নেই একজনও মুসলমান বাসিন্দা, তবুও সিএএ আর এনআরসির বিরুদ্ধে গর্জে উঠলো এই গ্রাম

874
গ্রামটিতে নেই একজনও মুসলমান বাসিন্দা/The News বাংলা
গ্রামটিতে নেই একজনও মুসলমান বাসিন্দা/The News বাংলা

গ্রামটিতে নেই একজনও মুসলমান বাসিন্দা; তবুও সিএএ আর এনআরসির বিরুদ্ধে গর্জে উঠলো এই গ্রাম। দেশের এই প্রথম একটি গ্রাম; যারা সিএএ আর এনআরসির বিরুদ্ধে সরকারের প্রতি অসহযোগিতার সিদ্ধান্ত নিল।

মহারাষ্ট্রের অহমেদনগরের অদূরে ছোট্ট গ্রাম ইসলাক। গ্রামের জনসংখ্যা মেরে কেটে মাত্র ২হাজারের আশে পাশে। কিন্তু তাতে কি? দেশের মধ্যে সরকারের বিরুদ্ধে সঙ্গবদ্ধ ভাবে; সিএএ আর এনআরসির বিরুদ্ধে হাতে হাত রেখে প্রতিরক্ষা তৈরি করে নজির সৃষ্টি করল এই গ্রাম।

মহারাষ্ট্রের এই গ্রামের অধিবাসীরা সবাই কয়েক পুরুষ ধরে; এই গ্রামে বাস করছেন। এদের প্রত্যেকের জীবিকা কৃষি কাজ। গ্রামের পঞ্চায়েত প্রধান বাবাসাহেব গোরাঙ্গে জানিয়েছেন; এই গ্রামে কয়েক পুরুষ ধরে বসবাস করলেও; অনেকেরই জমির বৈধ কাগজ নেই। বংশ পরম্পরায় তারা এই সব জমিতে চাষ বাস করে জীবিকা নির্বাহ করছেন।

তাই সিএএ আর এনআরসির মত কিছু চালু হলে; এই গ্রামের অনেক বাসিন্দারাই নিজেদের নথি দেখাতে পারবে না। সিএএ বা এনআরসি চালু হলে গ্রামবাসী অস্তিত্ব সঙ্কটে পড়বে। তাই গোটা গ্রামের কথা মাথায় রেখে; ইসলাক গ্রামবাসীরা যৌথ ভাবে; সিএএ আর এনআরসির বিরুদ্ধে অসহযোগিতার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

২৬ জানুয়ারি গ্রাম পঞ্চায়েতের একটি সভায় এই সংকল্প গ্রহণ করেন গ্রামবাসীরা। সিদ্ধান্তে খসড়ায় সই করেন পঞ্চায়েত প্রধান এবং সহ পঞ্চায়েত প্রধান। এই সিদ্ধান্তের একটি কপি পাঠানো হয়েছে জেলা প্রশাসনের কাছেও। গ্রামবাসীদের কথায়; মানবতার খাতিরেই এই সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছেন তাঁরা।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন