চোপড়া বাস স্টান্ডে বাইক বাহিনীর হাতে আক্রান্ত ভোটাররা

688
চোপড়া বাস স্টান্ডে বাইক বাহিনীর হাতে আক্রান্ত ভোটাররা/The News বাংলা
চোপড়া বাস স্টান্ডে বাইক বাহিনীর হাতে আক্রান্ত ভোটাররা/The News বাংলা
Simple Custom Content Adder

উত্তর দিনাজপুরের চোপড়া বাস স্টান্ডে বাইক বাহিনীর হাতে আক্রান্ত ভোটাররা। দিঘির কলোনির মিদ্যা অঞ্চলে মহিলাদের রাস্তায় ফেলে মারধরের অভিযোগ। প্রতিবাদে পথ অবরোধ সাধারণ ভোটারদের। লোকসভা ভোট গ্রহণের শুরুতেই এদিন গণ্ডগোল শুরু হয় চোপড়ায়।

আরও পড়ুনঃ মাওবাদীদের গুলিতে নিহত মহিলা নির্বাচন কমিশন আধিকারিক

জাতীয় সড়ক অবরোধ করে জনগণ। পুলিশের বিরুদ্ধে নিষ্ক্রিয় থাকার অভিযোগ। পুলিশের সাথে কথা কাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়ে জনতা। অভিযোগ জানায় বাইক বাহিনীর বিরুদ্ধে। কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকার অভিযোগ ভোটারদের। পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে অভিযোগ পেলে তবেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। চোপড়ার ১৮০ নাম্বার বুথের ভোট চলাকালীন প্রায় ৩০০ মানুষকে আটকে দেওয়া হয়।

আরও পড়ুনঃ BIG BREAKING: কাশ্মীরের ত্রালে সিআরপিএফ ক্যাম্পে জঙ্গি হামলা

নিজেকে বিজেপি সমর্থক জানিয়ে এক ব্যক্তি সরাসরি তৃণমূল এর বহিরাগতর দিকে অভিযোগ করেন। অপরদিকে তৃণমূলের তরফ থেকে অভিযোগ অস্বীকার করা হয়।

আরও পড়ুনঃ ফিরদৌসের পর বিপাকে পড়তে চলেছেন বাংলাদেশের আরেক অভিনেতা

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গত সপ্তাহে সভা করেন চোপড়াতে। সেই জনসভা থেকে তিনি বার্তা দেন, ‘চোপড়াতেই লুকিয়ে আছে দার্জিলিং জয়ের চাবিকাঠি’। তিনি এমন কথাও বলেছিলেন, ‘চোপড়াই দার্জিলিং আসনে তৃণমূলকে জেতাতে পারে। এখানকার সব ভোট পেলে আমরা জিতবই। বিজেপি বদমায়েশি করেছে। কংগ্রেস, সিপিএমকে ভোটটা দিয়ে ভোট নষ্ট করবেন না। আমাদের ভোট দিন’।

আরও পড়ুনঃ বাংলায় দ্বিতীয় দফার ভোটেও সব বুথে থাকছে না কেন্দ্রীয় বাহিনী, ফের ঝামেলার আশঙ্কা

প্রায় ১৬ লক্ষ ভোটারের দার্জিলিং লোকসভা আসনের মধ্যে উত্তর দিনাজপুরের চোপড়া ব্লকের একটা বড় অংশ রয়েছে। সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এলাকার ভোট সংখ্যা ২ লক্ষ ২৯ হাজারের মতো। বাম আমলেও কংগ্রেস এলাকা হিসেবে যথেষ্ট শক্তিশালী ছিল। ২০১১ সালে প্রাক্তন কংগ্রেস বিধায়ক হামিদুল রহমান নির্দল প্রার্থী হিসেবে জেতেন। পরে যান তৃণমূলে। এর পরে গত কয়েক বছরে তৃণমূল শক্তিশালী হয়ে ওঠে। ২০১৬-তে প্রথম হামিদুলই তৃণমূলের টিকিটে জিতে বিধায়ক হন। কংগ্রেস, সিপিএমের পুরনো সংগঠনের সঙ্গে সম্প্রতি বিজেপির সংগঠন তৈরি হয়েছে। সেখানে চোপড়া থেকে ৫০ হাজারের বেশি ‘লিড’ নিতে পারলে শিলিগুড়ি এবং পাহাড়ের ভোটের নিরিখে প্রার্থী অমর সিংহ রাই অনেকটাই এগিয়ে যেতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঝাঁটা মেরে এলাকা থেকে তাড়ানোর ফতেয়া তৃণমূল বিধায়ক ও মন্ত্রীর

এদিন পুলিশ এর ভুমিকা নিয়ে যথেষ্ট ক্ষুণ্ণ এলাকাবাসী। আপাতত থমথমে গোটা চোপড়া ব্লক।

আরও পড়ুনঃ তৃণমূলের হয়ে প্রচার করে ভারতের কালো তালিকায় বাংলাদেশী অভিনেতা ফিরদৌস

আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে The News বাংলা পড়তে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Comments

comments

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন