চরম লজ্জা, কোটি টাকার জালিয়াতি করে, জেলে মহাত্মা গান্ধীর প্ৰপৌত্রী

3114
কোটি টাকার জালিয়াতি করে, জেলে মহাত্মা গান্ধীর প্ৰপৌত্রী
কোটি টাকার জালিয়াতি করে, জেলে মহাত্মা গান্ধীর প্ৰপৌত্রী

জালিয়াতির অভিযোগ; মহাত্মা গান্ধীর প্ৰপৌত্রীর বিরুদ্ধে! ৭ বছর জেলের সাজা শোনাল; দক্ষিণ আফ্রিকার আদালত। ভারতীয় মুদ্রায় ৩.৩৩ কোটি টাকা; (দক্ষিণ আফ্রিকার ৬.২ মিলিয়ন র‍্যান্ড) আর্থিক জালিয়াতির অভিযোগে; সাত বছরের জেলের সাজা হল মহাত্মা গান্ধীর প্রপৌত্রী আশিস লতা রামগোবিনের। দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবান থেকে আসা খবর; শোরগোল ফেলে দিয়েছে গোটা দেশে। যা নিয়ে দেশজুড়ে ব্যাপক চর্চা শুরু হয়েছে। মোহনদাস করম চাঁদ গান্ধীর প্ৰপৌত্রীকে; জালিয়াতির দায়ে ৭ বছর জেলের সাজা শুনিয়েছে আদালত। বিশ্বাস করতে পারছে না; ভারতের মানুষ।

আরও পড়ুনঃ বাংলায় বিক্ষোভ রোহিঙ্গাদের

জালিয়াতির মামলায়; আদালতে সাজা শুনিয়েছে। গান্ধীর প্ৰপৌত্রী আশিস লতা রামগোবিন্দের বিরুদ্ধে; আদালতের এমন রায় সামনে আসার পর ভারতে এই ইস্যুতে জোর চর্চা শুরু হয়েছে। অনেকে এই ঘটনাকে দেশের জন্য; চরম লজ্জাজনক বলে আখ্যা দিয়েছেন। এর কারণ স্বাধীনতার পর থেকেই, দেশের নেতারা মহাত্মা গান্ধীকেই; ভারতের বাইরে সবথেকে বেশি প্রমোট করেছে। আজকের দিনে দাঁড়িয়েও ভারত সরকার; গান্ধীর প্রচারের জন্য বড়ো অঙ্কের টাকা খরচ করে।

গান্ধীর প্ৰপৌত্রী
গান্ধীর প্ৰপৌত্রী

এমন পরিস্থিতিতে গান্ধীর পরিবারের কেউ অন্য দেশে; জালিয়াতি কাণ্ডে ফেঁসে জেলে যাচ্ছে; এটা দেশের পক্ষে রীতিমতো অস্বস্থিকর তা নিয়ে সন্দেহ নেই। গান্ধীজির দ্বিতীয় ছেলে মনিলাল গান্ধীর মেয়ে; এলা গান্ধীর মেয়ে তিনি। এলা গান্ধী দক্ষিণ আফ্রিকার জনপ্রিয় সমাজকর্মী; এবং প্রাক্তন সাংসদ। ২০১৫ সালে এই মামলার শুনানি; শুরু হয়েছিল। সেই সময় টাকার বিনিময়ে জামিন পেয়েছিলেন; আশিস লতা রামগোবিন্দ। এখন সমস্ত প্রমাণ ও অভিযোগের ভিত্তিতে; ডারবানের কমার্শিয়াল ক্রাইম কোর্ট সাজা শুনিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ ‘বেসুরো রাজীব’, একমাস চুপ থাকার পর সোজা ‘পাল্টি’

এস আর মহারাজ নামে; এক ব্যবসায়ীর থেকে মিথ্যে কাগজপত্র দেখিয়ে; ওই টাকা হাতিয়েছিলেন লতা। আর্থিক সঙ্কটে রয়েছেন, তাই ভারত থেকে আনানো সুতির কাপড়; বন্দর থেকে কয়েক কোটি টাকা দিয়ে ছাড়াতে হবে; এই আর্জি জানিয়ে ওই টাকা নেন তিনি। প্রচুর টাকা আমদানি শুল্ক দিতে হবে শুনে; আশীষ লতাকে সাহায্য করেন মহারাজ। পরবর্তীতে লাভের অংশও দেবেন মহারাজকে; এই প্রতিশ্রুতিও দেন। প্রমাণ স্বরূপ, একাধিক ভুয়ো কাগজপত্রও; ওই ব্যবসায়ীকে পাঠান গান্ধীজির প্রপৌত্রী। যদিও টাকা পাঠানোর পর মহারাজ বুঝতে পারেন; তিনি প্রতারিত হয়েছেন।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন