কুণাল ঘোষ ও ‘পেড মিডিয়া’কে চরম লজ্জায় ফেললেন লকেট চট্টোপাধ্যায়

3331
কুণাল ঘোষ ও 'পেড মিডিয়া'কে চরম লজ্জায় ফেললেন লকেট চট্টোপাধ্যায়
কুণাল ঘোষ ও 'পেড মিডিয়া'কে চরম লজ্জায় ফেললেন লকেট চট্টোপাধ্যায়

কুণাল ঘোষ ও ‘পেড মিডিয়া’কে; চরম লজ্জায় ফেললেন লকেট চট্টোপাধ্যায়। ‘আপনি আগে মমতার হার বাঁচান”; এরকমই জবাব দিয়ে তৃণমূল মুখপাত্র কুণালের মুখ বন্ধ করলেন লকেট। সেই সঙ্গে একহাত নিলেন; বাংলার সংবাদমাধ্যমকেও। রাজ্য তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদকের, একটি ট্যুইট ঘিরেই; জল্পনা বাড়ে। রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন ছড়ায়; তবে কি বাবুলের পর লকেটও তৃণমূলে? বাংলার একটি বিখ্যাত সংবাদমাধ্যমে, এও দাবি করা হয়েছে; লকেট কালীঘাটে গিয়ে অভিষেক ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেছেন। এবার মুখ খুলে, কুণাল ও সেই সংবাদমাধ্যমকে; ব্যঙ্গ করলেন সাংসদ লকেট।

ভবানীপুরে প্রচার করতে দেখা যায়নি; হুগলির বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়কে। ভোটের প্রচারে তাঁর অনুপস্থিতি নিয়েই; ট্যুইট করেন তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। তিনি লেখেন, “ভবানীপুরে প্রচার না করার জন্য; ‘তারকা প্রচারক’ লকেট চট্টোপাধ্যায়কে ধন্যবাদ এবং শুভেচ্ছা। বিজেপির তরফে বহুবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও; আপনি আসেননি। আপনি যেখানেই থাকুন, বন্ধু হিসেবে; সাফল্য কামনা করব। পৃথিবীটা খুব ছোট। আশা করি সেই দিনগুলো ফিরে আসবে; যখন আপনি রাজনৈতিক জীবন শুরু করেছিলেন”।

আরও পড়ুনঃ মুখ্যসচিবের ভূমিকায় তীব্র অসন্তোষ, নির্বাচন কমিশনকে জরিমানা, হাইকোর্টে চরম লজ্জায় দুই প্রশাসন

এরপরেই আসরে নামেন; বিজেপি নেত্রী লকেট। লকেট চট্টোপাধ্যায় নিজের ট্যুইটার অ্যাকাউন্টে, একটি পোস্ট করে; ওই দুই বিষয়েই ক্ষোভ উগরে দেন। সেখানে তিনি লেখেন; ‘আমি সচারচর ভুয়ো খবরকে পাত্তা দিইনা। কিন্তু এই খবর নিয়ে; মুখ খুলতে বাধ্য হলাম। সবার আগে বলে দিই; আমি ‘আয়ারাম গয়ারাম’ রাজনীতিতে বিশ্বাসী নই। আমার বিরুদ্ধে কিছু সংবাদমাধ্যম ভুয়ো খবর ছড়াচ্ছে; তাঁরা এভাবেই বিশ্বাসযোগ্যতা নষ্ট করছে”।

আরও পড়ুনঃ দুর্গাপুজোর পরেই ফের ভোট বাংলায়, কোমর বাঁধছে তৃণমূল বিজেপি

লকেট চট্টোপাধ্যায় আরও বলেন; ‘সামনের বছর উত্তরাখণ্ড বিধানসভা নির্বাচনে; সহ-পর্যবেক্ষক করা হয়েছে আমাকে। বাংলা প্রথমবার কোনও মহিলা; অন্য কোন রাজ্যে এতবড় দায়িত্ব পেলেন। এসবের মধ্যে আমি কেন; বিজেপি ছাড়তে যাব? হাতের সামনে থাকা জাতীয় রাজনীতিতে কাজ করার সুযোগ ছেড়ে দিয়ে; রাজ্য রাজনীতির মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকার কোন কারণ তো দেখতে পাচ্ছি না আমি’। সেই সঙ্গে কুণাল ঘোষকে তিনি; ভবানীপুরে মমতার হার বাঁচাতে পরামর্শ দেন। তবে এই নিয়ে; এখনও মুখ খোলেননি কুণাল ঘোষ।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন