আপনি কি খেতে ভালোবাসেন, শহর ও শহরতলীর সেরা একশোটি খাবারের জায়গা

144
আপনি কি খেতে ভালোবাসেন, শহর ও শহরতলীর সেরা একশোটি খাবারের জায়গা/The News বাংলা
আপনি কি খেতে ভালোবাসেন, শহর ও শহরতলীর সেরা একশোটি খাবারের জায়গা/The News বাংলা

‘খাদ্য প্রিয় বাঙালি’ এই প্রবাদের জন্ম বাস্তব থেকেই। এবার দুর্গা পুজোর মরশুম আসতেই শুরু হয়ে গেছে; খাওয়া দাওয়ার আর ঘোরার প্ল্যান। কলকাতায় গিয়ে যারা চিন্তায় পরে যান যে; কোথায় খাবেন! আর কি খাবেন! অথবা একই জায়গার খাবার খেয়ে; জিহ্বায় জং ধরে গেছে; তাদের জন্য তৈরী করা হল এই জমজমাট খাবারের লিস্ট। দুর্গা পুজোর পাশাপাশি; এবার পেটপুজোটাও মন দিয়ে করুন।

১) নিউ মার্কেট – নিজাম’স এর কাঠি রোল ও বটী কাবাব! ২) ধর্মতলা নিউ আলিয়া – মাটন স্পেশাল বিরিয়ানী; মাটন টিক্কা; মটন স্টিউ; ফিরনি ও হালিম। ৩) পার্ক স্ট্রিটে পিটার ক্যাট – চেলো কাবাব! ৪) ডেকার্স লেন চিত্ত দার দোকান – রুমালি রুটি + চিকেন ভর্তা; চিকেন আর মাটন্ স্ট্যু। ৫) শোভাবাজার – বিডন স্ট্রীটের এলেন কিচেন – প্রন কাটলেট; চিকেন স্টিক!

আরও পড়ুনঃ দুর্গা পুজোয় সারারাত ঠাকুর দেখার জন্য মেট্রো দিচ্ছে বিশেষ সুবিধা

৬) শোভাবাজার মেট্রো স্টেশন আর গ্রে স্ট্রীটের ক্রসিংয়ে মিত্র ক্যাফে – ব্রেন চপ; ব্রেন স্যুপ; টোস্ট; ফিস ফ্রাই এবং কবিরাজি! ৭) পার্ক সার্কাস রয়াল – মাটন বিরিয়ানি + চিকেন আর মাটন চপ! ৮) বাঙালি বুফে – ৬ বালিগঞ্জ প্লেস! ৯) কলেজ স্ট্রিট প্যারামাউন্ট – ডাব সরবত আর কালিকা – বিভিন্ন রকম চপ!

১০) মিষ্টি – বলরাম মল্লিক; নকুর; পুটিরাম; গাঙ্গুরাম; বাঞ্ছারাম! ১১) দ্যা ভোজ কোম্পানী অবশ্যই নতুন ব্রাঞ্চটা। ১২) বিবেকানন্দ রোডের কাছে বিধান সরণীর ওপর; স্বামিজীর বাড়ির উল্টো ফুটে; চাচার হোটেলের ফিস ফ্রাই আর মাটন্ কাটলেট।

১৩) শ্যামবাজারে ভূপেন বোস অ্যাভিনিউয়ে মণীন্দ্র কলেজের উল্টো দিকের গলিতে; গৌরীমাতা সরণীতে মামুর দোকানের (বড়ুয়া এ্যান্ড দে) মাটন্ প্যান্থারাস্ আর ব্রেইজড্ কাটলেট। ১৪) গিরীশ পার্ক মেট্রো স্টেশনের (পশ্চিম পাড়ে) ঠিক পাশেই নিরঞ্জন আগারের মাটন্ চপ ও লিভার কষা।

১৫) হেদুয়ার মোড়ে বসন্ত কেবিনের; এবং দক্ষিনে লেক মার্কেটের কাছে রাদু বাবুর দোকানের চা এবং চপ; কাটলেট। ১৬) হাতিবাগানে টাউন স্কুলের উল্টো দিকের ফুটপাথে মালঞ্চর কবিরাজী কাটলেট। ১৭) কলেজ স্ট্রীটে পুঁটিরামের কচুরী। ১৮) প্যারামাউন্টের সরবত। ১৯) কপিলা আশ্রমের সরবত! ২০) রয়্যালের মটন চাঁপ।

২১) সিরাজের বিরিয়ানি। ২২) সাবিরের রেজালা। ২৩) স্যাঙ্গিভ্যালি রেস্তরাঁর চপ; কাটলেট। ২৪) সিমলার নকুড়ের সন্দেশ। ২৫) ফড়িয়াপুকুরে সেন মহাশয়ের বাবু সন্দেশ। ২৬) ভবানীপুরের শ্রীহরির লুচি/ কচুরী আর পাতলা ছোলার ডাল। ২৭) বাগবাজার নবীন দাশের রসগোল্লা।

২৮) শ্যামবাজার স্ট্রীটের চিত্তরঞ্জনের রসগোল্লা ও মধুপর্ক। ২৯) শ্যামবাজারের স্ট্রিট ভবতারিণীর রসগোল্লা। ৩০) ফড়িয়াপুকুরে অমৃতের দই। ৩১) বাগবাজারে পটলার দোকানের তেলেভাজা আর কচুরী। ৩২) নিউটাউন বাস স্ট্যান্ডে বিরিয়ানী বার – বিরিয়ানী; চাপ; রেজালা; কাঠি রোল।

৩৩) নিউ মার্কেট এর নাহুম্স এর বেকারী। ৩৪) পার্ক স্ট্রিট ন্যাচারালস এর টেন্ডার কোকোনাট আইসক্রিম। ৩৫) কলেজ স্ট্রিট কফি হাউসের আড্ডা সহযোগে কফি। ৩৬) বউবাজার জাংশনে ভিমনাগের সন্দেশ। ৩৭) স্কুপের ড্রাইফ্রুট আইসক্রিম। ৩৮) এসপ্লানেড মোড়ের কেসি দাসের রসগোল্লা। ৩৯) আওধের বিরিয়ানি।

৪০) রিপন স্ট্রিটের জামজামের বিফ বিরিয়ানি ও মালাই। ৪১) গুপ্তা সুইটস এর ক্যাডবেরি সন্দেশ। ৪২) কস্তুরীর কচু পাতা বাটা চিংড়ি। ৪৩) সল্টলেকের চার্নক সিটির ডাব চিংড়ি। ৪৪) ভজহরি মান্নার নলেন গুড়ের আইসক্রিম। ৪৫) সিদ্ধেশ্বরী আশ্রমের বাঙালি খাদ্যসামগ্রী। ৪৬) খিদিরপুরের “ইন্ডিয়া” এর কাচ্চি বিরিয়ানি; গলৌটি কাবাব; চিকেন চাপ ও তন্দুরি।

৪৭) এম জি রোড বড়বাজার দেশবন্ধু মিষ্টান্নর সীতাভোগ ও শিঙ্গারা। ৪৮) দমদমের হাজির মাটন বিরিয়ানি আর মালাই কাবাব। ৪৯) আগমনীর লাল ক্ষীর দই আর সরভাজা। ৫০) গড়িয়ার ফুটব্রিজের নীচের লাল আটার ফুচকা চুরমুর ও মোমো। ৫১) লেকটাউনে জয়া সিনেমা হলের উলটো দিকে চিকেন রোল।

৫২) বিরাটী মোড়ে ভোরের আলোর রসগোল্লা। ৫৩) সিকিম হাউসের মোমো; পর্ক শাপটা। ৫৪) কালিঘাটে আপনজনের ফিশ চপ; ফিস ওরলি; মাটনের পুর ভরা আর কিমা মোগলাই। ৫৫) ফ্রেন্ডস্ এর চীজ ওনিয়ন ধোসা। ৫৬) মাদ্রাস টিফিনের ধোসা। ৫৭) ওলি পাবের বিফ স্টিক। ৫৮) গড়িয়াহাট ক্যাম্প ফাঁড়ির চিকেন কাটলেট।

৫৯) গড়িয়াহাট দাস কেবিনের মোগলাই। ৬০) হাজরা মোড় ক্যাফের পুডিং; চিকেন স্টু; কাটলেট; ফিস ফ্রাই। ৬১) করিমস এর বিরিয়ানি ও তন্দুরি পদ। ৬২) টেরিটিবাজার ছাত্তাওলা গলির চাইনিজ: তুং নাম। ৬৩) নন্দলালের কচুরী ও ছোলার ডাল। ৬৪) বোহেমিয়ান এর ফিউশান ফুড – গন্ধরাজ জোলেপ্; চিলি পিকল্ চীজ বেকড্ ক্রাব সংগে কলমী গ্রীণস।

৬৫) স্পাইসক্রাফ্ট এর ফিউশান ফুড – দাজাজ চারমৌলা; বীয়ার ক্যান টেম্পুরা ফিশ; জ্যাক ডানিয়েলস্ মৌশে। ৬৬) কাবুল কোলকাতার মটন রোশ; চিকেন সিজি। ৬৭) মোকাম্বো রেস্তরাঁর বেকড্ ক্রাব ও মিক্সড গ্রীলড্ প্লাটার। ৬৮) খিদিরপুর ফ্যান্সির পাশে ঠেলাগাড়ির বিফ হালিম।

৬৯) নিউ মার্কেট টিপু সুলতান মসজিদের পাশে ফালুদা। ৭০) ডেকার্স লেনের অগ্রণী গলিতে ম্যাংগো লস্যি। ৭১) জ্যাকারিয়া স্ট্রিট সুফিয়া- নিহারি; হালিম। ৭২) জ্যাকারিয়া স্ট্রিট দিল্লি সিক্স- পেয়ারে কাবাব; শিরমল; আফগানি কাবাব। ৭৩) জ্যাকারিয়া স্ট্রিট হাজি লিয়াকত – মুসকত হালুয়া

৭৪) জ্যাকারিয়া স্ট্রিট হাজি আলাউদ্দিন- হালুয়া ও গুলাব জামুন। ৭৫) জ্যাকারিয়া স্ট্রিট দিলশাদ – বিফ মালাই কাবাব ও অন্যান্য। ৭৬) জ্যাকারিয়া স্ট্রিট আডামস্ – সুতলি কাবাব । ৭৭) জ্যাকারিয়া স্ট্রিট বোম্বে হোটেল- বিফ চাপ। ৭৮) মানজিলাৎ ফতিমা – আওধি কুজিন।

৭৯) নিউ মার্কেট এর রালিস্ এর কুলফি। ৮০) শ্যামবাজারের মেট্রো গেট – লস্যি। ৮১) চাইনিজ: বারবিকিউ (ফ্লেভারস ওফ চায়না); চায়নাটাউন (কাফুলক); নমনম (সল্টলেক)। ৮২) সি ফুড: সান্তাস ফানটাসিয়া; ফিউসন ফানটাসিয়া। ৮৩) শ্যামবাজারের রুপা- মটন কশা। ৮৪) শ্যামবাজারের তৃপ্তির মোমো।

৮৫) আহিরিটোলা- ভূতনাথ লিট্টি। ৮৬) আহিরিটোলায় সাধুর চা। ৮৭) সিটি সেন্টারের কাছে চৌরাসিয়া – পাওভাজি ও চাট। ৮৮) হাজরা কাফে – পুডিং। ৮৯) যতিনদাস পার্ক মেট্রোয় পণ্ডিত স্যান্ডউইচ। ৯০) নিউ মার্কেট এর ইন্দ্রমহল এর কুলফি। ৯১) বারুইপুরের “আসমা হোটেল”-এর চিকেন চাঁপ আর লাচ্ছা পরোটা।

৯২) শিয়ালদা শিশির মার্কেট লাগোয়া “কল্পতরুর” লস্যি। ৯৩) ঢাকুরিয়া স্টেশন লাগোয়া “জিহ্বার জল”-এর ধোকা ভাজা; সোয়াবিনের চপ্। ৯৪) রাজপুরের মঙ্গল দা’র দোকানের কচুরী। ৯৫) গড়িয়া মোড়ে “জিতেন মাহাতো”র চিকেন মোমো। ৯৬) সোনারপুর বৈকুণ্ঠপুর মোড়ের লুচির সাইজের ফুচকা।

৯৭) গড়িয়া “আমিনিয়া”র চিকেন চট্-পটা। ৯৮) সোনারপুর স্টেশন লাগোয়া “সুবোল সাহা”র লস্যি। ৯৯) শ্যামবাজার গোলবাড়ির কষা মাংস। ১০০) কলেজস্ট্রিট কল্পতরুর পান।

তবে খাওয়ার পর; কাগজ বা ঠোঙা রাস্তায় না ফেলে; ময়লা ফেলার নির্দিষ্ট স্থানে রাখবেন। তাহলে আর কি; বেরিয়ে পরুন ঘুরতে। এখন বা পুজোর সময়; আপনার প্রিয় খাবারের জায়গায় অবশ্যই খাবার খান।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন