শুভেন্দু অধিকারীর দাবিই কি সত্যি হতে চলেছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘরেও কি গেরুয়া প্রবেশ

1788
শুভেন্দু অধিকারীর দাবিই কি সত্যি হতে চলেছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘরেও কি গেরুয়া প্রবেশ
শুভেন্দু অধিকারীর দাবিই কি সত্যি হতে চলেছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘরেও কি গেরুয়া প্রবেশ

শুভেন্দু অধিকারীর দাবিই কি সত্যি হতে চলেছে; মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘরেও কি গেরুয়া প্রবেশ? এই প্রশ্নেই এখন সরগরম; বাংলার রাজনীতি। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় চ্যালেঞ্জ দিয়ে শুভেন্দু অধিকারীকে বলেছিলেন; “নিজের পরিবারে পদ্ম ফোটাতে পার না; আবার বাংলায় পদ্ম ফোটাবে”। চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে, শুভেন্দু পাল্টা জানিয়েছিলেন; “আমার পরিবারে তো পদ্ম ফুটবেই; তোমার পরিবারেও পদ্ম ফোটাব”। সেইদিনই বাংলার রাজনীতিতে প্রশ্ন উঠেছিল; কার কথা বলতে চেয়েছেন শুভেন্দু?” এদিন কি তার আভাস পেল; বাংলার মানুষ ও রাজনৈতিক মহল? এবার কালীঘাটে দাঁড়িয়ে, দলের বিরুদ্ধেই কি বেসুরো; মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাই কার্ত্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়?

স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনে এক মেলার উদ্বোধন করে; মঙ্গলবার ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করলেন মমতার ভাই কার্তিক। পরিষ্কার বললেন; “ভবিষ্যতে কী করবো জানি না”। প্রতি বছর বিবেকানন্দের জন্মদিনে; বিবেক মেলার আয়োজন করেন কার্তিকবাবু। মঙ্গলবার কালীঘাটে সেই মেলার উদ্বোধনে; কার্তিক বন্দ্যোপাধ্যায় ভারতীয় রাজনীতিতে পরিবারতন্ত্রের বিরুদ্ধে সরব হন। যে পরিবারতন্ত্রের অভিযোগে; ইতিমধ্যেই বিদ্ধ তাঁর নিজের পরিবার। এদিন কার্তিকবাবু বলেন; “মুখে দেশের কথা বলবো আর নিজের পরিবারকে সব সুবিধা দেব; এটাই এখন ভারতের রাজনীতি”।

আরও পড়ুনঃ “কুণাল ঘোষের জন্যই চিটফান্ডে ডুবেছে তৃণমূল ও মমতা”

কাদের উদ্দ্যেশ্য করে এমন মন্তব্য করলেন; মমতার ভাই কার্ত্তিক? এটাই এখন বড় প্রশ্ন। সঙ্গে এদিনই তাঁর ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য; “আগামীতে কী হবে জানি না। কাল কী করবো আমি নিজেও জানি না”। এরপরেই রাজ্য রাজনীতিতে শুরু হয়েছে; জোর জল্পনা। শুভেন্দু বিজেপিতে যোগদানের পর; কেন তাঁর পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা তাঁর সঙ্গে দলবদল করলেন না; তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তার জবাবে শুভেন্দু বলেছিলেন; “সবে তো পদ্মের কুঁড়ি এসেছে। এখনও বাসন্তী পুজো; রামনবমী আসেনি। আমার বাড়িতে কেন; হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিটেও পদ্ম ফুটিয়ে আসব”।

আরও পড়ুনঃ “নিজের নামের যোগ্যতা হয়নি, ভাইপো বলেই ক্ষমতা, তাই ওই নামেই বলা”, অভিষেককে একহাত নিলেন বৈশাখী

তাহলে কি শুভেন্দুর লক্ষ্য ছিলেন; কার্ত্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়? এটা নিয়েই এখন জোর জল্পনা। তবে এই নিয়ে কিছুই বলতে রাজি হন নি; কার্ত্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়। পরিষ্কার বললেন; “আগামীতে কী হবে জানি না। কাল কী করবো আমি নিজেও জানি না”। আর এই মন্তব্যের পরেই; শুরু হয় জোর জল্পনা। তাহলে কি কার্ত্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়কে দিয়েই; মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘরেও ঢুকবে পদ্ম? এমনই কি ইঙ্গিত দিয়েছিলেন; শুভেন্দু অধিকারী?

তবে কার্ত্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়কে এই নিয়ে The News বাংলার তরফে, ফোন করা হলে; ওনার মোবাইল ধরে কার্ত্তিকবাবু ঘনিষ্ঠ এক নেতা পরিষ্কার বলেন; “এর সঙ্গে জল্পনার কোন প্রশ্নই নেই; ওগুলো কথার কথা। এর সঙ্গে দল ছাড়ার কোন প্রশ্নই নেই। সবটাই মিডিয়ার মনগড়া”। তবে তাতেও থামছে না জল্পনা। জল্পনা সত্যি হলে, সেটা যে ভোটের আগে বঙ্গ বিজেপির বড় হা’তিয়ার হবে; তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন