্যটন পরিকাঠামোর কোন উন্নতি নেই। অথচ ৭০ বছর ধরে সব ভারত সরকার; ভারতের করদাতাদের ১০ শতাংশ টাকা কাশ্মীরকে দিয়ে আসছে। দেশের মাত্র এক শতাংশ মানুষ পাচ্ছে; ভারতের আয়করের ১০ শতাংশ টাকা। তবু অর্থনীতি দুর্বল। কিন্তু কেন? ভারত সরকারের টাকা; ভারতের আমজনতার টাকা কাদের পকেটে গেল? উঠে গেছে প্রশ্ন।

১৯৫৭-৫৮ থেকে ১৯৬১-৬২ কাশ্মীরের মানুষ; ভারত সরকারের কাছ থেকে মাথাপিছু পেয়েছে প্রায় ৪২ টাকা করে। সেখানে ভারতের অন্যান্য রাজ্যের মানুষ পেয়েছে গড়পড়তা মাত্র ৬ টাকা করে। এখনও ভারত সরকার; প্রতিটি কাশ্মীরিকে দেয় মাথাপিছু ১১৭ টাকা করে। সেখানে ভারতের বাকি রাজ্যের মানুষ পায় মাত্র ৫৭ টাকা করে।

আরও পড়ুনঃ পাক জইশ হামলার আশঙ্কা, ভারতের সব বড় শহরে চরম সতর্কতা

ভারতের মোট জনসংখ্যার ১৩ শতাংশ মানুষ থাকেন উত্তরপ্রদেশে। ২০০০ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত উত্তরপ্রদেশ পেয়েছে ভারত সরকারের ৮.২ শতাংশ আর্থিক সাহায্য। অন্যদিকে এই সময়ে ভারতের মোট জনসংখ্যার মাত্র ১ শতাংশ মানুষ থাকা কাশ্মীর পেয়েছে; ভারত সরকারের ১০ শতাংশ আর্থিক সাহায্য। প্রায় ১.১৪ লাখ কোটি টাকা। কিন্তু তবু কাশ্মীরের উন্নতি হয় নি। কাশ্মীরিদের উন্নতি হয় নি। তাহলে এত টাকা কোথায় গেল!

ক্যাগ রিপোর্টে প্রমাণ হয়ে গেছে; কাশ্মীরের উন্নতির জন্য ভারত সরকারের টাকা খরচ হয় নি। প্রমাণ না হলেও তদন্তে পরিষ্কার বোঝা যায়; কাশ্মীরের বিভিন্ন দলের নেতাদের পকেট ভর্তি হয়েছে ভারতবাসীর করের টাকায়। ক্যাগ রিপোর্টে প্রমানিত; কোন রাজ্য সরকারই রাজ্যের উন্নতি ও বিকাশের কোন কাজ করে নি। খাবার জল, কর্মসংস্থান, পরিকাঠামোর উন্নতি; কোনটাই হয়নি শেখ আবদুল্লা বা ফারুক আবদুল্লা বা ওমর আবদুল্লা বা মুফতি মহম্মদের আমলে।

২০০৪ থেকে ২০১১; কংগ্রেস আমলেও কেন্দ্র সরকারের দেওয়া পরিকাঠামোর উন্নতির জন্য ৩২০০০ কোটি টাকার এক তৃতীয়াংশ খরচা করতে পারে নি কোন রাজ্য সরকার। তদন্তে পরিষ্কার; ৭০ বছর ধরে ভারতের করদাতাদের, ১০ শতাংশ টাকা গেছে কাশ্মীরের পাকপ্রেমী নেতাদের পকেটে। প্রমাণ হয়ে গেছে; কাশ্মীরকে বিশেষ ক্ষমতাসম্পন্ন রাজ্য রেখে; ৭০ বছরে কোন লাভ হয়নি ভারতের।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন