মহানদীর তীরে বৌদ্ধ জৈন হিন্দু ধর্মের বৈচিত্রময় ঐতিহাসিক পর্যটন কেন্দ্র সিরপুর

120
মহানদীর তীরে বৌদ্ধ জৈন হিন্দু ধর্মের বৈচিত্রময় ঐতিহাসিক পর্যটন কেন্দ্র সিরপুর/The News বাংলা
মহানদীর তীরে বৌদ্ধ জৈন হিন্দু ধর্মের বৈচিত্রময় ঐতিহাসিক পর্যটন কেন্দ্র সিরপুর/The News বাংলা

মহানদী নদীর ধারে; ছত্তিশগড় রাজ্যের মহাসমুন্ড জেলার; একটি গ্রাম সিরপুর; একটি ঐতিহাসিক জনপদ। ভ্রমণপ্রিয় ও ধার্মিক মানুষদের জন্য এটি আদর্শ জায়গা। রায়পুর থেকে ৭৮ কিমি এবং মহাসমুন্ড শহর থেকে ২৫ কিমি দূরে অবস্থিত সিরপুর।

এই গ্রামে অনেক বৌদ্ধ; হিন্দু ও জৈন মন্দির আছে। মঠগুলির মধ্যে রয়েছে; পঞ্চম থেকে দ্বাদশ শতকের পুরোনো; বিভিন্ন স্মৃতিসৌধ। এখানকার লক্ষ্মণ মন্দির ও আকর্ষণীয় মৃৎপাত্র সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য ১৮৭২ সালে কানিংহামের পরিদর্শন কথা নামক একটি গবেষণায় প্রকাশিত হয়।

২০০৩ সালের খননকার্যের পর ১২টি বৌদ্ধ বিহার, ১টি জৈন বিহার, বুদ্ধ ও মহাবীরের একাধিক মূর্তি, ২২টি শিব মন্দির এবং ৫টি বিষ্ণু মন্দির, ভূগর্ভস্থ শস্যাগার এবং ষষ্ঠ শতাব্দীর ‘স্নান কুণ্ড’ খুঁজে পাওয়া গেছে। সিরপুরের অন্যান্য বিখ্যাত আকর্ষণগুলি হল; গন্ধেশ্বর মন্দির এবং বুদ্ধ বিহার। কাগজ শিল্পের জন্যও বিখ্যাত এই স্থান।

সিরপুর মহানদী/The News বাংলা
সিরপুর মহানদী/The News বাংলা

প্রাচীন ভারতীয় গ্রন্থ ও শিলালিপিগুলিতে; শ্রীপুর নামে পরিচিত; সিরপুর। যাত্রীরা সহজেই বিমানপথ, রেলপথ, সড়কপথ তিনটিই ব্যবহার করে আসতে পারেন। নিকটতম বিমানবন্দর; রায়পুরের স্বামী বিবেকানন্দ বিমানবন্দর।

আরও পড়ুনঃ বন্দুকের গুলির ভয় দেখিয়ে একাধিক ছাত্রীকে নিজের লালসার শিকার বানাল গৃহশিক্ষক

সিরপুর গ্রাম একটি বিখ্যাত প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান। স্থানটির বিভিন্ন মঠ-মন্দির সম্পর্কে নানা তথ্য; চীনা পর্যটক হিউ-য়েন-সাঙ এর স্মৃতিতে উল্লেখ করা আছে। রামায়ণ খ্যাত রাম ও লক্ষ্মণ মন্দিরের পাশাপাশি; শক্তিবাদ, বৌদ্ধধর্ম ও জৈনবাদের সাথে সম্পর্কিত এই গ্রাম। স্থানটি বৌদ্ধ, জৈন মূর্তি সহ; শিব, বিষ্ণু ও অন্যান্য দেব-দেবীর মন্দিরগুলির সাথে একত্রিত হয়ে বৈচিত্র্য এনেছে।

সিরপুর জৈন, বৌদ্ধ ও হিন্দু ধর্ম অনুসারীদের জন্য অন্যতম তীর্থস্থান। এখানে মকার সংক্রান্তির সময় একটি মেলা হয়। এছাড়াও এখানে পাহাড়ী ঘন জঙ্গলের মধ্যে বর্নয়াপারা নামে একটি অভয়ারণ্য আছে। সেখানে বাইসন, চিতল হরিণ, সমবার হরিণ, নীলগাই, বন্য শুয়োর ইত্যাদি দেখা যায়।

জাতীয় সড়ক ৫৩ ধরে; রায়পুর থেকে সিরপুর পর্যন্ত গাড়ীতে যেতে সময় লাগে; প্রায় দেড় ঘণ্টা। গাড়ি ভাড়া প্রায় ১৫০০-২০০০ টাকা। সিরপুরে রাত্রিবাসের জন্য রয়েছে হিউ-য়েন-সাঙ ট্যুরিস্ট রিসর্ট। ভাড়া ১০০০-১৫০০ টাকা; যোগাযোগ০৯৯০৭৫৮৯৬৯৯, ০৯৯৭৭০৪৫৬২৭। ট্রেনে যাতায়াত করলে; রায়পুর বা মহাসমুন্ড রেল স্টেশন থেকে সিরপুর আসা যাবে।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন