মমতার দ্বিচারিতা, সংসদে নেই বলে সমালোচনা, রাজ্য বিধানসভাতেও নেই প্রশ্নোত্তর পর্ব

2095
মমতার দ্বিচারিতা, সংসদে নেই বলে সমালোচনা, রাজ্য বিধানসভাতেও নেই প্রশ্নোত্তর পর্ব
মমতার দ্বিচারিতা, সংসদে নেই বলে সমালোচনা, রাজ্য বিধানসভাতেও নেই প্রশ্নোত্তর পর্ব

“মমতার দ্বিচারিতা”; এমনটাই অভিযোগ বাম ও বিজেপির। সংসদে নেই বলে মোদী সরকারের তুমুল সমালোচনা; অথচ, রাজ্য বিধানসভাতেও নেই, সেই প্রশ্নোত্তর পর্ব। সংসদের বাদল অধিবেশনে; এবারে নেই প্রশ্ন উত্তর পর্ব। আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে; শুরু হবে চলতি বছরের বাদল অধিবেশন। প্রতিদিন চার ঘন্টার জন্য বসবে সভা। কিন্তু সেই অধিবেশনে; কোনো প্রশ্ন উত্তর পর্ব রাখা হয়নি। সেই নিয়ে, কংগ্রেস, তৃণমূল সহ বিরোধীরা তুমুল সমালোচনা করছে; মোদী সরকারের। এদিকে, সংসদের মতই, বাংলার বিধানসভা-তেও সরকার রাখে নি; সেই প্রশ্নোত্তর পর্ব।

সাধারণত সংসদে, অধিবেশন বসার আগে; একঘন্টা চলে প্রশ্ন উত্তর পর্ব। ১৫ দিন আগে বিরোধী সাংসদদের; প্রশ্ন জমা দিতে হয়। সেই অনুযায়ী জবাব দিতে হয়; সরকার পক্ষ ও তার মন্ত্রীদের। কিন্তু শুরু হতে যাওয়া চলতি বাদল অধিবেশনে; সেই অধিকার দেওয়া হলো না সাংসদদের। ১৯৫০ সালের পর এই প্রথম; প্রশ্ন উত্তর পর্ব থাকল না সংসদের অধিবেশনের সূচিতে। সময় কম থাকার জন্যই, প্রশ্নোত্তর পর্ব বাদ; জানিয়েছে কেন্দ্র।

আরও পড়ুনঃ মমতা সনিয়ার লড়াই শেষ, জেইই-নিট পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়ার আর্জি খারিজ করল সুপ্রিম কোর্ট

এই নিয়ে শুরু হয়েছে; বিরোধীদের তুমুল প্রতিবাদ। সোশ্যাল মিডিয়ায় তৃণমূল সাংসদরা বলছেন যে; প্রশ্নোত্তর পর্ব না হওয়া, ভারতীয় গণতন্ত্রের ওপর সবচেয়ে বড় আঘাত। দলনেত্রী মমতার নির্দেশে, এই নিয়ে রীতিমত শোরগোল ফেলে দিয়েছেন; ডেরেক ও ব্রায়েন সহ অন্যান্য তৃণমূল নেতারা। অন্যদিকে, পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ও; রাজ্য বিধানসভায় প্রশ্নোত্তর পর্বের কোনও পাট রাখেননি। ঠিক কেন্দ্রের মতই, সময় কম বলে। এই নিয়েই এবার; রাজ্যে সরব হয়েছেন বিরোধীরা। বাম ও বিজেপির অভিযোগ; এটা আসলে মমতা ও তৃণমূলের দ্বিচারিতা।

আরও পড়ুনঃ সিপিএম থেকে সাসপেন্ড ‘কঙ্কালকাণ্ডে অভিযুক্ত’ সুশান্ত ঘোষ

যদিও কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে যে; বাদল অধিবেশনে লিখিত প্রশ্নের সুযোগ পাবেন সাংসদরা। কিন্তু তাতে খুশি নয় তৃণমূল। ডেরেক বলছেন, “যে মন্ত্রীরা কেন দাঁড়িয়ে উত্তর দেবে না; সাংসদদের প্রশ্নে”। “আমাদের ভিক্ষা দিয়ে লাভ নেই; এটা সংসদ, গুজরাত জিমখানা নয়”; টুইটে বলেন তৃণমূল মুখপাত্র।

এই নিয়ে বিজেপির রাজ্য সহ সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন; “তৃণমূলের দ্বিচারিতা দেখুন; যে তৃণমূল সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্ব নেই বলে লাফাচ্ছে; তারাই রাজ্যের বিধানসভা অধিবেশনে, বিধায়কদের প্রশ্ন শুনতে চায় না। সেই কারণেই প্রশ্নোত্তর পর্ব রাখা হয়নি”। সিপিএম বিধায়ক সুজন চক্রবর্তী বলেন যে; “কেন্দ্র ও রাজ্য এক সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কোন প্রশ্ন তাঁরা শুনবেন না”।

Please follow and like us:
error

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন